শুক্রবার, ১লা মার্চ, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ

‘সাহিত্য দুই হাত ও পায়ের প্রাণীকে সত্যিকারের মানুষ করে তোলে’

আজকের কুমিল্লা ডট কম :
এপ্রিল ২৩, ২০১৯
news-image

 

কুবি প্রতিনিধি:

সাহিত্য দুই হাত ও দুই পায়ের প্রাণীকে সত্যিকারের মানুষ করে তোলে। সাহিত্য মননের বিষয়। আমাদের বস্তুগত চাহিদার চেয়ে মননের খোরাক দেওয়া বেশি জরুরী। সাহিত্য সম্মেলনের এই আয়োজন আমাদের সেদিক থেকে ঋদ্ধ করবে।

কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয়ে বাংলা ও ইংরেজি বিভাগের যৌথ ব্যবস্থাপনায় প্রথমবারের মতো আয়োজিত আন্তর্জাতিক সাহিত্য সম্মেলনে বক্তারা এসব কথা বলেন।

মঙ্গলবার সকাল ৯টায় কলা ও মানবিক অনুষদের আয়োজনে অনুষদটির হলরুমে এ সম্মেলনের উদ্ভোধন করেন রবীন্দ্র বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড. বিশ্বজিৎ ঘোষ। কলা ও মানবিক অনুষদের ডিন ড. জি. এম. মনিরুজ্জামানের সভাপতিত্বে সম্মেলনে প্রধান অতিথি ছিলেন কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড. এমরান কবীর চৌধুরী।

সম্মেলনের প্রথম অধিবেশনে ‘অন্য রবীন্দ্রনাথ’ প্রসঙ্গে প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন অধ্যাপক ড. বিশ্বজিৎ ঘোষ। এসময় তিনি বলেন, ‘রবীন্দ্রনাথ একবারে পড়ে শেষ করা সম্ভব নয়, লিখেছেন কিন্তু তিনি একজনই। রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরকে জানার জন্য অনেক কিছুই পড়তে হবে, অনেক গভীরে ভাবতে হবে, প্রতিটি লিখার প্রেক্ষাপট জানতে হবে। রবীন্দ্রনাথ ছিলেন বাংলার কৃষকের বন্ধু। নোবেল পুরস্কারের টাকা দিয়ে তিনি এশিয়ার প্রথম কৃষি ব্যাংক প্রতিষ্ঠা করেছিলেন। সমবায় ও ক্ষুদ্রঋণের প্রবর্তক ছিলেন তিনি।’

 

তিনি আরও বলেন, ‘রবীন্দ্রনাথ ধর্মের নামে হানাহানি চাননি। তার কথা ছিলো- ধর্মের নামে মনুষ্যত্ব হারায় মানুষ। ফ্যাসিবাদের বিরুদ্ধে মানবতাবাদী ছিলেন তিনি। জালিয়ানওয়ালাবাগ হত্যাকান্ডের পর ব্রিটিশ কর্তৃক দেওয়া নাইট উপাধি প্রত্যাখ্যানই তার প্রমাণ।’

এছাড়াও খ্যাতিমান এ রবীন্দ্র গবেষক বলেন, ‘জমিদারবাড়ির অকর্মণ্য ছেলে থেকে বিশ্বকবি হয়েছিলেন কবিগুরু রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর। জমিদার দেবেন্দ্রনাথ ঠাকুরের বিশাল পরিবারে, বিশাল জমিদারিত্বে রবীন্দ্রনাথই ছিলেন একমাত্র বিদ্যাপীঠবিমুখ। তবে পরবর্তীতে তিনি বিশ্বকে দেখিয়েছেন নিজের আসল পরিচয়। জমিদারি দেখভাল করতে এসে এই বাংলার সাধারণ কৃষকের পাশে দাঁড়িয়েছেন নিজের সবকিছু দিয়ে। কৃষকের স্বাস্থ্য রক্ষায় তিনি নিজে পুকুরে নেমে কচুরিপানা পরিষ্কার করেছেন।

বাংলা বিভাগের প্রভাষক সাদিয়া আফরোজ সিফাতের সঞ্চালনায় সম্মেলনের দ্বিতীয় অধিবেশনে ‘উইলিয়াম শেক্সপিয়র’ বিষয়ে প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের ইংরেজি বিভাগের অধ্যাপক ড. শফি আহমেদ। এছাড়াও সম্মেলনে কুমিল্লা বিশ^বিদ্যালয় শিক্ষক সমিতির সভাপতি ড. মো: শামিমুল ইসলাম, বাংলা বিভাগের সভাপতি মুহাম্মদ শামসুজ্জামান মিলকী, ইংরেজি বিভাগের সভাপতি মোহাম্মদ আলী রেজওয়ান তালুকদারসহ বিশ্ববিদ্যালয়ের বিভিন্ন অনুষদের ডিন, বিভাগীয় প্রধান ও শিক্ষক-শিক্ষার্থীরা এসময় উপস্থিত ছিলেন।

এর আগে সম্মেলনে আমন্ত্রিত অতিথিদের উত্তরীয়, পুষ্পার্ঘ্য ও সম্মাননা স্মারক দিয়ে বরণ করে নেওয়া হয়। এছাড়া বিকেলে বাংলা ও ইংরেজি বিভাগের শিক্ষার্থীদের পরিবেশনায় সাংস্কৃতিক সন্ধ্যা অনুষ্ঠিত হয়।

আর পড়তে পারেন