শুক্রবার, ২১শে জুন, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ

কলকাতা যে কারণে সবচেয়ে দামি ক্রিকেটারকে খেলায়নি

আজকের কুমিল্লা ডট কম :
এপ্রিল ২৭, ২০২৪
news-image

ডেস্ক রিপোর্ট:

আইপিএলের সবচেয়ে দামি ক্রিকেটার মিচেল স্টার্ক। যদিও ২৪.৭৫ কোটি রুপি দামের এই অস্ট্রেলিয়ান পেসার কলকাতা নাইট রাইডার্সকে যথার্থ প্রতিদান দিতে পারেননি। সর্বশেষ গতকালের ম্যাচে দেখা যায়নি তাকে। যেখানে তার দল কলকাতা ২৬১ রান করেও পাঞ্জাব কিংসের কাছে বিশ্বরেকর্ড গড়ে হেরেছে। স্টার্ক একাদশে না থাকার কারণ অবশ্য ম্যাচের আগেই জানিয়েছিলেন কলকাতা অধিনায়ক শ্রেয়াস আইয়ার।

আগের ম্যাচে ক্যাচ ধরার সময় আঙুলে চোট পান এই অজি গতিতারকা। সে কারণে পাঞ্জাবের বিপক্ষে স্টার্কের বদলে একাদশে নেওয়া হয় শ্রীলঙ্কান পেসার দুষ্মন্ত চামিরাকে। এই লঙ্কান পেসারও অবশ্য বলার মতো কিছু করতে পারেননি। উল্টো ৩ ওভার বল করে ৪৮ রান খরচ করেন, ছিলেন উইকেটশূন্য। অবশ্য এমন রানবন্যার ম্যাচে বল হাতে দুই দলের বেশিরভাগ বোলারই সেভাবে সুবিধাজনক অবস্থানে ছিলেন না। কেবল ব্যতিক্রম ছিলেন সুনীল নারিন। ৪ ওভারে মাত্র ২৪ রান দিয়ে তিনি ১ উইকেট শিকার করেন।

ম্যাচের শুরুতে স্টার্কের চোট নিয়ে শ্রেয়াস আইয়ার জানান, ‘চলতি মৌসুমে যেটা আমাকে সবচেয়ে বেশি খুশি করেছে, তা হলো প্রত্যেকেই ভালো খেলছে। ভালো পারফর্ম করেছে। পরিস্থিতি যাই হোক না কেন, প্রত্যেকেই নিজের সেরাটা দিচ্ছে। শেষ ম্যাচে স্টারসি (স্টার্ক) আঙুলে চোট পেয়েছে। ওর বদলে দুষ্মন্ত চামিরা এসেছে। আমরা একই ফর্ম এবং গতি বজায় রাখতে চাই।’

বেঙ্গালুরুর বিপক্ষে ম্যাচের শেষ ওভারে রুদ্ধশ্বাস লড়াই করে জিতে নাইটরা। যদিও সেই ম্যাচে স্টার্ককে বেঙ্গালুরুর কার্ন শর্মা তিনটি ছয় মারেন। পরে অবশ্য স্টার্কের কাছেই তালুবন্দি হন তিনি। ম্যাচ জেতার আশা প্রায় সেখানেই শেষ হয়ে যায় বিরাট কোহলিদের। কিন্তু ওই ক্যাচ ধরতে গিয়েই আঙুলে চোট পেয়েছিলেন স্টার্ক। তারপর ইডেনে কেকেআরের প্র্যাক্টিসে এলেও বল করতে দেখা যায়নি তাকে। তখনই জল্পনা শুরু হয়েছিল, পাঞ্জাবের বিপক্ষে কলকাতা তাকে নাও খেলাতে পারে।

তবে স্টার্কের বাদ পড়া নিয়ে নাইট সমর্থকরা হয়তো সেভাবে দুঃশ্চিন্তায় ছিলেন না। কারণ বল হাতে এখন পর্যন্ত নিজের নামের প্রতি সুবিচার করতে পারেননি তিনি। আইপিএলে ৭ ম্যাচ খেলে তুলেছেন মাত্র ৬ উইকেট। ওভারপ্রতি রান দিয়েছেন প্রায় সাড়ে ১১ করে। তার মধ্যে প্রথম দুই ম্যাচেই দিয়েছিলেন ১০০ রান। বেঙ্গালুরুর বিপক্ষেও ৩ ওভারে খরচ করেছিলেন ৫৫ রান। ফলে তার ফর্ম নিয়ে আশঙ্কার জায়গা থেকে যাচ্ছিল।

আর পড়তে পারেন