শুক্রবার, ১লা মার্চ, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ

নাঙ্গলকোট কমিউনিটি সেন্টার এখন প্রায় পরিত্যক্ত,সরকারের ৫ কোটি টাকা গচ্চা

আজকের কুমিল্লা ডট কম :
নভেম্বর ৩, ২০১৭
news-image

 

মো: কামাল হোসেন জনি, নাঙ্গলকোট:
দীর্ঘ দিন ধরে নানা অবহেলায়-অযতেœ পড়ে রয়েছে কোটি টাকা ব্যয়ে নির্মিত কুমিল্লার নাঙ্গলকোট উপজেলার অডিটরিয়াম কাম কমিউনিটি সেন্টার। যা এটি এখন ভূতের বাড়িতে পরিণত হয়েছে। উপজেলার ১৬ টি ইউনিয়ন ও একটি পৌরসভার প্রায় ৫ লাখ মানুষের আনন্দ বিনোদন সহ বিভিন্ন সামাজিক অনুষ্ঠান পরিচালনার জন্য ১৮ মার্চ ২০০৬ সালে সাবেক সংসদ সদস্য আব্দুল গফুর ভূইয়া এ কমিউনিটি সেন্টারের ভিত্তি প্রস্তর স্থাপন করেন। শুভ উদ্বোধনের পর থেকে প্রায় ৩ বছর ওই কমিউনিটি সেন্টারটি ভাল ভাবেই চলছিল। পরে ধীরে ধীরে বন্ধ হয়ে যায় এর সকল কার্যক্রম। ৫ কোটি টাকা ব্যায়ে নির্মিত এ কমিউনিটি সেন্টারটি বর্তমানে পরিত্যক্ত অবস্থায় পড়ে আছে।


সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায়, উপজেলার ভেতরে হেলিপ্যাড মাঠের পূর্ব পার্শ্বে প্রশাসনের নাকের ডগায় দ্বিতল বিশিষ্ট ভবনের সাথে সংযুক্ত সেমি-পাকা এ কমিউনিটি সেন্টারটি। সেন্টারের দরজা-জানালা, বারান্দার লোহার গ্রিল গুলো চুরি হয়ে গেছে। ভবনের সিলিং ভেঙ্গে ধসে পড়ছে। এছাড়াও শৌচাগারের ব্যবহৃত জিনিস অকেজো এবং চুরি হয়ে গেছে। ভেতরে রাখা হয়েছে ডেকোরেটরের বাঁশ ও অন্যান্য আসবাব পত্র। আবার মাঝে মধ্যে গরু-ছাগল বেঁধে রাখতেও দেখা যায়।


এ বিষয়ে স্থানীয় মো: জহিরুল ইসলাম জানান, দীর্ঘদিন ধরে কমিউনিটি সেন্টারটি বন্ধ থাকায় বিবাহ কিংবা সামাজিক কোন অনুষ্ঠান করা সম্ভব হচ্ছেনা। তাই বর্তমান যুব সমাজকে মাদকাসক্ত হতে বিরত রাখতে রুচিশীল সামাজিক সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান পরিচালনা জন্য এ কমিউনিটি সেন্টারটি দ্রুত সংস্কার করা প্রয়োজন।
এ ব্যাপারে পৌর মেয়র আব্দুল মালেক জানান, ২০০৭ সাল থেকে প্রায় তিন বছর দায়িত্বে থাকা কালীন সময়ে তিনি এ কমিউনিটি সেন্টারটিকে ভালো ভাবে পরিচালনা করেন এবং বিভিন্ন সামাজিক-সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান গুলোও পরিচালনা করার জন্যও এলাকার মানুষকে উদ্বোধন করেন। তিনি দায়িত্ব ছাড়ার পর এটি ধীরে ধীরে বন্ধ হয়ে যায়। বর্তমানে এটি পরিত্যক্ত অবস্থায় পড়ে আছে।
এ বিষয়ে উপজেলা নির্বাহী অফিসার দাউদ হোসেন চৌধুরী জানান, আমাদের কিছু করার নেই, এটি জেলা পরিষদের বিষয়।
এ ব্যাপারে কুমিল্লা জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান রিয়াল অ্যাডমিরাল (অব.) আবু তাহের জানান, কাগজপত্র মন্ত্রনালয়ে পাঠানো হয়েছে, আশা করি অচিরেই সংস্কারের কাজ হবে।

আর পড়তে পারেন