বুধবার, ২৯শে জুন, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ

চাঁদপুরে আদালতের নিষেধাজ্ঞা অমান্য করে সম্পত্তি দখলের চেষ্টার অভিযোগ

আজকের কুমিল্লা ডট কম :
জুন ২০, ২০২২
news-image

 

চাঁদপুর প্রতিনিধিঃ

চাঁদপুর সদর উপজেলার ৪নং শাহমাহমুদপুর ইউনিয়নের ৯নং ওয়ার্ড বিমলেরগাঁও এ বিবাদমান জমির উপর আদালতের নিষেধাজ্ঞা অমান্য করে সম্পত্তি দখলের চেষ্টার অভিযোগ উঠেছে।

অভিযোগ সূত্রে জানা যায়, শাহমাহমুদপুর ইউনিয়নের বিমলেরগাঁও বৈদ্য বাড়ির মৃত অলি উল্যা বৈদ্যের একমাত্র বোন আয়াতুন্নেছা বেগম বিভিন্ন অংশে ৫৮ শতাংশ জমি পৈত্রিক সম্পত্তি মূলে ওয়ারিশ পান। উক্ত সম্পত্তির মধ্যে আয়াতুন্নেছা জীবিত থাকাবস্থায় পাওয়ার মূলে তার নাতি চাঁদপুর সদর উপজেলার তরপুরচন্ডী গ্রামের মৃত সাখাওয়াত হোসেন মিজি ৫৩ শতাংশ জমি তার একমাত্র ভাই অলি উল্যাহ বৈদ্যের কাছে বিক্রি করে দেন। বাকী ৫ শতাংশ জমি মাসুদ মিজির শ্যালক মতলব দক্ষিণ উপজেলার ৬নং উপাদী দক্ষিণ ইউনিয়নের পিংড়া গ্রামের মোঃ দলিল উদ্দিন কাজীর ছেলে মোঃ জামাল কাজীর কাছে বিক্রি করেন। ক্রয় সূত্রে মোঃ জামাল কাজী উক্ত ৫ শতাংশ জমি সড়কের পাশ জুড়ে দখল করতে আসলে মৃত অলি উল্যাহ বৈদ্যের ছেলে দেলোয়ার হোসেন বৈদ্যসহ অন্যান্যরা বাঁধা দেন। এবং আদালতে মামলা করলে চাঁদপুর বিজ্ঞ অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট চাঁদপুর সদর উপজেলা সহকারী ভূমি কমিশনার ও সদর মডেল থানাকে তদন্তের দায়িত্ব দেন।

উভয় পক্ষকে বিজ্ঞ অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট এর আদালতের গত ৮ জুন তারিখে ১৮৫৬ (৪) নং স্মারকাদেশ মতে বিমলেরগাঁও মৌজার ৬৪নং জে.এল, ৬নং খতিয়ান, ৩০৬ নং দাগে ০.০৮৭৬ নালিশীয় ভূমি ১৯ জুন তারিখে উপজেলা ভূমি অফিসের সার্ভেয়ার আর্য্যনন্দ তঞ্চঙ্গ্যা সরেজমিনে তদন্ত করার কথা থাকলেও তদন্তকালে নালিশীয় জমির মালিকানা সংক্রান্ত কাগজপত্রসহ উভয়পক্ষকে উপস্থিত থেকে তদন্তকাজে সহযোগিতা করার জন্য বলা হয়। এবং চাঁদপুর সদর মডেল থানার পুলিশ পরিদর্শক মোঃ লোকমান হোসেনও আদালতের দরখাস্ত মামলা নং- ৬৭২/২২ এর আরজির বর্ণিত নালিশী ভূমিতে অস্থায়ী স্থিতাবস্থা সহ শান্তি শৃংখলা বজায় রাখার জন্য উভয় পক্ষকে নোটিশ দায়ের করেন। নোটিশ সূত্রে জানা যায়, উক্ত সম্পত্তির চৌহদ্দি- উত্তরে অলি উল্যাহ গং, দক্ষিণে আয়েশা বেগম, পূর্বে সরকারী রাস্তা ও পশ্চিমে জালাল বেপারী গং। অত্র চৌহদ্দির মধ্যে প্রার্থীপক্ষের নালিশী মোঃ. ০৮৭৬ একর ভরাট ভূমি অবস্থিত।

কিন্তু নির্দিষ্ট তারিখ অনুযায়ী রবিবার (১৯ জুন) উক্ত মামলার তদন্তে উপজেলা ভূমি অফিসের সার্ভেয়ার আর্য্যনন্দ তঞ্চঙ্গ্যা আসার আগেই জামাল কাজী গংরা সংশ্লিষ্ট সম্পত্তিতে সাইনবোর্ড লাগাতে আসেন এবং বাদী দেলোয়ার হোসেন এর তৈরিকৃত ঘর দখল করার চেষ্টা করেন। এ নিয়ে উভয় পক্ষের মাঝে তৈরি হয় হট্টগোল। এসময় এলাকাবাসীও উপস্থিত ছিলেন। অথচ তদন্ত শেষ না হওয়ার আগ পর্যন্ত কোন রকম ঝামেলা করতে পারবে না বলে জানিয়েছেন চাঁদপুর বিজ্ঞ অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট। মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা চাঁদপুর সদর মডেল থানার এসআই মোঃ লোকমান হোসেন বলেন, উভয় পক্ষকে শান্তি-শৃঙ্খলা রক্ষার্থে নিজ নিজ স্থানে থাকার নির্দেশ দিয়েছে। তবে আজকে যে ঝামেলা হয়েছে তা আমার জানা নেই।

আর পড়তে পারেন