শুক্রবার, ২১শে জুন, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ

ছাত্রছাত্রীদের পরিশ্রম করেই জীবনে উন্নতি করতে হবে, স্বপ্ন দেখতে হবে- পরিকল্পনামন্ত্রী

আজকের কুমিল্লা ডট কম :
মার্চ ১৭, ২০১৮
news-image

 

স্টাফ রিপোর্টারঃ
পরিকল্পনামন্ত্রী ও কুমিল্লা-১০ আসনের এমপি আ হ ম মুস্তফা কামাল লোটাস কামাল বলেছেন, ছাত্রছাত্রীদের বাবা মাকে সম্মান দিতে হবে। পরিশ্রম ছাড়া জীবনে উন্নতি করা যায় না। আমার জীবনও কণ্টকিত ছিল। পরিশ্রম করে স্বপ্ন নিয়েই এ পর্যন্ত এসেছি। জীবনে কখনও মিথ্যা কথা বলিনি। ছাত্রছাত্রীদের পরিশ্রম করেই জীবনে উন্নতি করতে হবে, স্বপ্ন দেখতে হবে।

কুমিল্লার লালমাই উপজেলার হাজতখোলা হাইস্কুলের গৌরবের ৫০ বছর পূর্তি উপলক্ষে আয়োজিত অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ সব কথা বলেন।

শনিবার সকাল ১০ টায় সুবর্ণজয়ন্তী উদযাপন কমিটির আহ্বায়ক ভুলইন উত্তর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আবদুর রহিমের সভাপতিত্বে আলোচনা সভা শুরু হয়। এতে প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন পরিকল্পনামন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামাল। বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন কুমিল্লা জেলা প্রশাসক মো. আবুল ফজল মীর, লালমাই উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) এ কে এম ইয়াসির আরাফাত, ভাষাসৈনিক মুক্তিযোদ্ধা মো. তাজুল ইসলাম শিকারপুরি, উৎসবের সদস্য সচিব ও কুমিল্লা শিক্ষাবোর্ডের কলেজ পরিদর্শক প্রফেসর মো. জামাল নাছের ও হাজতখোলা উচ্চবিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মো. আবদুল মান্নান। এর আগে আনন্দ র‌্যালীর মধ্য দিয়ে এ অনুষ্ঠান শুরু হয়। অনুষ্ঠানে ৮ জন মেধাবী শিক্ষার্থীকে সম্মাননা দেওয়া হয়।

এ বিদ্যালয় থেকে ১৯৭৯ সালে এসএসসি পাস করা কুমিল্লা শিক্ষাবোর্ডের কলেজ পরিদর্শক প্রফেসর মো. জামাল নাছের। তিনি বলেন, ‘আমাদের ১১ ভাইবোনের মধ্যে নয়জনই এ বিদ্যালয়ে ছাত্রছাত্রী ছিল। সুবর্ণজয়ন্তী অনুষ্ঠানে নবীনপ্রবীণ সবাইকে এক সঙ্গে দেখে ভাল লেগেছে।’

৯৪ ব্যাচের ছাত্র মোহাম্মদ আলী কুমিল্লা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের এনেসথেসিয়া বিভাগের ডাক্তার। একই ব্যাচের ছাত্র ওমর ফারুক সুমন ভুলইন উত্তর ইউনিয়ন পরিষদের সাবেক চেয়ারম্যান। তাঁরা বলেন, ‘দীর্ঘদিন পর স্কুলে এসে ভাল লেগেছে।’ ১৯৬৮ সালে এ বিদ্যালয় প্রতিষ্ঠা হয়।
পরে এক মনোজ্ঞ সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের মধ্য দিয়ে সুবর্ণজয়ন্তী উৎসব শেষ হয়।

আর পড়তে পারেন