Tag Archives: একদিনের ব্যবধানে পাল্টে গেছে কুমিল্লা নগরী

একদিনের ব্যবধানে পাল্টে গেছে কুমিল্লা নগরী, চলছে ভোট উৎসব

 

ডেস্ক রিপোর্টঃ

দিনভর প্রার্থী ও সমর্থকদের প্রচার-প্রচারণায় সরব হয়ে উঠছে কুমিল্লা নগরী। ব্যানার ও পোস্টারে ছেয়ে গেছে নগরীর অলিগলি। প্রতীক বরাদ্দের পরই প্রার্থীরা ঘুরছেন ভোটারদের ধারে ধারে। বসে নেই তাদের কর্মী-সমর্থকরাও। পাড়া-মহল্লায় প্রার্থীদের পক্ষে ভোট প্রার্থনা করছেন তারা। একদিনের ব্যবধানে পাল্টে গেছে নগরীর চিত্র। সর্বত্র চলছে ভোট উৎসব।

এদিকে প্রথম দিনেই প্রচার-প্রচারণার ব্যস্ত সময় পার করেন প্রার্থী ও তাদের সমর্থকরা। অপর দিকে প্রচারণার সময় আচরণবিধি লঙ্ঘনের দায়ে নৌকা প্রার্থী আরফানুল হক রিফাত ও স্বতন্ত্র প্রার্থী নিজাম উদ্দিন কায়সারকে গুণতে হয়েছে ৬০ হাজার টাকা জরিমানা। দুর্বৃত্তদের পোস্টার ছিঁড়ে ফেলা ও মাইক ভাঙচুরের অভিযোগ করেছেন সদ্য বিদায়ী মেয়র।

সরেজমিন ঘুরে দেখা যায়, সকাল পৌনে ১১টার দিকে স্বেচ্ছাসেবক দলের বহিষ্কৃত নেতা নিজাম উদ্দিন কায়সার নগরীর কান্দিরপাড় থেকে শত শত নেতাকর্মী নিয়ে একটি মিছিল বের করেন। বেলা ১১টার দিকে নগরীর ১৩ নম্বর ওয়ার্ডের চৌমুহনী এলাকায় আচরণবিধি লঙ্ঘনের দায়ে তাৎক্ষণিক ৫০ হাজার টাকা জরিমানা আদায় করা হয়।

অপরদিকে আচরণবিধি ভঙ্গ করে দুপুর সাড়ে ১২টার দিকে নগরীর ঢুলিপাড়া এলাকায় যানবাহনে পোস্টার লাগানোর দায়ে নৌকার প্রতীকের প্রার্থী আরফানুল হক রিফাতকে ১০ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়েছে।

অন্যদিকে বেলা সাড়ে ১১টায় নগরীর ১২ নম্বর ও ৬ নম্বর ওয়ার্ডের নেতাকর্মীদের নিয়ে গণসংযোগে বের হন সদ্য বিদায়ী মেয়র মনিরুল হক সাক্কু। দুপুর ২টা পর্যন্ত তিনি এ দুই ওয়ার্ডের বিভিন্ন এলাকায় গণসংযোগ করেন। শুরুতেই তিনি অভিযোগ করেন, শুক্রবার (২৭ মে) গভীর রাতে হেলমেট পরিহিত কতিপয় দুষ্কৃতকারী মোটরসাইকেল যোগে এসে নগরীর বিভিন্ন এলাকায় প্রায় তিন হাজার পোস্টার ছিঁড়ে ফেলে। পরে ওই স্থানে নৌকার পোস্টার ঝুলতে দেখি।

এ ছাড়া ইসলামী আন্দোলনের রাশেদুল ইসলাম (হাতপাখা) এবং নাগরিক কমিটির স্বতন্ত্র মেয়র প্রার্থী কামরুল আহসান বাবুল (হরিণ) ও তাদের সমর্থকরা দিনভর গণসংযোগ ও প্রচারণা চালিয়েছেন।

এ বিষয়ে আরফানুল হক রিফাত বলেন, নির্বাচন এলেই বিএনপি তাদের প্রার্থীদের বহিষ্কার কারে বলেন নির্বাচনে অংশ নিবেন না। এটা তাদের পুরনো কৌশল। এর আগেও আমরা দেখেছি ভোটের আগে প্রার্থীকে বহিষ্কার করে আর ভোটে জিতলে ফুল দিয়ে বরণ করে নেন। জনগণ তাদের এ কৌশল বুঝে গেছে। কুমিল্লার মানুষ এবার নৌকাকেই ভোট দিবেন। এ নির্বাচনে তাদের বহিষ্কার কৌশল কোন কাজে আসবে না।

কুসিকের সাবেক মেয়র মনিরুল হক সাক্কু বলেন, আমার জনপ্রিয়তায় দেখে প্রতিপক্ষ গভীর রাতে হেলমেট পরে পোস্টার ছিঁড়ে ফেলে। আমি এ ঘটনার প্রতিবাদ জানাই। এ সিটিতে পরপর দুইবার আমি বিজয় হয়েছি। এবারও হবো ইনশাআল্লাহ। কোন ষড়যন্ত্র কাজে আসবে না।

স্বতন্ত্র মেয়র প্রার্থী সাবেক স্বেচ্ছাসেবক দলের নেতা নিজাম উদ্দিন কায়সার বলেন, ১৫ জুন কুমিল্লার জনগণ অন্যায়-অত্যাচার, অপশাসন ও দুর্নীতির জবাব দেবে। কারণ আপনারা দেখতে পেয়েছেন গত দুই দিনের গণসংযোগে স্বেচ্ছায় যেভাবে হাজার হাজার মানুষ উপস্থিত হচ্ছেন। এটি পরিবর্তনের সুর। ঘোড়া প্রতীকে এবার গণজোয়ার উঠেছে। ভোটাররা আমাকে ভাল বাসেন বলেই আজ আপনারা এই গণজোয়ার দেখতে পাচ্ছেন।

কুমিল্লা সিটি নির্বাচনের রিটার্নিং কর্মকর্তা শাহেদুন্নবী চৌধুরী বলেন, এক মেয়র প্রার্থীর পোস্টার ছিঁড়ার অভিযোগ পেয়েছি। এটি পুলিশ প্রশাসনকে তদন্ত করে ব্যবস্থা নিতে বলা হয়েছে। এছাড়া যে কোনো অভিযোগ পেলে ক্ষতিয়ে দেখার চেষ্টা করছি। প্রতিদিন ১০ জন করে নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মাঠে কাজ করছেন।

কুমিল্লা সিটি করপোরেশন নির্বাচনে ৫ মেয়র প্রার্থী, ২৭ ওয়ার্ডে কাউন্সিলর পদে ১০৬ এবং সংরক্ষিত নারী কাউন্সিলর পদে ৩৬ জন প্রার্থী প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন। এবার সিটি করপোরেশনের ২৭টি ওয়ার্ডের ১০৫টি কেন্দ্রে ইলেকট্রনিক ভোটিং মেশিনে (ইভিএম) নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। এ সিটিতে মোট ভোটার দুই লাখ ২৯ হাজার ৯১৮। তাদের মধ্যে নারী ভোটার এক লাখ ১৭ হাজার ৯২। পুরুষ ভোটার এক লাখ ১২ হাজার ৮২৬।

সূত্র: জাগো নিউজ