রবিবার, ২১শে এপ্রিল, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ

লাকসামে মামা ভাগ্নির প্রেমের জের ধরে নিহত ১, আহত ২

আজকের কুমিল্লা ডট কম :
এপ্রিল ২৯, ২০১৯
news-image

 

শাহাদাত হোসেন :

গতকাল সোমবার আনুমানিক সকাল ৮.৩০ ঘটিকার সময় কুমিল্লার লাকসাম উপজেলার পৌলাইয়া নামক স্থানে যুগল মামা ভাগ্নি প্রেমে জের ধরে একজন নিহত ও একজন আহত হওয়ার ঘটনা ঘটেছে। ঘটনার বিবরনে জানা যায়, ঐদিন সকাল মামা মিজানুর রহমান (৩৪) ভাগ্নি চুমকি (১৮) দীর্ঘদিন প্রেমে হাবুডুবু খাচ্ছিলো। এলাকায় তাদের অপকান্ডের ঘটনায় একাধিক বার সালিশ বসে, এর পর ও ক্ষান্ত হয়নি যুগল মামা ভাগ্নি ।

তারই জের ধরে সোমবার সকাল বেলা তারা চট্রগ্রামের উদ্দেশ্যে পালিয়ে রওনা হলে খোঁজ পায় মনোহরগঞ্জ উপজেলার হাতিমারা গ্রামের সুমন (২৬) ও আবুল কালামের ছেলে ইমরান (২২) যুগল মামা, ভাগ্নি, কে লাকসাম জংশন এলাকা থেকে সিএনজি করে তাদেরকে বাড়ির উদ্দেশ্যে ফিরিয়ে নেন। হঠাৎ পৌলাইয়া নামক স্থানে এসে পৌছলে মনোহরগঞ্জ উপজেলার খুরুয়া পুলিশ বাড়ির আব্দুল খালেকের ছেলে ঘাতক মিজানুর রহমান পিছনের সিটে বসা এমরান হোসেনকে চাকু মেরে গুরুতরভাবে আহত করে।

তার আত্মচিৎকারে ঐ এলাকায় সিএনজি বন্ধ করে ড্রাইভারের পাশে থাকা সুমন ধরতে গেলে সুমনকেও এলোপাতাড়ি ভাবে চুরি দিয়ে রক্তাক্ত করে জখম করে। তাদের আত্ম চিৎকারে এলাকাবাসী গাড়ী কে ঘিরে ধরে তাদের সকলকে আটক করে। পরে আহত অবস্থায় সুমন ইমরান কে লাকসামের একটি হাসপাতালে চিকিৎসার জন্য পাঠানো হয়। তাদের অবস্থা আশংকা জনক দেখে কুমিল্লা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয় , মেডিক্যাল পৌছাতে না পৌছাতেই সুমন নামে ঐ যুবক মারা যায়। এমরানের অবস্থা আশংকাজনক। এ অবস্থায় লাকসাম থানার পুলিশ এসে যুগল প্রেমিক প্রেমিকাকে লাকসাম থানায় নিয়ে যায়।

এ বিষয়ে লাকসাম থানার ওসি মনোজ কুমার দে ফোনে একাধিক বার ফোন করে তিনি প্রতিবেদকের ফোন রিসিভ করেননি, যার কারনে বক্তব্য নেয়া সম্ভব হয়নি।

এ দিকে জানা যায় ঘাতক মিজানুর রহমান হাতিমারা গ্রামের নুরজাহান (৩০) নামে বিয়ে করেন, হ্নদয় (১২) নামক এক সন্তানের জনক। ঘাতক মিজানের স্ত্রীর জেঠাতো বোনের মেয়ের চুমকি সাথে প্রেমে হাবু ডুবু খেতে গিয়ে এই ধরনের জটিলতা সৃষ্টি করে। এ ঘটনার সম্পৃক্ত কোন আত্মীয় স্বজন কারো বিরুদ্ধে কোন প্রকার মামলা করেননি।

আর পড়তে পারেন