বৃহস্পতিবার, ২০শে জুন, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ

মিজানুর রহমান হাওলাদার শ্রেষ্ঠ প্রধান শিক্ষক নির্বাচিত

আজকের কুমিল্লা ডট কম :
মে ৩, ২০২৪
news-image

ডেস্ক রিপোর্ট:

ঢাকা মহানগরীর বাড্ডা শিক্ষা থানায় (ভাটারা রামপুরা বাড্ডা এবং হাতিরঝিল থানার অংশবিশেষ) জাতীয় শিক্ষা সপ্তাহ ২০২৪ এ থানা পর্যায়ে মোঃ মিজানুর রহমান হাওলাদার শ্রেষ্ঠ প্রধান শিক্ষক নির্বাচিত হয়েছেন।

বিগত ২৯ এপ্রিল ২০২৪ তারিখ রামপুরা একরামুন্নেছা বালক উচ্চ বিদ্যালয়ের হল রুমে থানা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসার জনাব মোঃ আব্দুল হাকিম এর সভাপতিত্বে থানা পর্যায়ে জাতীয় শিক্ষা সপ্তাহ ২০২৪ এর প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠিত হয়। অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন একাডেমিক সুপারভাইজার জনাব মোঃ আব্দুল মোমেন এবং সহকারী থানা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসার কৃষ্ণচন্দ্র নম দাস। অনুষ্ঠানে শিক্ষার্থী দের বিভিন্ন ইভেন্টে প্রতিযোগিতার ভিত্তিতে, শিক্ষকবৃন্দের বিভিন্ন ক্যাটাগরিতে, প্রতিষ্ঠান প্রধান এবং শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের মধ্যে প্রায় ১৫ টি ক্রাইটেরিয়ায় মূল্যায়নের ভিত্তিতে শ্রেষ্ঠত্ব নির্ধারণ করা হয়। এতে রামপুরা একরামুন্নেছা বালক উচ্চ বিদ্যালয় এর প্রধান শিক্ষক মোঃ মিজানুর রহমান হাওলাদার থানা পর্যায়ে টানা দ্বিতীয়বারের মতো শ্রেষ্ঠ প্রধান শিক্ষক নির্বাচিত হয়েছেন। পাশাপাশি টানা ষষ্ঠবারের মতো রামপুরা একরামুন্নেছা বালক উচ্চ বিদ্যালয় থানা পর্যায়ে শ্রেষ্ঠ শিক্ষা প্রতিষ্ঠান (মাধ্যমিক) নির্বাচিত হয়েছে।

থানা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসার মোঃ আব্দুল হাকিম বলেন জাতীয় শিক্ষা সপ্তাহ ২০২৪ এর বিচারক বৃন্দ নির্ধারিত ক্যাটাগরির ভিত্তিতে (স্কুল কলেজ ও মাদ্রাসা) থানা পর্যায়ে মোঃ মিজানুর রহমান হাওলাদারকে শ্রেষ্ঠ প্রতিষ্ঠান প্রধান হিসাবে নির্বাচিত করেছেন।

শ্রেষ্ঠ প্রধান শিক্ষক মোঃ মিজানুর রহমান হাওলাদার সাংবাদিকদের সাথে আলাপকালে তার শ্রেষ্ঠত্বের বিষয়ে বলেন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের সাথে শিক্ষার্থী, অভিভাবক, স্থানীয় সমাজসেবক ও গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গ জড়িত।

পাশাপাশি শিক্ষার্থীদের লেখাপড়ার মান, বিভিন্ন পাবলিক পরীক্ষার ফলাফল, প্রতিষ্ঠানের অবকাঠাম উন্নয়ন, পরিবেশগত উন্নয়ন, জাতীয় দিবস সমূহ এবং ব্যক্তিগত অভিজ্ঞতা ও কর্মদক্ষতা শ্রেষ্ঠত্ব অর্জনের মূল নিয়ামক।

তিনি তার পেশাগত অভিজ্ঞতা, কর্মদক্ষতা এবং সকলের সহযোগিতা নিয়ে বিদ্যালয়ের সুনাম এবং খ্যাতি অক্ষুন্ন রাখার প্রত্যায় ব্যক্ত করেন। প্রাচীন ও খ্যাতনামা এই প্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থী, প্রাক্তন শিক্ষার্থী সহ সংশ্লিষ্ট সকলকে বিদ্যালয়ের সাফল্যে কৃতজ্ঞতা ও ধন্যবাদ জ্ঞাপন করেন।

আর পড়তে পারেন