Tag Archives: আশ্রয়ন প্রকল্প

দাউদকান্দিতে পরিত্যক্ত জায়গায় ভূমিহীনদের ঘর নির্মাণ নিয়ে উত্তেজনা, রক্তক্ষয়ী সংঘর্ষের আশংকা

 

জাকির হোসেন হাজারীঃ

কুমিল্লার দাউদকান্দিতে পরিত্যক্ত জায়গায় হাসপাতাল হবে, নাকি আশ্রয়ন প্রকল্পের ঘর হবে এনিয়ে গ্রামবাসীদের মধ্যে উত্তেজনা চলছে। যে কোন সময় বড় ধরনের রক্তক্ষয়ী সংঘর্ষের আশংকা করছে এলাকাবাসী।

সরেজমিনে গিয়ে জানা যায়, উপজেলার মারুকা ইউনিয়নের স্বপাড়া গ্রামে স্বপাড়া মৌজার ১একর এক শতক পরিত্যাক্ত জায়গা রয়েছে। রেকর্ডে গিরিস চন্দ্র সেন জায়গাটির মালিক থাকা অবস্থায় ১০শতক ভূমিতে ইউনিয়ন উপ-স্বাস্থ্য কেন্দ্র নির্মিত হয়। মুক্তিযুদ্ধের পর থেকে গিরিস চন্দ্র সেনের কোন ওয়ারিশ এখানে না থাকায় বাকি কিছু অংশ ভূমি স্থানীয়দের দখলে চলে যায়। বর্তমানে উপস্বাস্থ্য কেন্দ্র জরাজীর্ণ অবস্থায় রয়েছে। এদিকে একই ভূমির বাকি অংশে আশ্রয়ন প্রকল্প-২ এর আওতায় ভূমিহীনদের জন্য ঘর নির্মানের উদ্যোগ নেয় উপজেলা প্রশাসন।

এমন খবর পেয়ে স্থানীয় প্রভাবশালীরা এলাকায় গুজব ছড়ায় যে এখানে হাসপাতাল হবে না, ভূমিহীনদের জন্য ঘর নির্মাণ হবে। কতিপয় লোকের উস্কানীতে এমন কথা শুনে “ঘর চাই না হাসপাতাল চাই” স্লোগানে মিছিলও করে কিছু লোকজন। এনিয়ে গত ১৩ ফেব্রুয়ারি স্থানীয়দের মধ্যে মারামারির ঘটনাও ঘটে। ২২ ফেব্রুয়ারি আবার ঘর চাই না হাসপাতাল চাই ব্যানারে মানববন্ধন করতে আসা স্বপাড়া গ্রামের রুস্তম আলী ও মুজাফ্ফর ভূইয়া বলেন, আমরা অন্য কিছু চাই না, শুধু মেডিকেল চাই, বাস্তুহারাদের জন্য ঘর নির্মাণ আমরা চাই না।

স্থানীয় তহসিলদার নাজমুল হক জানান, স্বপাড়া মৌজার ১৫৪ নং খতিয়ানে ১০১ শতক ভূমির কিছু অংশে স্বাস্থ্য কেন্দ্র রয়েছে। জায়গাটি গিরিশ চন্দ্র সেন নামে এক ব্যাক্তির নামে রেকর্ড থাকলেও মুক্তিযুদ্ধের পর থেকে তাদের কোন ওয়ারিশ এখানে নেই বলে স্থানীয়দের মাধ্যমে জানা যায়।

ইউপি চেয়ারম্যান খলিল তালুকদার বলেন, স্বাস্থ্য কেন্দ্রটি এখানে ছিল এবং থাকবে। ভূমিহীনদের জন্য ঘর নির্মাণে বাধা দিয়ে সরকার বিরোধী একটি মহল পরিবেশ ঘোলা করার চেষ্টা চালাচ্ছে।

উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) মোঃ সেলিম শেখ বলেন, হাপাতালের জায়গাটি ছাড়া বাকি অংশটুকু অনেকেই দখল করে রেখেছে। ভূমিহীনদের ঘর করতে গেলে দখল ছাড়তে হবে হয়তো এজন্যই ভিন্ন কৌশলে আন্দোলন করার চেষ্টা করছে দখলদাররা। এখানে হাসপাতালের জায়গা রেখেই ভূমিহীনদের জন্য ঘর নির্মাণ করা হবে।