বুধবার, ২২শে মে, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ

বরুড়ায় ১৯ বছর পর ৩টি ইউনিয়নের সীমানা নির্ধারন মামলা খারিজ করে দিয়েছে সুপ্রিমকোটের আপিল বিভাগ

আজকের কুমিল্লা ডট কম :
নভেম্বর ৬, ২০১৭
news-image

স্টাফ রিপোর্টার: একই নির্বাচন দিয়ে ১৯ বছর পার, কুমিল্লার বরুড়া উপজেলার শিলমুড়ি (উঃ) শিলমুড়ি (দঃ) ও খোশবাস (দঃ) তিনটি ইউনিয়নের নিবার্চন ১৯৯৭ইং সালে অনুষ্ঠিত হয়।
এ নির্বাচন অনুষ্ঠিত হওয়ার পর হঠাৎ করে ৪টি ইউনিয়নের সীমানা নির্ধারন ও নাম পরির্তন করা হয়। ইউনিয়নগুলী হচ্ছে গালিমপুর, শিলমুড়ি (উঃ) শিলমুড়ি (দঃ) ও খোশবাস (দঃ)।

এদিকে গালিমপুর ইউনিয়নকে ভেঙ্গে ভাউকসার ইউনিয়ন. শিলমুড়ি (উঃ) ইউনিয়কে ভেঙ্গে কিছু অংশ নিয়ে আমড়াতলী ইউনিয়ন, খোশবাস (দঃ) ইউনিয়নকে ভেঙ্গে মহেশপুর ইউনিয়ন গঠন করা হয়। এ সিদ্ধান্তের বিরুদ্ধে ইউনিয়নগুলীর চেয়ারম্যানরা হাইকোর্টে মামলা দায়ের করেন।
এর মধ্যে গালিমপুর ইউনিয়নের তৎকালীন চেয়ারম্যান সৈয়দ রফিউল হক রফি মামলটি উড্ড করেন।

এদিকে মামলাটি কিছুদিন পূর্বে হাইকোর্টে রায় হলে তিনটি ইউনিয়নের বাদীরা সুপ্রিমকোর্টের আপিল বিভাগের এক নম্বর কোর্টে আপিল করে। গতকাল ৬ অক্টোর সোমবার সুপ্রিমকোর্ট মামলাটি খারিজ করে দেয়। আপিল বিভাগের প্রধান বিচারপতি (ভারপ্রাপ্ত) ব্রেঞ্চে এ রায় করা হয়। ইউনিয়নগুলিতে নিবার্চন না হওয়ার জন্য চেয়ারম্যানরা মামলটিকে ঘুড়াতে থাকে। এদিকে বরুড়া উপজেলার ১২টি ইউনিয়নের ৩ বার ইউপি নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়। এ মামলার রায় না হওয়ার কারনে দীর্ঘ ১৯ বছর উক্ত ইউনিয়নগুলোতে নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়নি।

নির্বাচন না হওয়ার কারনে ইউনিয়নগুলির চেয়ারম্যানরা নিজেদের মনমত কাজ কর্ম চালিয়ে যায়। এতে করে ইউনিয়নগুলির উন্নয়নমূলক কাজ তেমন ভাবে চোখে পড়ছে না। উক্ত ইউনিয়নগুলির নির্বাচিত চেয়ারম্যান ও মেম্বারদের মধ্যে কয়েকজন অসুস্থ্য ও মারা যায়। এ রায়ের খবর বরুড়া উপজেলায় ছড়িয়ে পড়লে ভোটারদের মাঝে আনন্দ বন্যা বয়ে আনে।

আর পড়তে পারেন