Tag Archives: উপজেলা আওয়ামীলীগ

এক যুগ পর অফিস পেলো দেবিদ্বার উপজেলা আওয়ামীলীগ

এক যুগ পর অফিস পেলো দেবিদ্বার উপজেলা আওয়ামীলীগ

দেবিদ্বার প্রতিনিধি:

প্রায় ১২ বছর পর আওয়ামীলীগের কুমিল্লার দেবিদ্বার উপজেলা শাখা কার্যালয় উদ্বোধন করা হয়েছে। শুক্রবার বিকালে কুমিল্লা উত্তর জেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক রোশন আলী মাস্টার প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থেকে উপজেলা শাখার কার্যালয় উদ্বোধন করেন।

দেবিদ্বার উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি একেএম সফিউদ্দিনের সভাপতিত্বে এবং তথ্য ও গবেষনা বিষয়ক সম্পাদক মো. মিজানুর রহমানের সঞ্চালনায় এসময় উপস্থিত ছিলেন, কুমিল্লা উত্তর জেলা আওয়ামীলীগের সহসভাপতি আবদুল মতিন মুন্সি, সাংগঠনিক সম্পাদক মো. হুমায়ুন কবীর, যুব ও ক্রিড়া বিষয়ক সম্পাদক একেএম সফিকুল আলম ভিপি কামাল, সহ দপ্তর সম্পাদক ইসমাইল হোসাইন, ইউএসএ শেখ রাসেল ফাউন্ডেশনের প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি ডা.ফেরদৌস খন্দকার।

উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে আরও উপস্থিত ছিলেন, উপজেলা আওয়ামীলীগের সহ সভাপতি আবদুল কুদ্দুস সরকার, মো. জলিল চৌধুরী, মফিজ উদ্দিন দুলাল, মো. মোসলেহ উদ্দিন মাস্টার, সাংগঠনিক সম্পাদক ইফতেখারুল আলম তুষার, মো. মোস্তাফিজুর রহমান সরকার, দপ্তর সম্পাদক মো. আবুল কালাম আজাদ, প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক মোসলেহ উদ্দিন ভঁ‚ইয়া মানিক, উপজেলা আওয়ামীলীগের সদস্য ইঞ্জি. গাজী রাসেল বিল সালাম সহ সাবেক ইউপি চেয়ারম্যান মো. সোহরাব হোসেনসহ পৌর ও বিভিন্ন ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের নেতা-কর্মীরা। পরে দোয়া-মুনাজাতের মাধ্যমে দেবিদ্বারে উপজেলা শাখা আওয়ামীলীগের কার্যালয় উদ্বোধন করা হয়।

দেবিদ্বারে  আ’লীগ কর্মীকে পিটিয়ে আহত: ২ লাখ টাকা ছিনতাই

 

স্টাফ রিপোর্টারঃ

কুমিল্লার দেবিদ্বার উপজেলায় পূবালী ব্যাংক থেকে ২ লাখ টাকা উত্তোলন করে বাড়ি ফেরার পথে সাদ্দাম বাহিনীর হামলায় গুরুতর আহত হয়ে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন উপজেলা আওয়ামীলীগ কর্মী সাইফুল ইসলাম। সাইফুলকে আহত করে তার সাথে থাকা দুই লাখ টাকা ছিনিয়ে নেয় সাদ্দাম বাহিনী।

রবিবার (২০ ডিসেম্বর) দুপুর আড়াইটায় এই হামলার ঘটনা ঘটে।

আহত মো: সাইফুল ইসলাম উপজেলার পদ্মকোট গ্রামের মৃত. তাজুল ইসলামের ছেলে। তিনি কুমিল্লা উত্তর জেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক আলহাজ্ব মো: রৌশন আলী মাস্টারের একনিষ্ঠ কর্মী।

আহত সাইফুলের আত্মীয় স্বজন জানান, সাইফুল ব্যাংক থেকে টাকা উত্তোলন করে রাস্তায় বের হলে সাদ্দাম হোসেন ও তার সন্ত্রাসী বাহিনী তার উপর হামলা করে মারধর করে জোরপূর্বক একটি গাড়িতে তুলে ছাত্রাবাসের সামনে এনে গাড়ি থেকে নামিয়ে মারধর করে হত্যা করার চেষ্টা করে। এসময় স্থানীয় লোকজন এগিয়ে আসলে সন্ত্রাসীরা তার সাথে থাকা ২ লাখ টাকা নিয়ে পালিয়ে যায়। তাকে প্রথমে কুমিল্লা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেওয়া হয়। পরে অবস্থার অবনতি হলে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়। বর্তমানে তার অবস্থা আশংকাজনক।

হামলাকারীরা হলেন, স্বেচ্ছাসেবক লীগের সদস্য সাদ্দাম হোসেন, পুরান বাজারের দুলাল মিয়ার ছেলে জহির, ইউসুফপুর গ্রামের মোসলেমের ছেলে সজীব, ইকরা নগরীর সাইদ হোসেন, মাস্টার বাড়ির নাজিম, ওমানীর বাড়ির পাশের মাসুম ও তার ছোট ভাই স্বাধীনসহ আরও অনেকে।