বৃহস্পতিবার, ২২শে ফেব্রুয়ারি, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ

দেবিদ্বারে আইনশৃংখলা পরিস্থিতির চরম অবনতি, রাজনৈতিক হামলা-মারধর অবাধে চলছে

আজকের কুমিল্লা ডট কম :
জানুয়ারি ২৫, ২০২৪
news-image

 

স্টাফ রিপোর্টার:

কুমিল্লার দেবিদ্বারে নির্বাচনের পরদিন থেকে  অবাধে  হামলা-ভাংচুর, মারধর  চলছে। ফলে আইনশৃংখলা পরিস্থিতির চরম অবনতি হয়েছে এ উপজেলায়। এ আসনে নৌকা প্রতিকের প্রার্থী রাজী মোহাম্মদ ফখরুল পরাজিত হওয়ার পর তার নেতাকর্মীদের উপর অত্যাচারের স্টিম রোলার চালানো হচ্ছে। প্রশাসনের রহস্যজনক নিরবতার জন্যই এসব হামলা-মারধর অব্যাহত রয়েছে বলে নৌকা প্রতিকের নেতাকর্মীরা জানান।

৮ জানুয়ারি থেকে অদ্যাবধি নৌকা সমর্থিত নেতাকর্মী ও সমর্থকদের উপর প্রায় শতাধিক হামলা-মারধরের ঘটনা ঘটেছে। বর্তমান এমপি আজাদের লোকজন এসব ঘটনায় জড়িত বলে জানা গেছে।

স্থানীয় সূত্র জানায়, ২৩ জানুয়ারি ভোরে ফজরের নামাজ আদায় করতে যাওয়ার সময়  রাজামেহার ইউনিয়ন যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক মোফাজ্জল হোসেন মানিককে বর্তমান সাংসদ আবুল কালাম আজাদের লোকজন  অতর্কিতভাবে হামলা করে  কুপিয়ে আহত করে। এ সময় সন্ত্রাসীরা বলে যায় আর করবিনি নৌকা । মানিক এখন জীবন মৃত্যুর সন্ধিক্ষণে রয়েছে।

২৩ জানুয়ারি সন্ধ্যায় রসুলপুর ইউনিয়নের আব্দুল্লাহপুর গ্রামের ইউনিয়ন স্বেচ্ছাসেবকলীগের সাবেক সভাপতি মো: ইউনুস বাহাদুরকে মারধর করে রক্তাক্ত আহত করা হয়। প্রথমে তাকে দেবিদ্বার স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নেওয়া হয়। পরে উন্নত চিকিৎসার জন্য কুমিল্লা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়।

এর আগে শনিবার সন্ধ্যায় উপজেলার নিউমার্কেট এলাকায় উপজেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগের সেক্রেটারি সাদ্দাম হোসেনের ব্যবসায়িক প্রতিষ্ঠান ও রাজনৈতিক কার্যালয়ের দরজা ভেঙ্গে প্রবেশ করে ব্যাপক ভাংচুর ও লুটপাট করে। এ সময় ল্যাপটপ, মোবাইল, নগদ টাকাসহ অনেক জিনিসপত্র নিয়ে যায়।

ফতেহাবাদ ইউনিয়নের সাইচাপাড়া গ্রামের আবুল হোসেনের ছেলে মোঃ আনিল নৌকার পক্ষে কাজ করায় শনিবার তাকে মারধর করে। সে প্রাথমিক চিকিৎসা নিয়ে এলাকা ছেড়ে চলে গেছে। একই দিন ফতেহাবাদ ইউনিয়নের নুরপুর গ্রামের জৈনুদ্দিন বাড়ির মোহাম্মদ ইউনুস মিয়া, ছাড়া বাড়ির মোঃ রফিক ও দুয়াগাজীর বাড়ির মোহাম্মদ খোরশেদকে বাড়ি থেকে তুলে নিয়ে যায় ঈগলের সমর্থকরা।

এছাড়া মিথ্যা মামলা মামলা দিয়ে আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীদের হয়রানীর অভিযোগ উঠেছে বিজয়ী স্বতন্ত্র প্রার্থী আবুল কালাম আজাদ ও তার সমর্থকদের বিরুদ্ধে। নির্বাচনের দিন বিকেলে খলিলপুর গ্রামের জসিম উদ্দিন নামে এক ব্যক্তির খড়ের স্তুপ পুড়ানো, গালিগালাজ ও হুমকির অভিযোগে কুমিল্লা উত্তর জেলা ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি আবু কাউছার অনিক সহ ৭৪ জনের বিরুদ্ধে একটি মামলা দায়ের করা হয়৷ যাদের সবাই আওয়ামী লীগের অঙ্গ ও সহযোগী সংগঠনের নেতাকর্মী সহ ৪ ইউপি সদস্য।

কুমিল্লা উত্তর জেলা স্বেচ্ছাসেবকলীগের সাধারণ সম্পাদক লিটন সরকার জানান, বর্তমান সরকার আওয়ামী লীগের। অথচ প্রতিদিন নৌকার লোকদের মারধর করে রক্তাক্ত করা হচ্ছে। যা খুবই লজ্জাকর।

এ বিষয়ে জানতে দেবিদ্বার থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) নয়ন মিয়ার মুঠোফোনে কল দিলে তিনি কল রিসিভ করেন নি।

 

আর পড়তে পারেন