শুক্রবার, ২১শে জুন, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ

ইত্তেফাককে বাদ দিয়ে বাংলাদেশের ইতিহাস লিখা যাবে না-কুমিল্লায় প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী অনুষ্ঠানে বক্তারা

আজকের কুমিল্লা ডট কম :
ডিসেম্বর ২৪, ২০১৭
news-image

স্টাফ রিপোর্টার ॥
‘ইত্তেফাক মানেই একটি ইতিহাস। ইত্তেফাককে বাদ দিয়ে বাংলাদেশের ইতিহাস লিখা যাবে না। স্বাধীনতা, গণআন্দোলনসহ দেশের বিভিন্ন আন্দোলন-সংগ্রামে ত্যাজোদীপ্ত ভূমিকা রেখেছে ইত্তেফাক। এসব কারণেই পত্রিকাটির প্রতিষ্ঠাতা তোফাজ্জল হোসেন মানিক মিয়া সাংবাদিকতার ইতিহাসে চির স্মরণীয় ও পথিকৃৎ হয়ে থাকবেন। জীবনে কিছু না করে তিনি ইত্তেফাককে দেশ, জাতি ও জনগণের মুখপত্র হিসেবে গড়ে তোলেছেন। তাই ২৪ ডিসেম্বর বাঙালির ইতিহাসে একটি ঐতিহাসিক দিন। বাংলাদেশের ইতিহাসের সঙ্গে ইত্তেফাক মিশে আছে আপন মহিমায়। অতীতের ন্যায় আগামীদিনেও ইত্তেফাক দেশ ও জনগণের কল্যাণে এর ধারাবাহিকতা রেখে এগিয়ে যাবে এটাই আমাদের প্রত্যাশা।’

ইত্তেফাক প্রকাশনার ৬৫ বছরে পদার্পন উপলক্ষে রবিবার সকাল ১১টায় কুমিল্লা টাউনহলের মুক্তিযুদ্ধ কর্ণারে আয়োজিত আলোচনা সভা, র‌্যালি ও কেক কাটার বর্ণাঢ্য কর্মসূচিতে বক্তারা এসব কথা বলেন।

দৈনিক ইত্তেফাকের কুমিল্লা জেলা প্রতিনিধি ও কুমিল্লা প্রেসক্লাবের সাবেক সাধারণ সম্পাদক মো. লুৎফুর রহমানের সভাপতিত্বে ওই অনুষ্ঠানে অতিথি ছিলেন কেন্দ্রীয় কৃষকলীগের সিনিয়র সহ-সভাপতি ও কুমিল্লা জেলা পরিষদের সাবেক প্রশাসক বীর মুক্তিযোদ্ধা আলহাজ্ব মো. ওমর ফারুক, কুমিল্লা অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক মো. মনিরুজ্জামান তালুকদার, কুমিল্লা অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মো. আবদুল্লাহ আল-মামুন, কুমিল্লা সরকারি মহিলা কলেজের অধ্যক্ষ প্রফেসর মো. রুহুল আমিন ভূঁইয়া। এসময় অন্যান্যের মধ্যে ছিলেন কুমিল্লা নাগরিক ফোরামের সভাপতি কামরুল আহসান বাবুল, কুমিল্লা প্রেসক্লাবের সাবেক সভাপতি রমিজ খান, কুমিল্লা আইনজীবী সমিতির সাবেক সাধারণ সম্পাদক অ্যাড. মাহবুবুর রহমান, বীর মুক্তিযোদ্ধা সালাহ উদ্দিন আহমেদ, ময়নামতি জাদুঘরের কাস্টোডিয়ান ড. আহমেদ আবদুল্লাহ্, মহানগর ঐক্য সংহতির সদস্য সচিব মো. আবুল বাসার, ইত্তেফাকের দাউদকান্দি সংবাদদাতা মো. হাবিবুর রহমান, লাকসাম সংবাদদাতা এম.এ কুদ্দুস, মনোহরগঞ্জ সংবাদদাতা আবদুল গাফফার সুমন, চৌদ্দগ্রাম সংবাদদাতা মাহবুবুর রহমান মিয়াজী প্রমুখ। দৈনিক জনকণ্ঠের কুমিল্লা প্রতিনিধি ও কুমিল্লা প্রেসক্লাবের সাবেক সহ-সভাপতি মীর শাহ আলমের সঞ্চালনায় ওই অনুষ্ঠানে অন্যান্যের মধ্যে ছিলেন সীমান্ত সংবাদ সম্পাদক নজরুল ইসলাম দুলাল, আরটিভি’র কুমিল্লা প্রতিনিধি গোলাম কিবরিয়া, দৈনিক আজকের কুমিল্লার সম্পাদক ইমতিয়াজ আহমেদ জিতু, ৭১ টিভির কুমিল্লা প্রতিনিধি কাজী এনামুল হক ফারুক, দৈনিক ডাক প্রতিদিনের ব্যবস্থাপনা সম্পাদক এম. সাদেক, দৈনিক যুগান্তরের কুমিল্লা ব্যুরো রিপোর্টার আবুল খায়ের, সাংবাদিক ওমর ফারুকী তাপস, দৈনিক ইনকিলাবের কুমিল্লা স্টাফ রিপোর্টার সাদিক মামুন, দৈনিক কুমিল্লা কণ্ঠের সম্পাদক মো. কামাল উদ্দিন, মোহনা টিভির কুমিল্লা প্রতিনিধি তাওহীদ হোসেন মিঠু, সাপ্তাহিক সমাজকণ্ঠের সম্পাদক জসীম উদ্দিন চাষী, এটিএন নিউজের কুমিল্লা প্রতিনিধি রফিকুল ইসলাম চৌধুরী খোকন, দৈনিক যায়যায়দিনের কুমিল্লা প্রতিনিধি আবদুল জলিল ভূঁইয়া, দৈনিক সংবাদের কুমিল্লা প্রতিনিধি জাহিদুর রহমান, দৈনিক রুপসী বাংলার বিশেষ প্রতিনিধি এম.এইচ মনির, দৈনিক বণিক বার্তার কুমিল্লা প্রতিনিধি কাজী মীর আহমেদ মীরু, জেলা সমবায় লীগের সাধারণ সম্পাদক জুনায়েদ শিকদার তপু, দৈনিক প্রথম আলোর আলোকচিত্রী সোহাগ, সাংবাদিক আনিছুর রহমান চৌধুরী সেতু, এম.এ কুদ্দুসসহ বিভিন্ন সামাজিক-সাংস্কৃতিক সংগঠনের নেতৃবৃন্দ। এর আগে দিবসটি উদযাপন উপলক্ষে কুমিল্লা টাউনহল থেকে নগরীতে বর্নাঢ্য র‌্যালি বের করা হয়। পরে কেক কেটে ইত্তেফাকের জন্মদিন পালন করা হয়। অনুষ্ঠানে বিভিন্ন সামাজিক, সাংস্কৃতিক ও পেশাজীবী সংগঠনের অসংখ্য নেতৃবৃন্দ অংশগ্রহণ করেন।

আর পড়তে পারেন