বৃহস্পতিবার, ২২শে ফেব্রুয়ারি, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ

চান্দিনায় এবার বাড়ি বাড়ি গিয়ে ঈগলের ৫ সমর্থককে কুপিয়ে আহত করছে নৌকার সমর্থকরা

আজকের কুমিল্লা ডট কম :
জানুয়ারি ৫, ২০২৪
news-image

স্টাফ রিপোর্টার :

কুমিল্লার চান্দিনা এখন আতংকের জনপদ। স্বতন্ত্র প্রার্থী প্রতীক পাওয়ার পর থেকে এখানে প্রতিদিন হামলা, অগ্নিসংযোগ, মামলার ঘটনা ঘটছে। আতংকের জনপদে পরিণত হয়েছে পুরো উপজেলাটি। এত কিছুর পরও প্রশাসনের নির্বিকার থাকার বিষয়টি জনমনে নানা প্রশ্নের জন্ম দিয়েছে। এমনি অভিযোগ স্থানীয় জনগণ ও রাজনীতিবিদদের।

ঈগল প্রতীকের সমর্থিত নেতা কর্মীরা জানান, কুমিল্লা -৭ (চান্দিনা) নির্বাচনী আসনে প্রচারণায় দফার দফায় হামলার পর এবার বাড়ি বাড়ি গিয়ে স্বতন্ত্র প্রার্থী মুনতাকিম আশরাফ টিটুর ঈগল সমর্থকদের কুপিয়ে জখম করেছে আওয়ামী লীগ সমর্থিত প্রার্থী অধ্যাপক ডা. প্রান গোপাল দত্তের নৌকার সমর্থকরা।

শুক্রবার (৫ জানুয়ারি) রাত ৮ টায় উপজেলার মাইজখার ইউনিয়নের ভোমরকান্দি গ্রামে গিয়ে নৌকার ১৫-২০ জনের সশস্ত্র নেতাকর্মী ফারুক আহমেদ লিটন প্রধান ও তার পিতা ফখরুল ইসলাম কুপিয়ে জখম করেছে। লিটন ওই ইউনিয়ন যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক ও স্বতন্ত্র প্রার্থী টিটুর সমর্থক। মারাত্মক আহত অবস্থায় স্থানীয়রা লিটন ও তার পিতাকে চান্দিনা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করিয়েছেন।

এদিকে বৃহস্পতিবার (৪ জানুয়ারি) রাতে পৌরসভার ২নং ওয়ার্ডের হারং গ্রামের সরকার বাড়িতে ইশার নামাজ আদায় শেষে ঘরে ঢুকার সময় দরজার সামনে জাকির হোসেন সরকার ও তার দুই সহযোগীকে কুপিয়েছে নৌকা সমর্থকরা। জাকির চান্দিনা পৌর যুবলীগ এর সভাপতি।

আহত অপর দুইজন হলেন পৌর যুবলীগ সাংগঠনিক সম্পাদক দেলোয়ার হোসেন ও যুবলীগ নেতা আবুল বাশার। আহত সবাই স্বতন্ত্র প্রার্থীর সমর্থক। তারা চান্দিনা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসাধীন রয়েছেন।

আহত জাকির হোসেন সরকার জানান, ঈগল প্রতীকের প্রচারণা শেষে আমরা বাড়ির পাশের মসজিদে ইশার নামাজ আদায় করে বাড়িতে ফিরছিলাম। আমার ঘরের দরজার সামনে পৌঁছা মাত্রই প্রান গোপাল দত্তের নৌকা প্রতীকের সমর্থক আবু মুছা জনি তার ভাই রনি সহ ১০-১৫ জন আমাদের উপর অতর্কিত হামলা চালায়। তারা এলোপাতাড়ি কুপিয়ে পালিয়ে যায়।

অপরদিকে বৃহস্পতিবার দুপুরে উপজেলার হোসেনপুর ও বিকেলে কালিয়ারচর এলাকায় আরও দুইটি হামলার ঘটনা ঘটে। পৃথক হামলায় ৩ জন সাংবাদিক ও ১৪ জন ঈগল সমর্থক আহত হয়। ডা. প্রান গোপাল দত্তের উপস্থিতিতে এই দুইটি হামলার ঘটনা ঘটে।

এ বিষয়ে জানতে চান্দিনা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা সনজুর মোরশেদের মুঠোফোনে কল দিলে তিনি কল রিসিভ করেন নি।

আর পড়তে পারেন