বুধবার, ১৭ই এপ্রিল, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ

মেয়ে হারিয়ে শোকে স্তব্ধ পুলিশ কর্মকর্তা বাবা

আজকের কুমিল্লা ডট কম :
মার্চ ১, ২০২৪
news-image

ডেস্ক রিপোর্ট:

অসুস্থতাজনিত কারণে ৬ বছর আগে মারা যান স্ত্রী। দুই কন্যা সন্তানের কথা চিন্তা করে আর বিয়ে করেননি পুলিশ কর্মকর্তা। বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়ে (বুয়েট) অধ্যয়নরত বড় মেয়ে রাজধানীর বেইলি রোডের একটি বহুতল ভবনে আগুনে পুড়ে মারা যওয়ায় শোকে স্তব্ধ পুলিশ কর্মকর্তা বাবা।

শুক্রবার দুপুর ১২টা। ফরিদপুর শহরের দক্ষিণ ঝিলটুলী মহল্লার একতলা বাড়ি স্বর্ণলতার সামনে ফ্রিজিং ভ্যানে রাখা একটি লাশ। বাড়ি ভর্তি স্বজন এবং এলাকাবাসীর ভিড়। চেয়ারে বসে আছেন কন্যা হারানোর শোকে নির্বাক বাবা পুলিশের অতিরিক্ত উপমহাপরিদর্শক (ডিআইজি) নাসিরুল ইসলাম।

গতকাল রাজধানীর বেইলি রোডের যে বহুতল ভবনে অগ্নিকাণ্ডে নিহত ৪৬ জনের মধ্যে একজন নাসিরুল ইসলামের বড় মেয়ে লামিসা ইসলাম (২৩)। বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়ের (বুয়েট) যন্ত্রপ্রকৌশল বিভাগের শিক্ষার্থী ছিলেন লামিসা।

সকাল সাড়ে ১০টার দিকে ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশের একটি লাশবাহী ফ্রিজিং ভ্যান লামিসার মরদেহ নিয়ে ফরিদপুর শহরে তাদের বাড়িতে আসে। সেখানে আগে থেকেই পুলিশের বিভিন্ন ইউনিটের কর্মকর্তা, রাজনীতিবিদ ও স্বজনরা উপস্থিত ছিলেন।

আজ দুপুর সাড়ে ১২টার দিকে ফরিদপুর শহরের দক্ষিণ ঝিলটুলী মহল্লায় বাড়ির সামনের রাস্তায় স্বজন ও সহকর্মীদের নিয়ে চুপচাপ বসেছিলেন লামিসার বাবা নাসিরুল ইসলাম। কন্যা হারানোর শোকে নির্বাক তিনি। বাদ জুমা ফরিদপুর চকবাজার জামে মসজিদে জানাজা শেষে আলিপুর কবরস্থানে লামিসা ইসলামকে দাফন করা হয়।

আর পড়তে পারেন