শনিবার, ১৩ই এপ্রিল, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ

বুড়িচংয়ে ভূমিহীন কৃষকের একমাত্র ফসলী জমি কেটে সাবাড়, প্রতিবাদ করায় হত্যার হুমকি

আজকের কুমিল্লা ডট কম :
নভেম্বর ৬, ২০২১
news-image

 

বুড়িচং প্রতিনিধিঃ

কুমিল্লার বুড়িচংয়ে ভূমিহীন কৃষক সেলিমের একমাত্র ফসলী জমি কেটে সাবাড় করেছে অবৈধ ভাবে বালু উত্তোলনকারী একটি দল।

এ ব্যাপারে বর্গা ধানের জমির মালিক মোঃ সেলিম মিয়া (৬৩) ৫ নভেম্বর বুড়িচং থানায় একটি সাধারণ ডায়েরী করেন।

মো. সেলিম মিয়া বুড়িচং উপজেলার বাকশীমুল ইউনিয়নের মাধবপুর গ্রামের ফজলুর রহমানের ছেলে।

সাধারণ ডায়েরী মোতাবেক জানা যায়, গত ১০ দিন পূর্ব থেকে তারই প্রতিবেশী প্রতিপক্ষ অভিযুক্ত বাকশীমূল গ্রামের অধিবাসী মো. জামাল মিয়া, মো: হাসানুজ্জামান হাসান ও মো: সিরাজুল ইসলাম গ্যাংরা মাধবপুর মৌজায় তার বর্গা ১ কানি ২ গন্ডা জমিতে জোরপূর্বক ড্রেজার মেশিন দিয়ে বালু উত্তোলন করে আসছে।

ভূমিহীন কৃষক সেলিম মিয়া এর প্রতিবাদ করলে তারা ক্ষিপ্ত হয়ে তাকে হত্যার হুমকি দিয়ে আসছেন। তিনি উপায়ান্তর না পেয়ে ২নং বাকশীমূল ইউনিয়নের চেয়ারম্যান আব্দুল করিমের কাছে প্রায় পাঁচ বার গিয়ে নালিশ দিয়েও তার খাদ্য ও বস্ত্রের একমাত্র সম্বল এই ফসলী জমিটি রক্ষা করতে পারেনি।

সেলিম মিয়া জানায়, আমার ফসলী জমি জোরপূর্বক কাটায় বাধা দিলে মো: হাসানুজ্জামান হাসান আমাকে মোবাইল ফোনে অকথ্য ভাষায় গালিগালাজসহ প্রাণে মেরে ফেলার হুমকি প্রদান করে। আমার ভিটেমাটি পর্যন্ত নাই, আমি ২ বছরে ৪টি ফসল করার জন্য আমার পার্শ্ববর্তী গ্রাম পিতাম্বরের প্রবাসী আবদুল মান্নানের কাছ থেকে ১২ হাজার টাকায় জমিটি ইজারা নেই। আমি মাত্র একটি ফসল (ইরি-বোরো) করার পর দ্বিতীয় ফসল (আমন) চাষ করি, আর মাত্র এক থেকে দেড় মাসের মধ্যে আমার ফসলটি ঘরে উঠাতে পারতাম। ফসলের মধ্যবস্থায় মো: জামাল, হাসান ও সিরাজ গ্যাংরা মিলে আমার জমির ফসল জোরপূর্বক কেটে বালু উত্তোলন করছে।

আমি কুমিল্লা বুড়িচং থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা, এসিল্যান্ড, ইউএনও এবং কুমিল্লা জেলা ম্যাজিস্ট্রেট মোহাম্মদ কামরুল হাসান স্যারের কাছে আমার ফসলটি রক্ষা করার জন্য আকুতি করছি।

বিষয়টি মাধবপুর গ্রামের মো: আবদুর রসিদ, অলিল মিয়া, আবদুল কুদ্দুস চৌধুরী, মো: সুলতান, মো: তাজুল ইসলাম, মো: কামাল, মো: জসিম উদ্দীন, মো. আরিফুল ইসলাম তারেকসহ অন্যান্য সর্দারগণ অবগত আছেন।

এ বিষয়ে অভিযুক্ত প্রতিপক্ষের সাথে মুঠোফোনে আলাপকালে জানা যায়- তারা দুই মাস পূর্বে উক্ত জমিটি পিতাম্বরের প্রবাসী আবদুল মান্নানের কাছ থেকে ২ বছরের জন্য লিজ নিয়েছে। তবে এ বিষয়ে স্থানীয় চেয়ারম্যান আব্দুল করিমকে ফোন দিলেও তিনি ফোন রিসিভ করেন নি।

আর পড়তে পারেন