শুক্রবার, ১৪ই জুন, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ

শ্রীদেবীর শেষকৃত্য সম্পন্ন

আজকের কুমিল্লা ডট কম :
ফেব্রুয়ারি ২৮, ২০১৮
news-image

 

ডেস্ক রিপোর্ট :

রাষ্ট্রীয় সম্মাননায় মুম্বাইয়ের ভিলে পার্লে সেবা সমাজ শ্মশানে শেষকৃত্য সম্পন্ন হলো বলিউডের নারী সুপারস্টার শ্রীদেবীর। বুধবার স্থানীয় সময় বিকেল ৪টায় শেষকৃত্যের জন্য তার মরদেহ শ্মশানে নিয়ে যাওয়া হয়। এসময় তার পরনে ছিল লাল এবং সোনালী রঙের শাড়ি, কপালে লাল টিপ এবং জাতীয় পতাকায় মুড়িয়ে দেয়া হয়েছিল তার দেহ।

শ্মশানে নিয়ে যাওয়ার সময় উপস্থিত ছিল তার স্বামী বনি কাপুর, আত্মীয়-স্বজন ও সহকর্মীসহ দেশের সর্বস্তরের প্রায় হাজারো মানুষ। প্রত্যেকের উপস্থিতিতে তার শেষযাত্রায় তৈরি হয় এক বিশাল লাইন, যার দৈর্ঘ্য ছিল প্রায় ৭ কিলোমিটার।

এর আগে, সকাল ৯টায় তার বাড়ি থেকে তার মরদেহ নিয়ে যাওয়া হয় সেলিব্রেশন স্পোর্টস ক্লাবে। এর কিছুক্ষণের মধ্যেই তার পরিবারের সদস্যসহ তার সহকর্মীরাও সেখানে উপস্থিত হন। এরপর তাকে শেষবারের মত দেখতে জনসাধারণের জন্য খুলে দেয়া হয় সেলিব্রেশন স্পোর্টস ক্লাবের দরজা। এসময় প্রচন্ড ভিড় শুরু হয় ক্লাবের ভিতরে এবং বাইরে। তার সহকর্মীসহ প্রত্যেককে শেষবারের মত দেখে নেয় তাদের প্রিয় অভিনেত্রীকে। বেলা ২টা পর্যন্ত তাকে সেখানে রাখা হয় এবং পরবর্তীতে শ্মশানের উদ্দেশ্যে রওয়ানা দেয়া হয়। বেলা ৪টায় শ্মশানে পৌছায় তার মরদেহ।

এসময় রাস্তায় ছিল উপচে পড়া ভিড়। মুল সড়ক ছাড়াও আশেপাশের রাস্তাগুলোতে বিঘœ ঘটে যানচলাচলে। এজন্য স্থানীয় প্রশাসন নিয়েছিল অতিরিক্ত নিরাপত্তা ব্যবস্থা। অবস্থা প্রতিকূলে থাকার কারণে উপস্থিত জনতার উপর কয়েকবার লাঠি চার্জ করতে বাধ্য হয় নিরাপত্তা কর্মীরা।

এই বিখ্যাত অভিনেত্রী এর আগে বেশ কিছু সাক্ষাৎকারে জানিয়েছিলেন, মৃত্যুর পর তার আশেপাশের সবকিছু যেন সাদা রঙে ঢেকে দেয়া হয়। তার কথা অনুসারে তার বাড়িসহ তার শবযাত্রার সব আয়োজনেই ছিল সাদা রঙের প্রাধান্য।

তার শেষকৃত্যে উপস্থিত হয়েছিলেন বলিউডের অন্যতম প্রধান ব্যক্তিত্ব অমিতাভ বচ্চন ও কিং খান খ্যাত নায়ক শাহরুখ খান। এছাড়া সালমান খান, জয়া বচ্চন, অভিষেক বচ্চন, ঐশ্বরিয়া রাই বচ্চন, হেমা মালিনি, অনিল কাপুর, অজয় দেবগন, কাজল, টাবু, মাধুরী দীক্ষিত, জাভেদ আখতার, সুম্মিতা সেন, আরবাজ খান, সোহেল খান, সোহা আলী, সোনম কাপুর, অক্ষয় খান্নাসহ আরও অনেকেই গিয়েছিলেন তাকে বিদায় জানাতে। এনডিটিভি, দ্য হিন্দুস্তান টাইমস, এবিপি

আর পড়তে পারেন