শনিবার, ২৪শে ফেব্রুয়ারি, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ

কুমিল্লার দৌলতপুরে সন্ত্রাসীদের হামলায় গুরুতর আহত ৪ জন

আজকের কুমিল্লা ডট কম :
অক্টোবর ২৬, ২০২০
news-image

 

স্টাফ রিপোর্টারঃ

কুমিল্লার আদর্শ সদর উপজেলার ৩ নং দক্ষিণ দূর্গাপুর ইউনিয়নের দৌলতপুর পশ্চিম পাড়ায় সন্ত্রাসী হামলার শিকার হয়েছেন ৪ জন। এরমধ্যে ৩ জন পুরুষ ও একজন মহিলা রয়েছেন।

আহতরা হলেন অলিউল্লাহ (৪৫), পিতাঃ মৃত-কালা মিয়া, মৌসুমী আক্তার মুক্তা(৩৪), স্বামীঃ অলিউল্লাহ, উভয় সাং-দৌলতপুর(পশ্চিম পাড়া, অলি মিয়ার বাড়ী), হৃদয় (১৮), পিতাঃ জাহিদ মিয়া, সাং-চাঙ্গিনী(হালিমা মেইল সংলগ্ন), এবং মোঃ সানি(২০), পিতাঃ আব্দুল জলিল।

স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, দৌলতপুর এলাকার বাসিন্দা অলিউল্লাহ এর ভাগ্নে হৃদয়ের মোবাইল ফোন ও টাকা ছিনতাই করার ঘটনার বিচার চাওয়াকে কেন্দ্র করে এই হামলার ঘটনা ঘটে। এ ঘটনায় কুমিল্লা কোতয়ালী থানায় ৫ জনের নাম উল্লেখ করে ও অজ্ঞাত ১৫ জনকে আসামী করে একটি মামলা দায়ের করা হয়েছে।

আসামীরা হলো মোঃ হৃদয় (২৫), পিতাঃ আলমগীর। মনির(৩০), পিতাঃ মৃত-মজিদ, উভয় সাং-দৌলতপুর (মধ্যপাড়া)। শাফায়েত(১৮), পিতাঃ অজ্ঞাত, সাং-ধনপুর। রাব্বি(২২), পিতাঃ আইয়ুব আলী, সাং-দৌলতপুর। মাসুদ(৪০), পিতাঃ মৃত-আবিদ আলী, সাং-দৌলতপুর এবং অজ্ঞাতনামা আরো ১৫ জন।

আহত অলিউল্লাহর ভাই জয়নাল আবেদীন জানান, ‘নিজের ভাগিনার ছিনতাইয়ের বিচার চাওয়ায় গত ২২ অক্টোবর (বৃহস্পতিবার) সন্ধ্যায় দৌলতপুর পশ্চিমপাড়ায় রাত আনুমানিক ০৭.৪৫ ঘটিকার সময় আসামী মোঃ হৃদয়, মনির, শাফায়েত, রাব্বি, মাসুদ গং তাদের সঙ্গীয় অজ্ঞাতনামা ১৫/১৬ জন অস্ত্রশস্ত্র নিয়ে অলিউল্লাহর বসত ঘরে প্রবেশ করে অলিউল্লাহ, মুক্তা, সানির স্মমুখে, হৃদয়কে হত্যার উদ্দেশ্যে শাফায়েত, রাব্বি, মাসুদ গং তাদের হাতে থাকা রড দিয়ে এলোপাথারি পিটিয়ে ভাগিনা হৃদয়ের মেরুদন্ডে, দু’হাতে ও দু পায়ে গুরতর জখম করে।

এ সময় তাকে রক্ষার জন্য আমার ভাই অলিউল্লাহ, তার স্ত্রী মৌসুমী আক্তার মুক্তা, ভাতিজা সানি চেষ্টা করলে আসামী হৃদয় অলিউল্লাহকে হত্যার উদ্দেশ্যে বুকের বাম পার্শ্বে বগলের নিচে পরপর ০২টি ছুরিকাঘাত করে গুরুতর জখম করে।

একই উদ্দেশ্যে বিবাদী মনির তার হাতে থাকা ধারালো চাপাতি দিয়া এলোপাথাড়ি কুপিয়ে আমার ভাই অলিউল্লাহর বাম ও ডান হাতে, দুপায়ে গুরুতর কাটা রক্তাক্ত জখম করে।

অপর আসামী শাফায়েত তার হাতে থাকা ধারালো চাপাতি দিয়ে হত্যার উদ্দেশ্যে সাক্ষী মৌসুমী আক্তার মুক্তার মাথার সামনের অংশে কুপিয়ে মারিয়া গুরুতর জখম করে। এ সময়ে আহতদের চিৎকারে আশেপাশের লোকজন এলে বিবাদীরা দ্রুত পালিয়ে যায়।’

আহত অলিউল্লাহর অবস্থা আশংকাজনক হলে তাকে উন্নত চিকিৎসার জন্য কুমেক হাসপাতাল থেকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে প্রেরন করা হয়েছে। কোতোয়ালি মডেল থানা পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করে ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করেছেন।

আর পড়তে পারেন