বুধবার, ২১শে ফেব্রুয়ারি, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ

যার বিরুদ্ধে যেই তথ্য সেই মামলায় গ্রেপ্তার : আইজিপি

আজকের কুমিল্লা ডট কম :
নভেম্বর ২, ২০২৩
news-image

ডেস্ক রিপোর্ট:

যার বিরুদ্ধে যেই তথ্য সেই মামলায় গ্রেপ্তার দেখানো হয়েছে বলে জানিয়েছেন পুলিশ মহাপরিদর্শক (আইজিপি) চৌধুরী আবদুল্লাহ আল-মামুন।

বৃহস্পতিবার (২ নভেম্বর) দুপুরে রাজধানীর গুলিস্তানে শহীদ তাজউদ্দিন আহমেদ ইনডোর স্টেডিয়ামে ‌‘বঙ্গবন্ধু ২য় দক্ষিণ এশিয়া স্যাম্বো-কুরাশ প্রতিযোগিতা ২০২৩’ উদ্বোধন অনুষ্ঠান শেষে এ কথা বলেন তিনি।

বিএনপির শীর্ষ তিন নেতার বিরুদ্ধে হত্যা মামলা থাকার পরও নাশকতার মামলায় গ্রেপ্তার করার বিষয়ে সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, হত্যা ও নাশকতার মামলার বিষয়গুলো তদন্তনাধীন রয়েছে। তদন্তে যে তথ্য আসবে, যার বিরুদ্ধে যে তথ্য পাওয়া গেছে সেই মামলা আমরা দিচ্ছি। তাদেরকে নাশকতার মামলায় গ্রেপ্তার করা হয়েছে। তাদের বিরুদ্ধে যদি হত্যা মামলার তথ্য পাওয়া যায় তাহলে ওই মামলায়ও গ্রেপ্তার দেখানো হবে।

হামলা ও নাশকতায় পুলিশ সদস্য নিহত-আহত হওয়ার ফলে আগামীতে কী ধরনের ব্যবস্থা নেওয়া হবে এবং এতে পুলিশের মনোবলে কোনো প্রভাব পড়বে কিনা এমন এক প্রশ্নের জবাবে আইজিপি বলেন, বাংলাদেশ পুলিশ বাহিনী দেড়শ বছরের একটি পুরোনো প্রতিষ্ঠান। আইনশৃঙ্খলা রক্ষায় আমরা গর্বের সঙ্গে সাহসিকতা ও পেশাদারিত্বের সঙ্গে দায়িত্ব পালন করে এদেশের মানুষের নিরাপত্তা সুনিশ্চিত করে আসছি। সেই অভিজ্ঞতা থেকেই আগামী দিনেও আমরা আমাদের দায়িত্ব থেকে পিছপা হব না। যেকোনো উসকানির মুখে আমরা আমাদের দায়িত্ব আন্তরিকতার সঙ্গে পালন করব। আমাদের যেই প্রশিক্ষণ ও সামর্থ্য আছে সেটি দিয়ে বাংলাদেশ পুলিশের প্রতিটি সদস্যের মনোবল অটুট এবং চাঙ্গা আছে।

তিনি বলেন, আমরা যখন এই ধরনের পরিস্থিতির সম্মুখীন হই, আমাদের কেউ আক্রান্ত হয় তাদের সর্বোচ্চ সেবা নিশ্চিত করে থাকি সেটা দেশে কিংবা বিদেশে হোক। আমাদের যারা আহত হয়েছে তাদের চিকিৎসা নিশ্চিত করা হয়েছে এবং আমাদের মনোবলও অটুট আছে।

আইজিপি বলেন, আমরা বিভিন্ন অনুষ্ঠানে পেশাদারিত্বের সাথে যেভাবে দায়িত্ব পালন করি। গত ২৮ অক্টোবরও আমরা সেভাবেই দায়িত্ব পালনে প্রস্তুত ছিলাম। আমরা নিরাপত্তা দিচ্ছিলাম হঠাৎ করেই দেখি কিছু বাসে আগুন দেওয়া শুরু হলো। পথচারীদের ওপর আক্রমণ, কিছু রাজনৈতিক কর্মীদের ওপর আক্রমণ শুরু হয়। এটা যখন শুরু হয় একজন মানুষের জানমালের নিরাপত্তা দেওয়া পুলিশের কর্তব্য। এই জন্যই আমরা দায়িত্ব পালন করতে গিয়ে দেখেছি, যারা আক্রমণকারী দুষ্কৃতিকারীরা প্রধান বিচারপতির বাসভবনে ঢুকে পড়েছে। বিচারপতিদের বাসভবনে আক্রমণ করেছে। এসব জায়গায় যখন আক্রমণ শুরু করে তখন আমাদের কি করা উচিত ছিল, আমাদের পেশাদারিত্বের সাথে যেটুকু শক্তি প্রয়োগ করার প্রয়োজন ছিল সেটুকু শক্তিই আমরা প্রয়োগ করেছি এবং পরিস্থিতি আমরা নিয়ন্ত্রণে এনেছি।

তিনি বলেন, অনেকেই বলতে চেষ্টা করেছেন আমরা নাকি ‘প্রেস’ লাগানো পোশাক লাগিয়ে রাজনৈতিক কর্মীদেরকে পুলিশের সঙ্গে সংযুক্ত করেছি। এরা নাকি বিভিন্ন অগ্নিসংযোগ করেছেন। কারা এই অগ্নিকাণ্ড করেছে এটা আপনারা জানেন এবং আপনারা দেখেছেন এবং বুঝতে পেরেছেন। আমি আশা করি দেশবাসীও বুঝতে পেরেছেন।

কথিত জো বাইডেনের উপদেষ্টার সঙ্গে বিএনপির নীতিনির্ধারণীর দেশে ও বিদেশের কেউ জড়িত কিনা এমন এক প্রশ্নের জবাবে আইজিপি বলেন, একটা শান্তিপূর্ণ সমাবেশ করার জন্য যে ধরনের পরিবেশ রাখা প্রয়োজন সেটা যখন আমরা নিশ্চিত করেছিলাম তখন বিতর্কিতভাবে মানুষের জানমালের ও পুলিশ সদস্যদের ওপর আক্রমণ হয়েছে। আমরা সেই পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে পেরেছিলাম। সে সময় আমরা বিএনপির নেতাদের সঙ্গে যোগাযোগ করেছিলাম কিন্তু কেউ উদ্যোগ গ্রহণ করেনি। আমরা তদন্ত করে দেখছি এবং সুনির্দিষ্ট তথ্যের ভিত্তিতে আমরা তাদেরকে গ্রেপ্তার করছি।

আর পড়তে পারেন