শুক্রবার, ১৪ই জুন, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ

হাজীগঞ্জে দেশীয় অস্ত্র উদ্ধার ॥ আটক ১

আজকের কুমিল্লা ডট কম :
অক্টোবর ১২, ২০১৭
news-image

সুজন দাস|ঃ
চাঁদপুরের হাজীগঞ্জে দেশীয় অস্ত্রের বিপুল পরিমাণ চালান কৃত অস্ত্র উদ্ধার করেছে হাজীগঞ্জ থানা পুলিশ। উপজেলার হাটিলা পূর্ব ইউনিয়নের আন্তঃজেলা ফুটবল টুর্নামেন্টের ফাইনাল খেলা চলাকালীন মাঠের পাশ থেকে গোপন সংবাদের ভিত্তিতে একটি বস্তার মধ্যে দেশীয় অস্ত্রের সন্ধান পায় পুলিশ। এ ঘটনায় পুলিশ বাদী হয়ে মামলা দায়ের করেছে ও ইতিমধ্যে ১জনকে আটক করা হয়েছে। উদ্ধারকৃত অস্ত্রগুলোর মধ্যে ২৭.৫ ইঞ্চি একটি ছোরা, ১টি চাপাতি ও ১০টি বিভিন্ন সাইজের এসএস স্টিলের পাইপের টুকরো। আসামীরা উপজেলার ৮নং হাটিলা পূর্ব ইউনিয়নের হাড়িয়াইন গ্রামের মিজি বাড়ির শাহজাহানের ছেলে মোঃ মাইন উদ্দিন (৩৫), পশ্চিম হাটিলা গ্রামের প্রধানীয়া বাড়ির আঃ রবের ছেলে মোঃ হিমেল ও একই গ্রামের হাজী বাড়ির মোঃ হামিম, পিতা অজ্ঞাতসহ আরো অজ্ঞাত বেশ কয়েকজন।
অস্ত্র উদ্ধারের ঘটনায় হাজীগঞ্জ থানার উপ-পরিদর্শক মোঃ শাহেদ হোসাইন বাদী হয়ে ৩ জন নামীয় ও ১০/১২জনকে অজ্ঞাত আসামি উল্লেখ করে মামলা করেন। হাজীগঞ্জ থানায় ১৯৭৮ সনের অস্ত্র আইনের ১৯ (ই) ধারায় পরিকল্পিতভাবে অপরাধ সংঘটনের উদ্দেশ্যে অবৈধ অস্ত্র বহন ও দখলে রাখার অপরাধে মামলা দায়ের হয়েছে। পুলিশ সোমবার রাতেই অভিযান চালিয়ে হিমেলকে আটক করেছে। গতকাল মঙ্গলবার আদালতের মাধ্যমে তাকে জেল হাজতে প্রেরণ করা হয়।
এজাহার সূত্রে জানা যায়, হাটিলা পূর্ব ইউনিয়নে মাদক, বাল্যবিবাহ ও জঙ্গিবাদ বিরোধী ফাইনাল খেলা চলাকালীন উল্লেখিত আসামিরা খেলার মাঠে দাঙ্গা-হাঙ্গামা ও মারামারি করার উদ্দেশ্যে বিভিন্ন প্রকার দেশীয় অস্ত্র মজুদ করে। পুলিশ গোপন সংবাদের ভিত্তিতে খেলার মাঠের উত্তর-পশ্চিম কর্ণারের বাগানের ভিতর হতে মালিক বিহীন একটি ব্যাটারী চালিত রিঙ্ার সিটের (গদির) নিচ থেকে দেশীয় অস্ত্রগুলো উদ্ধার করে। এ সময় আসামিরা টের পেয়ে পালিয়ে যায়।
এজাহার সূত্রে আরো জানা যায়, মামলা উল্লেখিত আসামিরা আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতি অবনতি করার লক্ষ্যে পূর্ব পরিকল্পিতভাবে খেলাকে কেন্দ্র করে মাঠে দাঙ্গা-হাঙ্গামা ও মারামারি করার উদ্দেশ্যে উল্লেখিত অস্ত্রগুলো এনে রাখে। ইতিপূর্বেও উল্লেখিত আসামিরা স্থানীয়ভাবে খেলার সময় আইনশৃঙ্খলা অবনতি করার চেষ্টা করে।
হাজীগঞ্জ থানার অফিসার ইনচার্জ মোঃ জাবেদুল ইসলাম অস্ত্র উদ্ধারের ঘটনা নিশ্চিত করে বলেন খেলায় কেউ হারবে, কেউ জিতবে এটাই নিয়ম। এটা স্থানীয় পর্যায়ে মাদক, জঙ্গিবাদ ও বাল্যবিবাহ বিরোধী আন্তঃজেলা ফুটবল টুর্নামেন্টের অংশ হিসেবে ইউনিয়নভিত্তিক ফাইনাল খেলা। এখানে বিশৃঙ্খলার কোন সুযোগ নেই। কেউ যদি বিশৃঙ্খলা করতে চায় বা করে তাদেরকে ছাড় দেয়া হবে না। হাঙ্গমাকারীদের বিরুদ্ধে আইন অনুযায়ী ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

আর পড়তে পারেন