বৃহস্পতিবার, ২০শে জুন, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ

কুমিল্লা জিলা স্কুল- ২০০০ ব্যাচের ঢাকা পর্বের ইফতার মিলনমেলা সম্পন্ন

আজকের কুমিল্লা ডট কম :
এপ্রিল ২, ২০২৪
news-image

 

বিশেষ প্রতিবেদন:

সরকারি ছুটির দিনে নয়, কর্মদিবসেই সকল ব্যস্ততাকে পাশ কাটিয়ে স্কুল জীবনের বন্ধুদের সাথে আনন্দঘণ কিছু মুহূর্ত উপভোগ করার জন্য ঢাকার হাতিরঝিলের পাশে প্রাকৃতিক নয়নাভিরাম পরিবেশে স্থাপিত একটি রেস্টুরেন্টে ইফতার মিলনমেলা সম্পন্ন করলো কুমিল্লা জিলা স্কুল ২০০০ ব্যাচের শিক্ষার্থীরা।

১ এপ্রিল এ ব্যাচের প্রায় ৪০ জন বন্ধু এ ইফতার মিলনমেলায় অংশগ্রহণ করেন।

বিগত ১৯ মার্চ রাইসুল নাবিল এ ব্যাচের ফেসবুক পেইজে প্রথমে ইফতার আয়োজনের প্রস্তাব করে। সাথে সাথে প্রস্তাবে সাড়া দিতে থাকে অন্য বন্ধুরা। মাকসুদ উল্লাহ, রাইসুল নাবিল, আবু জাফর ‍উজ্জ্বল, ফাইয়াজ আলম, হোসাইন ইউসুফ কাকুল, শাহাদাত সোহাগরা ব্যক্তিগতভাবে বন্ধুদের সাথে যোগাযোগ করা শুরু করে। মাঝে মাঝে আবেগপ্রবণ বার্তা দিয়ে বন্ধুদের উৎসাহ বৃদ্ধির কাজ করেন মাকসুদ উল্লাহ। ইফতারের পূর্ব দিন গ্রুপে মাকসুদ লিখেন- “বছরে একবার বন্ধুদের সাথে একটু সময় কাটানোর জন্য এতটুকু কষ্ট ও ত্যাগ স্বীকার করাই যায়, কি বলিস সবাই।”

এ ব্যাচের সবাই যার যার মত করে কর্মব্যস্তময় সময় অতিবাহিত করছে। ফলে কর্মদিবসে ইফতার মিলনমেলা সফল করাটা বেশ কঠিনই বটে। কিন্তু সকল উৎকন্ঠার অবসান ঘটিয়ে উদ্যোক্তাদের সম্মিলিত প্রয়াস সাফল্যমন্ডিত হয়েছে। কুমিল্লা জিলা স্কুল ২০০০ ব্যাচের ঢাকা পর্বের ইফতার মিলনমেলাটি প্রাণোচ্ছল ও সুখকর ছিল।

সাংগঠনিকভাবে সক্রিয় মাকসুদ, ফাইয়াজ, উজ্জ্বল তো সবার প্রথমেই রেস্টুরেন্টে উপস্থিত। সাথে সাথে সংগীত সাধক নাজমুল আহসান তুহিন, বাইকার আইকন আব্দুল মোমেন রোহিতের দ্রুত উপস্থিতি ছিল চমকের মত। কয়েক বছরের মধ্যে আব্দুল মোমেন রোহিত সড়ক দুঘর্টনায় পরিবার হারিয়েছেন। সেও মৃত্যুর দ্বারপ্রান্তেই ছিল। কঠিন মনোবল ও আত্মবিশ্বাস তাকে স্বাভাবিক জীবনে ফিরে এনেছে। পুরোপুরি ফিট না হলেও ইফতারে রোহিতের উপস্থিতি চমকে দেয়ার মত।পরে ক্রমান্বয়ে অন্যরা আসতে শুরু করেন। তবে এ মিলনমেলায় এসএনএফ আলভী, আহমেদ আল আমিন, কবি পিয়াস মজিদ, অনুপ, কামরুল হাসান, জোবায়েরের উপস্থিতি আশা করেছিল অনেকেই। কিন্তু ব্যস্ত থাকায় তাদেরকে এবার পাওয়া যায়নি।

 

 

 

ইফতারের ঠিক পূর্ব মুহুর্তে বিজনেস আইকন খ্যাত রাজিব আহমেদ এসেই নামায আদায় করে আড্ডায় মনোনিবেশ করলেন। আড্ডায় কিছু ব্যবসায়িক আলোচনাও করে ফেললেন কর্পোরেট বন্ধুদের সাথে। এর ঠিক কিছুক্ষণ পরেই এরাবিয়ান বেশে হাজির রাইসুল নাবিল। ওযুর পানি খুজঁতে বেশ এদিক ওদিক দৌড়াতে দেখা যায় তাকে। এদিকে কুমিল্লা থেকে সকাল ১০ টায় ঢাকার উদ্দেশে রওনা হওয়া পন্ডিতখ্যাত মহিবুবুল হক ছোটন বেশ বিলম্বই করছিলেন। মাকসুদ মুঠোফোনে পন্ডিত ছোটনের অবস্থান জানলেন । তিনি ঢাকায় এসে ব্যস্তময় সময় অতিবাহিত করে ইফতারের স্পটে আসতেছেন। কিন্তু তিনি জ্যামে আটকা পড়েছেন। সেই জ্যামে রয়েছেন ডাক্তার আসাদুজ্জামান আকন্দ জনি। ছোটন ইফতারের সময়ই এসে হাজির। কোনরকমে খেজুর খেয়ে তিনি প্রত্যেক টেবিলে গিয়ে তার পান্ডিত্য মনোভাবের বর্হিপ্রকাশ করলেন। সবার খোঁজ খবর নিলেন। ইফতারের শেষ পর্যায়ে এসে হাজির আসাদুজ্জামান আকন্দ জনি। অল্প একটু খাবার মুখে নিয়েই সবার খবর নিলেন। এর মাঝে আগামী বছর এ ব্যাচের গোল্ডেন জুবিলি ২৫ বছর পূর্তি উপলক্ষে আলোচনা শুরু করলেন উজ্বল, ফাইয়াজ। তাতে সায় দিলেন নাজমুল আহসান তুহিন । ইফতার শেষে আমিন ইসলাম রুবেল, মোহিত চক্রবর্তী, শিশির, ইসমাইল মোরশেদ সোহেল, তুহিন টিপুরা , সালমান কামালরাও বেশ জমাটবাধা আড্ডায় মত্ত ছিলেন। ইফতারের পর নামায আদায় শেষে আবার খাবার ও আড্ডায় মজার সময় কাটিয়ে রাতে সবাই বিদায় নিয়ে যার যার বাড়ি ফিরে গেলেন।

 

 

বছরের একটি স্মরণীয় দিন হয়ে থাকলে ১ মার্চ। যে দিন অন্তত সবাই যার যার ব্যস্ততা, চিন্তা অন্তত কিছু সময়ের জন্য ভুলে সবাই হারিয়ে গেছেন অন্তত ২৪ বছর আগের দিনগুলোতে। সবাইকে সেই নবম-দশম শ্রেণির শিক্ষার্থীদের মতই দুষ্টু, বাচাল মনে হচ্ছিল। এমন দিন প্রতি বছর ফিরে আসুক। ৩৬৫ দিনের একটি দিন অন্তত আমাদের জন্য থাকুক যেখানে থাকবে না কোন সীমাবদ্ধতা, শুধুই থাকবে ভালবাসা, আবেগ, সুখময় কিছু মুহুর্ত।

 

এই ইফতার মিলনমেলাতে উপস্থিত থেকে আরা প্রাণবন্ত করেছেন আবু নোমান মহসিন, তানভীর আলম, আলী আহমেদ মিয়া, হাসানুজ্জামান তানিন, জাভেদ, আব্দুর কাদের, বুলু, সালাউদ্দিন, গোলাম মোর্তজা, রাগীব মনোয়ার, মুহি উদ্দিন, নয়ন আব্দুল্লঅহ, তাইমুম রহমান ইভান, নাইমুল নাইম, হালিমুল হক, সাইফুল মুরাদ, দিবস, মাসুদ খলিফা, জিয়াউল হক, নাসির আহমেদ, আহমেদ শাকিল ও আব্দুল্লাহ আল মামুন প্রমুখরা।

আর পড়তে পারেন