শুক্রবার, ২৪শে মে, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ

কুমিল্লা জিলা স্কুল-২০০০ ব্যাচের কুমিল্লার ইফতার পর্বের প্রাণবন্ত আয়োজন

আজকের কুমিল্লা ডট কম :
এপ্রিল ৯, ২০২৪
news-image

বিশেষ প্রতিবেদন:
কর্মদিবসে কুমিল্লা জিলা স্কুল ২০০০ ব্যাচের ঢাকা পর্বের সফল ইফতার আয়োজনের পর ঈদের একদিন পূর্বে মঙ্গলবার কুমিল্লা নগরীতে আয়োজন করা হল এ ব্যাচের কুমিল্লা পর্বের ইফতার মিলনমেলা। প্রায় ৫০ এর অধিক বন্ধু এই ইফতার মিলনমেলায় অংশগ্রহণ করেছে।

নগরীর একটি রেস্টুরেন্টের টপ ফ্লোরের ছাদে প্রাকৃতিক নয়নাভিরাম পরিবেশে এই ইফতারের আয়োজন করা হয়।

ঢাকা পর্বের ইফতারে অংশগ্রহণ করা অনেক বন্ধুই কুমিল্লার ইফতারেও অংশগ্রহণ করেছেন। এই ইফতার মিলনমেলা এই ব্যাচের বন্ধুদের জন্য বিশেষ কিছু, তা আবার প্রমাণ করলেন অনেক বন্ধু। ক্যাঙ্গারোর দেশ অস্ট্রেলিয়া থেকে গতকাল উড়ে এসেছেন বন্ধু কামাল, দীর্ঘ ভ্রমণের ক্লান্তিকে পাশ কাটিয়ে ইফতার মিলনমেলায় হাজির কামাল। এছাড়া ইফতারের জন্য কুমিল্লায় চলে আসলেন রেসলিং জায়ান্ট বিগ শোর কাবর্ণ কপি বন্ধু আমিন। ছোটবেলার বন্ধুদের মায়া উপভোগ মিস করতে চাননি আমিন। জ্বরে আক্রান্ত অসুস্থ্য শরীর নিয়ে হাজির চিকিৎসক বন্ধু রাব্বি হোসেন।

ইফতারের পূর্বে বিকেলে হই-হুল্লোড় করে ইফতারে আগমন ঘটে সিনা খ্যাত ইবনে সিনার। বিভিন্ন গ্রুপের বিনোদনের অন্যতম খোরাক হিসেবে পরিচিত সিনাকে তাই বন্ধুরা বলে উঠল- ৭২ থেকে শুরু করে ২০০০, ০১, ০২, ০৩ ব্যাচের সিনার আগমন। সাদা সফেদ দাড়ি আর সাদা পান্জাবিতে হাজির হলেন বন্ধু খলিল, ঢাকার মত ডীপ নেভি ব্লু এরাবিয়ান পোষাকে কুমিল্লার ইফতারে হাজির হলেন রাইসুল নাবিল।এবার আর ওযুর পানির নিয়ে দৌড়াদৌড়ির দৃশ্য দেখা যায়নি।বিকাল ৫ টায় বন্ধুদের আগমনে রেস্টুরেন্টের ছাদ পরিপূর্ণ হয়ে উঠে। প্রকৃতি যেন বহুদিন পর মানুষের কলকাকলিতে মেতে উঠে।

মহামান্য পন্ডিত জগন্নাথ খ্যাত মহিবুবুল হক ছোটন সময়ের স্বল্পতার জন্য ঢাকায় তার বক্তব্য দীর্ঘমেয়াদী করার সুযোগ না পেলেও এবারের কুমিল্লার ইফতারে তার ষোলকলা পূর্ণ করেছেন। ইফতার শেষ করেই কফির জন্য জনরোষের মুখোমুখি হন ছোটন স্যার। তাৎক্ষনিকভাবে এক বন্ধুকে ফিটিং দিয়ে সবার জন্য কফির ব্যবস্থা করলেন । এরপরই শুরু করলেন দীর্ঘক্ষণের ভাষণ। কোন কোন বন্ধুকে প্রশংসায় ভাসালেন তো ক্ষণিক পরেই তার বারোটা বাজিয়ে দিলেন।

পন্ডিত ছোটনের ভাষণ আর বন্ধুদের আড্ডাবাজিতে উঠে আসলো নানা কথা। কেউ কেউ জিলাস্কুলে অধ্যয়নরত অবস্থায় কে কি কান্ডের অবতারণা করেছিলেন তা বর্ণনা করলেন নিখুতভাবে। ঈদগাহের সামনে এক বন্ধুর তার প্রেমিকাকে ভালবাসার প্রস্তাব দেয়ার সময় বেরসিক স্যারের আগমণ , পরক্ষণে উত্তম মধ্যমের করুণ কাহিনী বর্ণনা করলেন সার্জেন্ট অপু, সরকার রেফায়েত ফেরদৌসের শাখা ম্যানেজার হিসেবে পদুয়ার বাজার বিশ্বরোডের সোনালী ব্যাংক শাখায় যোগদান, স্বপনের স্বর্ণ ব্যবসার সফলতা কিংবা ভবিষ্যতে হবু কাউন্সিলর হওয়ার দৌড়ে এগিয়ে থাকা, রাইসুল নাবিলের ৮৫ কেজি থেকে ৫৮ কেজি ওজনে ফিরে আসা ও নাবিলের চিরসবুজ ১৮ বছরে স্থায়ী থাকার গোপন রহস্য নিয়ে আলোচনা, মডেল টুটুলসহ ৪ বন্ধুর এখনো অবিবাহিত ব্যাচেলর থাকার রহস্য, শিক্ষক কাজী বেলায়েত উল্লাহ জুয়েলের ডিগ্রী পেয়ে পুতিনের দেশ রাশিয়ায় গমনের সুযোগ, ইভেন্ট ম্যানেজমেন্ট এর আইকন ব্যবসায়ি মাহফুজুল হক মাসুমের পার্লারে সাজুগুজু কোন কিছুই বাদ যায় নি ২০০০ ব্যাচের এই মুক্ত আলোচনায়।কোন কোন বন্ধুর রাশিয়ায় গমনের কথা উঠলে আইটি বিশেষজ্ঞ ও বিজনেস আইকন রাজীব আহমেদ জানিয়ে দিলেন হুশিয়ার বার্তা- “রাশিয়া গেলে বাইডেন আমেরিকায় প্রবেশ করতে দিবে না”। মুরাদনগর ভূমি অফিসে কর্মরত আশিকুর রহমানের স্কুল জীবনের স্মৃতিচারণ হিসেবে পরীক্ষার খাতায় অন্য বন্ধুর ৩ ত্রিকোনমিতি অংক করে দেয়ার গোপন তথ্য পাঁস হল, চাদঁপুরের কচুয়ায় প্রাণি সম্পদ কর্মকর্তা হিসেবে কর্মরত শওকত হোসেন সুমনের বর্তমান শিক্ষা ব্যবস্থা নিয়ে আলোচনা, নাট্য ব্যক্তিত্ব মাজহার সিহাবের বর্তমান রাজনীতিতে চাটুকারিতার বিষয়ে মন্তব্য ছিল চমকপ্রদ।

আবার এ ব্যাচের বন্ধুদের নিয়ে সুন্দরবন সফর, সেন্টমার্টিন ট্যুরে মাহতাব আলভিনের বিশেষ অফারের কথাও আসলো আলোচনায়। প্রশংসা, সমালোচনা আর অনেক দুষ্টামিতে ভরপুর ছিল আজকের আড্ডা।

পুরো মিলনমেলায় আলোকচিত্রীর ভূমিকায় ছিলেন পন্ডিত ছোটন, ১৮ বছরের চিরতরুণ রাইসুল নাবিল, ফারহান আহমেদ অনি, অপু, বশির পাটোয়ারি, কখনো কখনো সাইফুল।

ইফতার মিলনমেলায় ভিডিও ব্লগিংয়ে ব্যস্ত ছিলেন ফারহান আহমেদ অনি। প্রায় অনেকের ভিডিও বক্তব্য নিলেন। আবার অনেকে মাঝে মাঝে অনিকে নার্ভাস করে দিলেন। অনিও সেই ছেলে মানুষের মত ভিডিও কেটে পুনরায় বার বার করলেন। সুযোগ পেয়ে বশিরুল আলম পাটোয়ারি এসে অনির ব্লগে গরুর মাংস ও ছাগলের মাংসের বিক্রির প্রচারণা করে গেলেন। এভাবে সময় কেটে গেল অনেক দূর।

এই ইফতার মাহফিলে উপস্থিত থেকে চাকুরেজীবি উজ্বল, রাজনীতিবিদ আব্দুল্লাহ আল মামুন, আ ক ম নাছির ভূইয়া, ব্যাংকার আবু সাঈদ মামুন, চিকিৎসক আসাদুজ্জামান আকন্দ জনি,  চিকিৎসক খন্দকার আবু সাঈদ, আহমেদ সাকিল, আসিফ তানভীর , প্রকৌশলী মোদাসসির হোসেন, ফয়েজ আহমেদ, শাহানুর হোসেন রাসেল, মোস্তফা মাহমুদ বাপ্পি, অনিক, রোমন, রাকিবুল ইসলাম সজীব, ব্যবসায়ি সজীব রায়, শাহাদাত হোসেন আইটিপি, অনিক, ডা: সাইদুল হক, সাইফুল্লাহ আল মামুন, তুহিন টিপুসহ আরো অনেকে এ আয়োজনকে প্রাণবন্ত করেছেন।

এ আয়োজনে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করেছেন ছোটন, সাইফুলসহ আরো অনেকে।

আর পড়তে পারেন