Tag Archives: উপস্থাপন

ড. মুহাম্মদ ইউনূসের মামলার যুক্তিতর্ক উপস্থাপনের তারিখ ঘোষণা

ডেস্ক রিপোর্ট:

গ্রামীণ টেলিকমের চেয়ারম্যান ড. মুহাম্মদ ইউনূসসহ তিনজনের বিরুদ্ধে করা শ্রম আইন লঙ্ঘনের মামলার যুক্তিতর্ক উপস্থাপন করা হবে আগামী ১৬ নভেম্বর (বৃহস্পতিবার)।

বৃহস্পতিবার (৯ নভেম্বর) বিকেল ৩টা ৪ মিনিটে তৃতীয় শ্রম আদালতের জেলা ও দায়রা জজ শেখ মেরিনা সুলতানার এজলাস কক্ষে এই তারিখ ঘোষণা করেন।

এর আগে দুপুর ২টা ৫০ মিনিটে আত্মপক্ষ সমর্থনের শুনানি শেষ হয়। ড. ইউনূসের পক্ষে শুনানিতে অংশ নেন অইনজীবী ব্যারিস্টার আব্দুল্লাহ আল মামুন। শুনানি শুরু হয় দুপুর ১টা ১০ মিনিটে।

এ সময় ড. মুহাম্মদ ইউনূসসহ বাকি ৩ বিবাদী গ্রামীণ টেলিকমের এমডি মো. আশরাফুল হাসান, পরিচালক নুরজাহান বেগম এবং মো. শাহজাহানও উপস্থিত ছিলেন।

প্রসঙ্গত, কলকারখানা ও প্রতিষ্ঠান অধিদপ্তরের শ্রম পরিদর্শক আরিফুজ্জামান ২০১১ সালের ৯ সেপ্টেম্বর ঢাকার তৃতীয় শ্রম আদালতে বাদী হয়ে ড. মুহাম্মদ ইউনুসসহ চারজনের বিরুদ্ধে এই মামলা দায়ের করেন। এতে ইউনূস ছাড়াও গ্রামীণ টেলিকমের এমডি মো. আশরাফুল হাসান, পরিচালক নুরজাহান বেগম এবং মো. শাহজাহানকে বিবাদী করা হয়।

মামলায় শ্রমিক কল্যাণ ফাউন্ডেশনের নির্দিষ্ট লভ্যাংশ জমা না দেওয়া, শ্রমিকদের চাকরি স্থায়ী না করা, গণছুটি নগদায়ন না করায় শ্রম আইন ৪ এর ৭, ৮, ১১৭ ও ২৩৪ ধারায় অভিযোগ আনা হয়।

সাক্ষী সাজিদই ছুড়ি দিয়ে শান্তকে হত্যা করে নিজেকে সাক্ষী হিসেবে উপস্থাপন করে

স্টাফ রিপোর্টার:

কুমিল্লার দেবিদ্বারের আলোচিত মেহেদী হাসান শান্ত (২৩) হত্যা মামলার ৫নং সাক্ষী ছিলেন আজমল ফুয়াদ সাজিদ((২৫)। প্রতারক সাক্ষী সাজিদই ছুড়ি দিয়ে হত্যা করে শান্তকে। হত্যা করে নিজেকে সাক্ষী হিসেবে উপস্থাপন ঘটনার রহস্য উন্মোচন করেছে কুমিল্লা পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশন (পিবিআই)। তদন্ত শেষে জানা যায়, শান্ত হত্যাকান্ডে সাজিদ সম্পৃক্ত থাকার প্রমাণ। সাজিদ ছুড়ি দিয়ে শান্তকে তলপেটে আঘাত করে। আর সেই আঘাতেই নিহত হয় শান্ত।

পিবিআই সুত্র জানায়, তুচ্ছ ঘটনাকে কেন্দ্র করে দেবিদ্বারে নুরপুরে গত বছরের ঈদুল আযহার আগের দিন আসামী সাজিদ ও আল আমিনের মাঝে তর্কাতর্কি হয়। তাদের হট্টগোল শুণে সেখানে আরো উৎসুক জনতার ভীড় হয়। একটা পর্যায়ে অভিযুক্ত সাজিদ তার পকেটে থাকা ছুড়ি (সুইস গিয়ার) দিয়ে এলোপাতারী আঘাত করতে থাকে। এতে আলআমিনসহ চারজন গুরুতর আহত হয়। এসময় শান্ত সাজিবকে থামাতে পেছন থেকে আক্রে ধরলে সাজিব শান্তর তলপেটে ছুড়ি দিয়ে আঘাত করে। সাথে সাথে মাটিতে লুটিয়ে পড়ে শান্ত। সাজিদ মোটর সাইকেলে পালিয়ে গেলে শান্তকে স্থানীয়রা দেবিদ্বার উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে যায়। সেখানে কর্তব্যরত চিকিৎসক শান্তকে মৃত ঘোষণা করে।

ঘটনার তদন্তকারী কর্মকর্তা কুমিল্লা ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশন পরির্দশক মোহাম্মদ তৌহিদুল ইসলাম জানান, ‘আলোচিত হত্যাকান্ডটি নিয়ে পিবিআইয়ের উর্ধ্বতন কর্মকর্তারাসহ নিবিড় ভাবে অনুসন্ধানের মাধ্যমে প্রতিটি আলামত ও সাক্ষীর কথা পঙ্খানুপঙ্খানু রূপে বিশ্লেষণ করে আসল হত্যাকারীর পরিচয় বের করেন। এ মামলার চারজন সাক্ষী আদালতে স্বীকারোক্তি মূলক বক্তব্যের মাধ্যমে সাজিদ কর্তৃক শান্তকে হত্যার বিষয়টি অধিকতর পরিষ্কার হয়ে উঠে।

ঘটনার বিবরণে জানা যায়, আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে দেবিদ্বার উপজেলার ফতেহাবাদ ইউনিয়নের নুরপুরে গত ৯ জুলাই আমেরিকা প্রবাসী সাজিদের ছুড়ির আঘাতে শান্ত নিহত হয়। এই ঘটনায় গুরুতর আহত হয় আরো চারজন। নিহত মেহেদী হাসান শান্ত ফতেহাবাদ ইউনিয়নের নুরপুর গ্রামের সরকার বাড়ির জাকির হোসেনের ছেলে। অভিযুক্ত সাজিব যুক্তরাষ্ট্রে পলাতক রয়েছেন