শনিবার, ১৮ই মে, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ

কাউন্সিলরসহ জোড়া খুন: হিট স্কোয়াড ও অস্ত্রের যোগানদাতার দুইজন গ্রেফতার

আজকের কুমিল্লা ডট কম :
ডিসেম্বর ১৪, ২০২১
news-image

 

স্টাফ রিপোর্টার:
কুমিল্লা সিটি করপোরেশনের ১৭ নম্বর ওয়ার্ড কাউন্সিলর সৈয়দ মোহাম্মদ সোহেল (৫০) ও তাঁর সহযোগী আওয়ামী লীগ কর্মী হরিপদ সাহাকে (৫৫) এলোপাতাড়ি গুলি করে হত্যার সময় হিট স্কোয়াডে থাকা এজাহারবহির্ভুত অপর দুই ব্যক্তিকে গ্রেফতার করেছে জেলা পুলিশের গোয়েন্দা শাখার (ডিবি) সদস্যরা।

পুলিশের অ্যান্টি টেররিজম ইউনিট ও কাউন্টার টেররিজম অ্যান্ড ট্রান্সন্যাশনাল ক্রাইম ইউনিটের সহযোগীতায় তাদেরকে গ্রেফতার করা হয়।

গ্রেফতারকৃতরা হলেন- নগরীর শুভপুর এলাকার মিজানুর রহমানের ছেলে মো.নাজিম ওরফে পিচ্চি নাজিম (৩০) এবং জেলার চৌদ্দগ্রামের গুণবতী গ্রামের মৃত বাচ্চু মিয়ার ছেলে মো.রিশাত ওরফে নিশাত (২৫)।

বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন জেলা ডিবি পুলিশের উপপরিদর্শক পরিমল দাস। তিনি বলেন, সিসিটিভি ফুটেজে শনাক্তকৃত কিলিং স্কোয়াডের সদস্য নাজিমকে সোমবার রাত ৯টার দিকে এবং রিশাতকে রাত ১০টার দিকে তাদের নিজ নিজ এলাকা থেকে গ্রেফতার করা হয়েছে। রিশাত হত্যাকাণ্ডে ব্যবহৃত অন্ত্রের অন্যতম যোগানদাতা। তাদেরকে ডিবি পুলিশের কার্যালয়ে নেওয়া হচ্ছে।

এর আগে পুলিশ জানিয়েছিলো, সোহেল ও হরিপদকে গুলি করে হত্যার সময় হিট স্কোয়াডে ছিলেন ৬ জন সন্ত্রাসী। এঁরা হলেন- মামলার এজহারনামীয় প্রধান আসামি শাহ আলম, ২ নম্বর আসামি সোহেল ওরফে জেল সোহেল, ৩ নম্বর আসামি মো. সাব্বির হোসেন, ৫ নম্বর আসামি সাজন, এজাহারবহির্ভুত স্থানীয় নাজিম নামে এক যুবক ও ফেনী থেকে আগত সন্ত্রাসী নিশাত। সর্বশেষ পুলিশ জানতে পারে রিশাত ওরফে নিশাতের বাড়ি ফেনী নয়, কুমিল্লার চৌদ্দগ্রামে। এই ৬ জনের মধ্যে পুলিশের সঙ্গে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ নিহত হয়েছেন শাহ আলম, সাব্বির ও সাজন। আর জেল সোহেল স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দিয়ে এখন কুমিল্লা কেন্দ্রীয় কারাগারে রয়েছেন।

উল্লেখ্য- ২২ নভেম্বর নগরীর পাথরিয়াপাড়ায় সন্ত্রাসীদের গুলিতে নিহত হন কাউন্সিলর সোহেল ও হরিপদ সাহা।

আর পড়তে পারেন