শনিবার, ২৪শে ফেব্রুয়ারি, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ

মেসি কি পারবেন ম্যারাডোনা হতে ?

আজকের কুমিল্লা ডট কম :
নভেম্বর ৩০, ২০২২
news-image

ইমতিয়াজ আহমেদ জিতু:

আজ কি হতে যাচ্ছে ? আজ হেরে বিদায় নিবে নাকি জয় পেয়ে সরাসরি রাউন্ড সিক্সটিনে উঠবে ? মেসি কি পারবে ম্যারাডোনা হতে নাকি অতীতের মত পরাজয়ের গ্লানি নিয়ে অশ্রুসিক্ত চোখে মাঠ ছাড়বে ? অনেক প্রশ্নের উত্তর মিলবে একটি খেলায়। রাত ১ টায় গ্রুপ পর্বের শেষ ম্যাচে পোল্যান্ডের মুখোমুখি হচ্ছে খাদেঁর কিনারায় থাকা আর্জেন্টিনা। ৩ বছর ধরে অপরাজিত থাকার তকমাটি সৌদি আরবের কাছে এসে থামল। তাতেই ফুটবল বিশ্বে শুরু হয় সমালোচনার ঝড়। দ্বিতীয় ম্যাচে মেসি ম্যাজিকে মেক্সিকোকে হারিয়ে কিছুটা টেনশনমুক্ত হলেও আজ জয়ের পরিকল্পনা নিয়েই মাঠে নামতে হবে মেসিদের। জয় পেলে সরাসরি দ্বিতীয় রাউন্ডে আর ড্র হলে সৌদি বনাম মেক্সিকো ম্যাচের দিকে তাকিয়ে থাকতে হবে। প্রার্থণা করতে হবে যাতে তাদের ম্যাচটি ড্র হয়। আর আজ যদি আর্জেন্টিনা হেরে যায়, তাহলে বিশ্বকাপ মিশনটা এখানেই শেষ হবে মেসিদের।

প্রথম ম্যাচে মেসি ঠিক মেসিময় হয়ে উঠতে পারেনি। সৌদির হাই ডিফেন্স লাইন উড়তে থাকা মেসিদের একেবারে মাটিতে নামিয়ে দিল। শুধু কি মাটিতে নামানো ? না, বিশ্বকাপ থেকে ছিটকে যাওয়ার পথের শেষ প্রান্তে পৌছে দিয়েছে মেসিদের। এমন ব্যালান্সড একটি দল কিভাবে দুর্বল একটি দলের কাছে একেবারে নাকানিচুবানি হল, তা মেনে নিতে পারেনি কেউ। মেসির নেতৃত্ব নিয়েও প্রশ্ন উঠে। মেসি কি তাহলে দলকে উজ্জীবিত করতে পারছে না ? মেসি কি ম্যারাডোনা হতে পারবে না ? অনেক প্রশ্ন ঘুরপাক খায় সংবাদ মিডিয়ায়। কিন্তু দ্বিতীয় ম্যাচেই মেসি স্বমহিমায় ফিরে আসেন। দলও জয় পায়।

অনেক ফুটবল বোদ্ধারাই মেসিকে ম্যারাদোনার সাথে তুলনা করেন আবার অনেকে মেসিকে ম্যারাদোনার চাইতেও এগিয়ে রাখেন। আসলেই মেসি ম্যারাদোনার চাইতে এগিয়ে? উত্তর হবে – না। বিশ্বকাপের আসরের কথা যদি চিন্তে করেন তাহলে ম্যারাডোনা যোজন যোজন এগিয়ে মেসি থেকে। ১৯৮৬ সালে বিশ্বকাপের কোয়ার্টার ফাইনালে ম্যারাডোনার ৫ মিনিটের ঝড়েই ইংল্যান্ড নাস্তানাবুদ হয়েছিল। হ্যান্ড অব গড ও শতাব্দির সেরা গোলেই একাই ইংলিশদের বিদায় করেছিল ম্যারাদোনা। ফাইনালে জার্মানিকে হারিয়ে চ্যাম্পিয়ন হয়েছিল আর্জেন্টিনা। আসরের সেরা ফুটবলার হয়ে গোল্ডেন বল পেয়েছিলেন ম্যারাডোনা। ফুটবল বিশ্বে অমরত্বের স্বাদ পেয়েছিলেন এই ফুটবল জাদুকর।পরের বার ১৯৯০ সালেও ম্যারাডোনার জাদুতে ফাইনালে পৌছে আর্জেন্টিনারা। বির্তকিত পেনাল্টিতে শিরোপা জার্মানির ঘরে গেলেও ম্যারাডোনা চিরভাস্বর হয়ে উঠেন মানুষের মনে।অপরদিকে ২০১৪ সালে মেসির নেতৃত্বে ফাইনালে উঠে আর্জেন্টিনা। জার্মানির কাছেই স্বপ্নভঙ্গ হয় মেসির। ফাইনালে মেসিকে দেখা যায়নি মেসির স্বকীয়রুপে। পরেরবার তো হতাশা নিয়েই ফিরেছে মেসিরা ।আর এই জায়গায় মেসি থেকে ম্যারাডোনা এগিয়ে অনেকটাই।

বড় ম্যাচে ম্যারাডোনা একাই চুড়মাড় করে দিতে পারতেন বিপক্ষ দলকে। প্রতিকুল পরিবেশে ম্যারাডোনা আক্রমণাত্মক ভূমিকায় অবর্তীণ হতেন। কিন্তু বড় ম্যাচে মেসি অনেকটাই খেই হারিয়ে ফেলেন।মেসিসুলভ হয়ে উঠা সম্ভব হয় না। আজ গ্রুপের শেষ ম্যাচে মেসির সামনে সেই সুযোগ এসে দাড়িয়েছে, হয়তো আর্ন্তজাতিক পর্যায়ে বড় আসরে নিজের নেতৃত্বগুণ দেখানোর শেষ সুযোগ।দল এখন মেসি নির্ভর না হলেও মেসিকেই আজ সামনে থেকে নেতৃত্ব দিতে হবে। কারণ আজই মেসির বিশ্বকাপ জয়ের স্বপ্নভঙ্গের দিন অথবা বিশ্বকাপ রেসে টিকে থাকার শেষ সুযোগ। পারবে কি গ্রহের সেরা ফুটবলার মেসি আজ ম্যারাডোনা হতে ? ফাইনাল সমতুল্য ম্যাচে একটি জয় উপহার দিতে ? অনেক দামি এই প্রশ্নের উত্তরের অপেক্ষায় আজ বিশ্বফুটবল । ফুটবল ঈশ্বর নিশ্চয়ই স্বর্গ থেকে দলের জয়ের প্রত্যাশায় প্রহর গুণছেন ।

আর পড়তে পারেন