শুক্রবার, ২১শে জুন, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ

দেবিদ্বার পৌর নির্বাচন:উপজেলা চেয়ারম্যান ও দুই স্বতন্ত্র প্রার্থীর বিরুদ্ধে নানা অভিযোগ

আজকের কুমিল্লা ডট কম :
জুলাই ১৫, ২০২৩
news-image

 

স্টাফ রিপোর্টার:

কুমিল্লার দেবিদ্বার পৌরসভা নির্বাচনে ক্যারামবোর্ড ও নারকেল গাছ প্রতীকের প্রার্থীর বিরুদ্ধে টাকা দিয়ে ভোট কেনা, নির্বাচনী বিধি নিষেধ লঙ্ঘন, নৌকা প্রতিকের প্রার্থীকে প্রচারণায় বাধা, ভোটারদের হুমকি ও হয়রানির অভিযোগ এনে আইনত প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়ার জন্য কুমিল্লা জেলা প্রশাসক, পুলিশ সুপার ও জেলা নির্বাচন কর্মকর্তার কাছে লিখিত আবেদন করেছেন নৌকা প্রতিকের প্রার্থী মোঃ সাইফুল ইসলাম।এছাড়া উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান ও কুমিল্লা উত্তর জেলা আওয়ামীলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক আবুল কালাম আজাদের বিরুদ্ধেও অভিযোগ এনেছেন নৌকার প্রার্থী সাইফুল ইসলাম।

লিখিত অভিযোগে মো: সাইফুল ইসলাম উল্লেখ করেন, পৌরসভার ২নং ওয়ার্ডের ভিংলাবাড়ী গ্রামে বৃহস্পতিবার রাত ১ টার সময় ক্যারামবোর্ড প্রতিকের প্রার্থী এম কাইয়ুম ভূইয়া নিজে তার লোকবল নিয়ে নৌকা প্রতিকের অফিস বন্ধ করে দেয়।এম কাইয়ুম ভূইয়া গ্রামের সাধারণ ভোটারদেরকে টাকার বিনিময়ে ভোট দেওয়ার জন্য টাকা বিলি করার সময় সরাসরি নৌকা মার্কার সমর্থকদের নজরে আসলে নৌকার সমর্থক এবং ক্যারামবোর্ড প্রার্থীর সাথে কথা কাটাকাটি হলে এক পর্যায়ে ক্যারামবোর্ড প্রতীকের প্রার্থীর লোকজন নৌকা প্রতীকের সমর্থকদেরকে মারধর করে আহত করে। এছাড়াও যে সমস্ত সাধারণ ভোটাররা ক্যারামবোর্ড প্রার্থীর টাকা নেয়নি এবং ভোট দিবে বলে আশ্বস্ত করেনি তাদের প্রাণনাশের হুমকি দিয়ে এলাকায় ভীত সন্তস্ত্র পরিবেশ তৈরী করেছে। ক্যারামবোর্ড প্রতিকের প্রার্থী নিজেই নৌকা প্রতিকের বিভিন্ন কর্মীকে প্রচারণার কাজ বন্ধ করে দেয়।

এদিকে ৯ নং ওয়ার্ডের বারেরা গ্রামে শুক্রবার ভোররাত ৩ টার সময় নারকেল গাছ প্রতিকের প্রার্থী আবুল কাশেম চেয়ারম্যান নিজে তার লোকবল নিয়ে গ্রামের সাধারণ ভোটারদেরকে টাকার বিনিময়ে ভোট দেওয়ার জন্য টাকা বিলি করার সময় নৌকা মার্কার সমর্থকরা প্রতিবাদ করলে নারকেল গাছ প্রার্থীর লোকজন নৌকা মার্কার সমর্থকদেরকে মারধর আহত করে। এছাড়াও যে সমস্ত সাধারণ ভোটাররা নারকেল গাছ প্রার্থীর টাকা নেয়নি এবং ভোট দিবে বলে আশ্বস্থ করেনি তাদের প্রাণনাশের হুমকি দিয়া এলাকায় ভীত সন্তস্ত্র পরিবেশ তৈরী করেছে। নারকেল গাছ মার্কার প্রার্থী নিজে মোবাইল ফোনের মাধ্যমে নৌকা মার্কার বিভিন্ন কর্মীকে তার বাসভবনে ডেকে নিয়ে নারকেল গাছ প্রতিকের পক্ষে কাজ করার জন্য বিভিন্ন অসৎ উপায় অবলম্বন করার চেষ্টা করছে।

এছাড়া গতকাল সংবাদ সম্মেলন করে নৌকা প্রতিকের প্রার্থী মোঃ সাইফুল ইসলাম অভিযোগ করেন যে, দেবিদ্বার উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান আবুল কালাম আজাদ ও তার অনুসারীগন নৌকাকে ভরাডুবি করার জন্য অনেক চক্রান্ত ও ষড়যন্ত্রে লিপ্ত রয়েছে। নৌকার বিপক্ষে কাজ করার সময় আমরা তাকে হাতেনাতে ধরেছি । দিনের আলোতে মুখে নৌকার কথা বলে রাতের আধারে নৌকাকে হারিয়ে স্বতন্ত্র প্রতিকের প্রার্থীকে বিজয়ী করার জন্য অর্থনৈতিক সহযোগিতা থেকে শুরু করে ইলেকশন ম্যাকানিজম করছে বলে তৃনমূল হতে আমাদের সচেতন কর্মী সমর্থক অবগত করছেন,যা আমাদের বাংলাদেশ আওয়ামীলীগ ও সহযোগী সংগঠনের প্রতিটা কর্মীর হৃদয়ে রক্তক্ষরন হচ্ছে।

এই বিষয়ে জানতে আবুল কালাম আজাদের মুঠোফোনে কল দিলে সংযোগ পাওয়া যায়নি।

জেলা নির্বাচন কর্মকর্তা মোহাম্মদ মুঞ্জুরুল আলম জানান, আমাদের কাছে অভিযোগ আসার পর আমরা প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিচ্ছি। আচরণ বিধি যেই লঙ্ঘণ করবে আমরা তার বিরুদ্ধে আইনত ব্যবস্থা নিবো।

আর পড়তে পারেন