মঙ্গলবার, ২৩শে এপ্রিল, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ

কুমিল্লায় মুক্তিযোদ্ধার অভিযোগে প্রতারক গ্রেফতার, ব্যাংক হিসাব স্থগিত

আজকের কুমিল্লা ডট কম :
আগস্ট ১২, ২০২৩
news-image

স্টাফ রিপোর্টারঃ
কুমিল্লায় বীর মুক্তিযোদ্ধার অভিযোগে রুবেল আহাম্মেদ নামের প্রতারককে গ্রেফতার করা হয়েছে এবং তার ব্যাংক হিসাব স্থগিত করা হয়েছে।

গ্রেফতার হওয়া রুবেল আহমেদ নাটোরের গুরুদাসপুর উপজেলার আলীপুর গ্রামের রেজাউল করিমের ছেলে।

জানা গেছে, ৯ আগষ্ট বীর মুক্তিযোদ্ধা আ: মতিন কোতয়ালী মডেল থানায় একটি লিখিত অভিযোগে জানান যে, চলতি বছরের ১ মার্চ বাদীর পুত্রবধূর (ভিকটিম) ফেইসবুকে +৪৪৭৮২৩৯৭০৩.. নম্বর হতে জন রিকো নামের এক ব্যাক্তি ফ্রেন্ড রিকুয়েস্ট পাঠায়। ভিকটিম ফ্রেন্ড রিকুয়েস্ট গ্রহণ করলে, উক্ত জন রিকো নামক ব্যাক্তি ম্যাসেঞ্জারে ভিকটিমকে উপহার সামগ্রী পাঠানোর জন্য ঠিকানা চায়। ভিকটিম সরল বিশ্বাসে কর্মস্থলের ঠিকানা উক্ত ব্যক্তিকে পাঠায়। পরবর্তীতে উক্ত জন রিকো নামক ব্যক্তি ম্যাসেঞ্জারে মি: জন রিকো লন্ডন লেখা একটি পার্সেলের রশিদ পাঠায়।

পরের দিন সকাল পৌণে ১০ টায় নিজেকে কাস্টমস্ অফিসার পরিচয় দিয়ে ০১৭৩৩১৪২১.. নম্বর হতে ভিকটিমকে পার্সেলের টাকা পরিশোধের জন্য ০২০০০১৯১৯৩১.. নম্বর ব্যাংক হিসাবে ৫৪ হাজার টাকা জমা দিতে বলে। ভিকটিম সরল বিশ্বাসে উক্ত টাকা নিজ ব্যাংক হিসাব হতে পরিশোধ করে। এরপর পরই উক্ত নম্বর হতে মোবাইলে ফোন করে জানায় উক্ত পার্সেলে ডলার আছে, আপনি মানিলন্ডারিং এর মামলা হতে বাঁচতে চাইলে দ্রুত আরো ১ লক্ষ ৮০ হাজার টাকা উক্ত ব্যাংক হিসাবে পাঠান। আর না পাঠালে ১২ ঘন্টার মধ্যে আপনাকে গ্রেফতার করা হবে। এভাবে ভিকটিমকে মানিলন্ডারিং এর মামলা, চাকরি যাওয়াসহ জেল খাটানোর ভয় দেখিয়ে ২ এপ্রিল হতে ৪ এপ্রিল পর্যন্ত বিভিন্ন সময়ে বিভিন্ন কিস্তিতে সর্বমোট ২৪ লাখ ৩৬ হাজার টাকা প্রতারকদের ব্যাংক হিসাবে পাঠাতে বাধ্য করে। এরপর উক্ত ব্যক্তি আরো টাকা পাঠাতে বললে ভিকটিম বাদীকে এবং বাদীর ছেলে (ভিকটিমের স্বামী) কে বিষয়টি জানায়।

পরবর্তীতে এই ঘটনায় বাদী কোতয়ালী মডেল থানার মামলা দায়ের করেন। পরে পুলিশ সুপার আব্দুল মান্নান মামলাটি তদন্তের জন্য জেলা গোয়েন্দা শাখা কুমিল্লাকে নির্দেশ দেন এবং দ্রুত ব্যবস্থা গ্রহণে প্রয়োজনীয় দিক নির্দেশনা প্রদান করেন। জেলা গোয়েন্দা শাখা, কুমিল্লার একটি টিম তথ্য প্রযুক্তির মাধ্যমে উক্ত প্রতারণার ঘটনায় জড়িত মূল হোতা মো: রুবেল আহম্মেদকে (৩৩) শনাক্ত করে। পরে অভিযান চালিয়ে গত ১১ আগষ্ট ভোর ৫ টায় নারায়ণগঞ্জ মদনপুর এলাকায় আসামীর বর্তমান ঠিকানার ভাড়া বাসা হতে তাকে গ্রেফতার করা হয়।

আসামীকে প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে এবং তার জাতীয় পরিচয়পত্র পর্যালোচনায় জানা এই ঘটনায় ব্যবহৃত মোবাইল সিমসহ তার নামে মোট ১৩ টি মোবাইল সিম রেজিষ্ট্রেশনকৃত এবং বিভিন্ন ব্যাংকে মামলায় উল্লেখিত একাউন্টসহ মোট ৮ ব্যাংক একাউন্ট খোলা আছে। উক্ত মামলার এজাহারে উল্লেখিত ০২০০০১৯১৯৩১১১ নং হিসাবটি ১ লক্ষ ৯৮ হাজার টাকাসহ সাময়িকভাবে স্থগিত করা হয়েছে। এ ঘটনায় তদন্ত চলমান রয়েছে।

আর পড়তে পারেন