শুক্রবার, ২১শে জুন, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ

এইচএসসি পরীক্ষা দেওয়া হলো না তামান্নার, ঠিকানা হয়েছে লাশ ঘরে!

আজকের কুমিল্লা ডট কম :
ডিসেম্বর ৩, ২০২১
news-image

 

চান্দিনা প্রতিনিধিঃ

কুমিল্লার চান্দিনা উপজেলার দোল্লাই নবাবপুর সরকারি কলেজ এর শিক্ষার্থী তামান্না আক্তার লিজা। কলেজে অধ্যয়ণরত অবস্থায় ভালবেসে বিয়ে করেন মাহবুব আলম নামের এক ছেলেকে। স্বামীর ঘরে থেকেই সুখ দুঃখের মাঝে যথা সময়ে ফরম পূরণসহ পরীক্ষার প্রস্তুতিও নেয় মেধাবী ছাত্রী তামান্না।

পরীক্ষার রুটিন অনুযায়ী বৃহস্পতিবার (২ ডিসেম্বর) সকাল ১০টায় শুরু হয় পদার্থ বিজ্ঞান পরীক্ষা। সেই মোতাবেক যথা সময়ে তামান্না আক্তারও তার পরীক্ষা কেন্দ্রে পৌঁছার কথা। বিধিবাম! বৃহস্পতিবার সকালে পরীক্ষা কেন্দ্রে যাওয়া হয়নি তার। এইচএসসি পরীক্ষার প্রথম দিনে তার ঠিকানা হয়েছে চান্দিনা থানার লাশ ঘরে!

স্বামীর বসত ঘরে ফ্যানের সাথে ঝুলে থাকা তামান্না আক্তারের মরদেহ উদ্ধার করে থানায় নিয়ে আসে পুলিশ। এক সন্তানের জননী তামান্না’র মৃত্যু নিয়ে ধুম্রজাল বিরাজ করছে। স্বামীর পরিবারের দাবী আত্মহত্যা আর পিতার পরিবারের দাবী হত্যা।

ঘটনাটি ঘটেছে কুমিল্লার চান্দিনা উপজেলার নবাবপুর ইউনিয়নের বিচুন্দাইর গ্রামে। নিহত তামান্না আক্তার লিজা একই উপজেলার গল্লাই ইউনিয়নের সোনাকান্দা গ্রামের প্রবাসী আবুল কালাম আজাদ এর মেয়ে। দুই বোনের মধ্যে তামান্না বড়।

নিহতের মা মাহিনূর আক্তার জানান, ২০১৯ সালের ডিসেম্বর মাসে একাদশ শ্রেণীতে অধ্যয়ণরত অবস্থায় ওই ছেলেকে ভালবেসে পালিয়ে বিয়ে করে তামান্না। প্রথমে আমরা তার বিয়েকে মেনে না নিলেও চলতি বছরের মার্চ মাসে তার একটি পুত্র সন্তান জন্ম হওয়ার পর পারিবারিকভাবে তাদের বিবাহের বিষয়টি মেনে নেই আমরা। তারপর থেকে তামান্নার স্বামীর পরিবার যৌতুকের জন্য আমার মেয়েকে বিভিন্নভাবে চাপ প্রয়োগ করতো। বুধবার রাতেও আমার মেয়ে ফোন করে আমাকে জানায়, ‘মা আগামীকাল (বৃহস্পতিবার) আমার পরীক্ষা দোয়া করবেন। এদিকে তারা (স্বামীর পরিবার) আমাকে টাকা আনতে বলছেন’। এই বলে আমার মেয়ে কান্না করতে থাকে। পরদিনে বৃহস্পতিবার সকালে তারা আমার মেয়েকে হত্যা করে মরদেহ ফ্যানের সাথে ঝুলিয়ে রেখে আত্মহত্যা বলে চালিয়ে দেওয়ার অপচেষ্টা করছে।

এই ব্যাপারে স্বামী মাহবুব আলম এর ব্যক্তিগত মোবাইল ফোনে একাধিকবার ফোন করলেও তার ফোন নম্বরটি বন্ধ পাওয়া যায়।

তবে মাহবুব আলম এর পিতা জাকারিয়া জানান, সকালে আমরা কেউ বাড়িতে ছিলাম না। আমার স্ত্রী (মাহবুব এর মা) বাড়ি এসে দেখে তামান্না ঘরের দরজা বন্ধ করে ফাঁসিতে ঝুলে আছে।

চান্দিনা থানার উপ-পরিদর্শক (এস.আই) গিয়াস উদ্দিন জানান, খবর পেয়ে আমরা দুপুর সাড়ে ১২টায় বিচুন্দাইর গ্রামের মাহবুব আলম এর বসত ঘর থেকে ঝুলন্ত অবস্থায় মরদেহ উদ্ধার করেছি। নিহতের স্বামীর পরিবারসহ আশ-পাশের লোকজন বলছেন ঘরের দরজা ভিতর থেকে বন্ধ করে আত্মহত্যা করেছে তামান্না। প্রাথমিক তদন্তেও আত্মহত্যার আলামত পাওয়া গেছে।

এ ব্যাপারে চান্দিনা থানার অফিসার ইন-চার্জ (ওসি) মোহাম্মদ আরিফুর রহমান জানান, আমরা মরদেহ উদ্ধার করেছি। মরদেহ ময়না তদন্তের জন্য কুমিল্লা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হবে। ময়না তদন্তের রিপোর্ট আসার পর তদন্ত সাপেক্ষে যথাযথ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

আর পড়তে পারেন