মঙ্গলবার, ২৩শে এপ্রিল, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ

বরুড়ায় হত্যার জের ধরে লুট ও ভাঙচুর, প্রায় ২০ লক্ষ টাকার ক্ষয়ক্ষতি

আজকের কুমিল্লা ডট কম :
আগস্ট ১০, ২০২১
news-image

এমডি.আজিজুর রহমান,বরুড়াঃ

কুমিল্লার বরুড়ায় রোজিনা হত্যার প্রতিশোধ নিতে বাদীর বিরুদ্ধে আসামীদের বসত বাড়িতে ব্যাপক হামলা ও ভাংচুর চালিয়ে প্রায় ২০ লক্ষ টাকার ক্ষয়ক্ষতির অভিযোগ পাওয়া গেছে।

গত শুক্রবার দিবাগত রাতে বরুড়ার ছোত্তাপুকুরিয়া গ্রামে এ ঘটনা ঘটে।

জানা গেছে, বরুড়া উপজেলার ভাউকসার ইউনিয়নের ছোত্তাপুকুরিয়া গ্রামের সোহেলের স্ত্রী রোজিনা বেগমকে নিজ বাড়ির সামনে গত বুধবার (৪ আগস্ট) রাতে দুর্বৃত্তরা পিটিয়ে গুরুতর অাহত করে। আহত অবস্থায় স্বামী সোহেল ঘটনাস্থল থেকে রোজিনাকে উদ্ধার করে কুমিল্লা মেডিকেল কলেজে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক ঢাকায় রেফার করে। পরে সে চিকিৎসা অবস্থায় বৃহস্পতিবারে মারা যায়।

এ ঘটনাকে কেন্দ্র করে নিহত রোজিনার মা জাহানারা বেগম বাদী হয়ে গত ৫ আগস্ট বরুড়া থানায় একটি হত্যা চেষ্টা মামলা দায়ের করেন। মামলা নং- ৪।

মালার দিন রাতেই দলবল নিয়ে দুই আসামীর বাড়িতে ব্যাপক ভাংচুর চালিয়ে ঘটনাস্থল থেকে পালিয়ে যায়। পরেরদিন সকালে মালামাল লুট করে নিয়ে যায়। পরে আসামীরা ৯৯৯ নাইনে ফোন করলে পুলিশের এসঅাই উত্তম -২ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন।

হামলায় ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতির স্বীকার ছোত্তাপুকুরিয়া গ্রামের মৃত-রহমত আলীর ছেলে মো. মফিজুল ইসলাম (৬২), আলমগীর হোসেন (৪৫)। আসামী ছাড়াও নিরপরাধ জাহাঙ্গীর আলমের বসত ঘরটিও হামলার স্বীকার হয়।

এ ব্যাপারে মফিজুল ইসলামের ছেলে রাসেল জানান, আমি ঘটনার পূর্বে ঢাকায় কর্মরত ছিলাম। আমার বয়জষ্ট বাবা মফিজুল ইসলাম ও চাচা আলমগীরকে উক্ত মামলায় ষড়যন্ত্র করে জড়ানো হয়েছে। ঘটনার সময় আমার বাবা বাড়িতে ছিলেন না। তিনি বাজার সদায়ের জন্য মার্কেটে গিয়েছিলেন।

এ ব্যাপারে মামলার বাদী জাহানারা বেগমের মুঠোফোনে একাধিকবার যোগাযোগ করেও পাওয়া যায়নি।

এ ব্যাপারে ভাউকসার ইউপি চেয়ারম্যান সৈয়দ মাশরুল হক জানান, কেউ অপরাধী হলে সেটা আদালত বিচার করবে। এভাবে আসামীর বাড়িতে হামলা করে ভাংচুর চালানোটা জগন্য। তিনি হামলার সত্যতা নিশ্চিত করেন।

এ বিষয়ে বরুড়া থানা অফিসার ইনচার্জ ইকবাল বাহার মজুমদার জানান, ৯৯৯ নাইনের ফোন কলে আমাদের একজন অফিসার ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন। তবে, এ বিষয়ে লিখিত অভিযোগ পায়নি।

আর পড়তে পারেন