বুধবার, ২৯শে জুন, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ

লালমাইয়ে পরকীয়ার জেরে গৃহবধূর অত্যাচারের শিকার শশুর- শাশুড়ী ও স্বামী

আজকের কুমিল্লা ডট কম :
মে ১৭, ২০২২
news-image

 

মোঃ উজ্জ্বল হোসেন বিল্লালঃ

কুমিল্লার লালমাই উপজেলায় পরকীয়ার জেরে দীর্ঘদিন ধরে গৃহবধূর অত্যাচারের শিকার হচ্ছে শশুর শাশুড়ী ও স্বামী। জানা যায় উপজেলার পেরুউল দক্ষিণ ইউনিয়নের ৪নং ওয়ার্ড জগতপুর গ্রামে এমন ঘটনা ঘটেছে।

ভুক্তভোগী শশুর হারাধন বৈষ্ণব জানান, পরকীয়ার জেরে দীর্ঘদিন ধরে আমার স্ত্রী ও ছেলের উপর বিভিন্নভাবে অত্যাচার করে আসছে গৃহবধূ জয়ন্তী রানী বৈষ্ণব।

গৃহবধূর স্বামী উজ্জ্বল বৈষ্ণব জানান, আমি বিভিন্ন সময় বাড়িতে থাকি না। আমার অনুপস্থিতিকে পুজি করে আমার স্ত্রী বিভিন্ন সময় পাশের বাড়ি অমর কৃষ্ণ বৈষ্ণববে বাড়িতে আনত। তার সাথে বিভিন্ন অনৈতিক কাজে লিপ্ত হয়ে থাকে। আমার বাবা মা জিজ্ঞেস করলে সে তাদের সাথে নানারকম খারাপ ব্যবহার করত। এছাড়াও দীর্ঘদিন ধরে অমর কৃষ্ণ বৈষ্ণব বিভিন্ন ভাবে হুমকি দিয়ে আসছে।

গত ৫মে পারিবারিক ঝগড়াকে কেন্দ্র করে আমার স্ত্রী ঘর থেকে বের হয়ে অমর কৃষ্ণ বৈষ্ণবকে বাড়িতে ডেকে আনে। অমর কৃষ্ণ বৈষ্ণব পরে এলাকার কয়েকজন ছেলেদের নিয়ে বাড়িতে এসে আমাকে, আমার মা এবং বাবাকে মারধর করে। একপর্যায়ে আমাকে তারা বাড়ি থেকে নিয়ে রাস্তার পাশে গাছের সাথে বেধে রেখে মারধর করে। আমার বাবা আসলে ওনাকে গালিগালাজ করে। পরে সে মেম্বারকে নিয়ে আসে। মেম্বার কিছু না বলে ওল্টা আমাকে ধমকি ও গালিগালাজ করতে থাকে। একপর্যায়ে মেম্বার, গ্রাম সর্দার ও কয়েকজন মিলে আমার বাবাকে ঘর থেকে বের করে এনে আমার খালি স্ট্যাম্পে সই দিতে বলে। আমার বাবা রাজি নান হলে তাকে বিভিন্নভাবে হুমকি দেয়। পুলিশে ধরিয়ে দেওয়ার ভয় দেখিয়ে বাবার কাছ থেকে ৫০ টাকা দামের ৬ টি খালি স্টাম্পে সই নিয়ে যায়। এরপর থেকে আমাদের বিভিন্ন ভাবে ভয়ভীতি দেখিয়ে আসতেছে। আমরা এসব খবর যেনো কাউকে না জানাই।

উপায় না পেয়ে গত ৮মে আমি র‌্যাবের কাছে অভিযোগ করি। এখন আমি এবং আমার পরিবার নিরাপত্তাহীনতায় ভুগতেছি। আমি এখন প্রশাসনের সহযোগিতা চাইতেছি যেন আমরা বাড়িতে থাকতে পারি।

এ ব্যাপারে জানতে চাইলে গৃহবধূ জয়ন্তী রানী বৈষ্ণব সবকিছু অস্বীকার করেন।

স্থানীয় মেম্বার মুকসুদ জানান, গত ০৫ মে আমাকে অমর কৃষ্ণ বৈষ্ণব খবর দেয়। উজ্জ্বল বৈষ্ণব এবং তারা বাব মা মিলে নাকি দীর্ঘদিন ধরে গৃহবধূর উপরে নানা ভাবে অত্যাচার করে আসছে। একপর্যায়ে আমি গৃহবধূর শশুর থেকে ৬ টি খালি স্ট্যাম্পে সই নিয়ে আসি। এগুলো এখন গ্রাম সর্দারের কাছে আছে। তাদেরকে মারধরের ব্যাপারে জানতে চাইলে তিনি বলেন আমি তাদেরকে গালিগালাজ ও মারধর করি নাই তা সম্পূর্ণ মিথ্যা বানোয়াট।

আর পড়তে পারেন