রবিবার, ২১শে এপ্রিল, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ

লাকসামে ৪৬ তম বিজয় দিবস উপলক্ষে ব্যাপক আয়োজন

আজকের কুমিল্লা ডট কম :
ডিসেম্বর ১৬, ২০১৭
news-image

সেলিম চৌধূরী হীরা, লাকসামঃ
কুমিল্লার লাকসাম উপজেলা গত শনিবার দিনব্যাপী নানাহ আয়োজনের মধ্যে রয়েছে ভোর ৬টা ৩৫ মিনিটে স্থাণীয় সংসদ সদস্য মোঃ তাজুল ইসলাম, মুক্তিযোদ্ধা সংসদ, উপজেলা প্রশাসন, বিভিন্ন পেশাজিবী সংগঠন, বিভিন্ন রাজনৈতিক সংগঠন, লাকসাম প্রেসক্লাব, লাকসাম সাংবাদিক ইউনিয়ন, পুলিশ প্রশাসনসহ সাধারন মানুষের পুস্পস্তবক অর্পণের মাধ্যমে লাকসাম কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে শুরু ৪৬তম বিজয় উৎসব।
পরে মহান বিজয়ের ৪৬ বছর পূর্তিতে উপজেলা প্রশাসনের উদ্যোগে লাকসাম পাইলট উচ্চ বিদ্যালয় মাঠে লাল-সবুজ মহোৎসবের সমাপনী অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত হয়েছে।

জানা যায়, চলমান বিজয়ের মাসে, এ দিনে ওই মাঠে এলাকার সর্বস্তরের মানুষ পালন করেছে কয়েক হাজার বছরের পুরানো ইতিহাস-ঐতিহ্যের অনন্য বাঙ্গালীর শ্রেষ্ঠ অর্জন মহান বিজয় দিবসের ৪৬ বছর পূর্তির অনুষ্ঠান।

এ উপলক্ষে লাকসাম উপজেলা প্রশাসনের সার্বিক তত্ত্বাবধানে শনিবার মহান বিজয় দিবস উপলক্ষে দিনব্যাপী নেয়া হয়েছে নানাহ কর্মসূচী।  বিশেষ করে কেন্দ্রীয় শহীদ মিনার, বেলতলী বধ্যভূমিসহ সরকারী-বেসরকারী প্রতিষ্ঠানে নানাহ অনুষ্ঠান এবং অন্যান্য কর্মসূচীর মধ্যে লাকসাম পাইলট উচ্চ বিদ্যালয়ে দিনব্যাপী বিভিন্ন খেলাধুলা, মুক্তিযুদ্ধ ভিত্তিক চলচিত্র প্রদর্শন, চিত্রাংকন প্রতিযোগিতা, ডিসপ্লে, প্যারেড, মহিলাদের অংশগ্রহণে মুক্তিযুদ্ধ ভিত্তিক আলোচনা সভা, প্রীতি ফুটবল ম্যাচ, সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান, বীরমুক্তিযোদ্ধা ও শহীদ মুক্তিযোদ্ধা পরিবারের সংবর্ধনাসহ নানাহ কর্মসূচীতে স্থানীয় সংসদ সদস্য মোঃ তাজুল ইসলাম, উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান এডভোকেট ইউনুছ ভূঁইয়া ও লাকসাম পৌর মেয়র অধ্যাপক আবুল খায়ের, উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোহাম্মদ রফিকুল হক, উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান মহব্বত আলী, মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান রাশিদা বেগম, লাকসাম থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা আবদুল্লাহ আল মাহফুজ, বীর মুক্তিযোদ্ধা মনোহর আলী তোতা, লাকসাম প্রেসক্লাবের সাধারন সম্পাদক এড.রফিকুল ইসলাম হিরা, যুবলীগ সদস্য মনিরুল ইসলাম রতনসহ বিভিন্ন পেশাজীবি সংগঠনের শীর্ষ স্থানীয় নেতৃবৃন্দ ওই সমাপনী অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন।
এ দিকে ১৯৭১ সালের এ মাসেই এক সাগর রক্তের বিনিময়ে মহান মুক্তিযুদ্ধের মাধ্যমে বীর বাঙ্গালীর মহান এ বিজয় অর্জনের এবার ৪৬ বছর। এ উপলক্ষে উপজেলা প্রশাসন ও সরকারী-বেসরকারী প্রতিষ্ঠানগুলো নানাহ কর্মসূচী পালনের মাধ্যমে বিজয় দিবসটি হয়ে উঠে সার্বজনীন লোকজনের উপস্থিতিতে অনেকটাই প্রানবন্ত আমাদের পরম গর্ব ও অনাবিল অহংকারের দিনে।

আর পড়তে পারেন