শনিবার, ৩রা ডিসেম্বর, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ

সৌদিতে সড়ক দুর্ঘটনায় প্রাণ গেল কুমিল্লার একই পরিবারের ৩ জনের

আজকের কুমিল্লা ডট কম :
মে ৩০, ২০১৭
news-image

স্টাফ রিপোর্টারঃ

সৌদি আরবে সড়ক দুর্ঘটনায় কুমিল্লা সদর উপজেলার একই পরিবারের ৩ জন নিহত
হয়েছে। এ সময় আরো ৩ জন আহত হয়।
রোববার স্থানীয় সময় সকাল সাড়ে ৭ টায় জেদ্দা-আলবাহার সড়কের বাতুয়ায় এ সড়ক
দুর্ঘটনা ঘটে।
নিহতরা হলেন, কুমিল্লার আদর্শ সদর উপজেলার দুর্গাপুর উত্তর ইউনিয়নের
গুনানন্দী গ্রামের তোফাজ্জেল হোসেন, সপ্তম শ্রেণিতে পড়ুয়া ছেলে শাহরিয়ার
হোসেন ও শাশুড়ি শাহনারা বেগম। আহতরা হন তোফাজ্জলের মেয়ে তৃতীয় শ্রেণির
ছাত্রী নিহা ও তিন বছর বয়সের মেয়ে আফনান এবং স্ত্রী শাম্মি আক্তার।
নিহতদের স্বজনরা জানান,আর্দশ সদর উপজেলার কোটবাড়ি মাঝিপাড়া গ্রামের
মুক্তিযোদ্ধা আবদুর রাজ্জাকের স্ত্রী শাহানারা বেগম নাতি-নাতনি নিয়ে
শনিবার রাতে সৌদিতে বসবাসরত মেয়ে শাম্মি আক্তার ও জামাই গুনানন্দী
গ্রামের তোফাজ্জলের কাছে যাচ্ছিলেন। উদ্দেশ্য ছিল ওমরা পালন করার। রোববার
স্থানীয় সময় সকাল ৬ টায় শাশুড়ি ও নিজের সন্তানদের বিমানবন্দর থেকে বাসায়
নেয়ার জন্য স্ত্রীসহ বিমানবন্দরে আসেন প্রবাসী তোফাজ্জল হোসেন।
সকাল সাড়ে ৭টায় তাদের বহনকারী গাড়িটি জেদ্দা-আলবাহার সড়কের বাতুয়ায়
পৌঁছালে দুর্ঘটনায় কবলে পড়েন। এতে ঘটনাস্থলেই তোফাজ্জেল হোসেন, তার ছেলে
শাহরিয়ার হোসেন ও শাশুড়ি শাহনারা বেগম নিহত হন।  আহত হন তোফাজ্জলের মেয়ে
নিহা ও আফনান এবং স্ত্রী শাম্মি আক্তার। আফনান ও শাম্মি আক্তারের অবস্থা
কিছুটা উন্নত হলেও নিহা আইসিইউতে রয়েছে। তার অবস্থাও আশঙ্কাজনক।


নিহত তোফাজ্জল হোসেনের বড় ভাই আবুল কালাম জানান, তার ভাই তোফাজ্জল হোসেন
স্ত্রী ও সন্তান নিয়ে দীর্ঘদিন সৌদিতে আছেন। দেশ থেকে যাওয়া তার শাশুড়ি ও
দুই সন্তানকে বিমানবন্দর থেকে নিয়ে বাসায় ফেরার পথে এ দুর্ঘটনা ঘটে।
সদর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান অ্যাড. আমিনুল ইসলাম টুটুল বিষয়টি নিশ্চিত
করে বলেন, প্রবাসী কল্যাণ মন্ত্রণালয়ের মাধ্যমে নিহতদের মরদেহ দেশে আনার
প্রক্রিয়া চলছে।

আর পড়তে পারেন