Tag Archives: কুমিল্লার পাচঁথুবীর বিভিন্ন সীমান্তে মাদকের রমরমা ব্যবসা

কুমিল্লার পাচঁথুবীর বিভিন্ন সীমান্তে মাদকের রমরমা ব্যবসা

 

ইসতিয়াক আহমেদ / শাহ ইমরান:

কুমিল্লা বাংলাদেশের একটি সীমান্তবর্তী জেলা শহর। সম্প্রতি কুমিল্লা জেলার সীমান্তবর্তী এলাকাগুলোতে চলছে মাদকের রমরমা ব্যবসা। কুমিল্লা আদর্শ সদর উপজেলার পাচথুবি ইউনিয়নের বেশ কিছু এলাকায় দিবালোকেই চলছে মাদক ব্যবসা। উল্লেখ্য যে, সুবর্ণপুর, বাড়াইপুর, পশ্চিম মাঝিগাছা, কোটেশ্বর, বাঘবের, নিশ্চিন্তপুর, জালুয়াপাড়া, খিলপাড়া, শিবের বাজার, শাহপুর, গোলাবাড়ি এবং শালধর ব্রীজ ভারত সীমান্তবর্তী এলাকা বিধায় মাদকের প্রবণতা দিন দিন বেড়েই চলেছে।

স্থানীয় বিভিন্ন সূত্রে থেকে জানা যায় এই সব সীমান্তবর্তী এলাকাগুলোতে ফেন্সিডিল, ইয়াবা, হেরোইন গাঁজাসহ অন্যান্য মাদকদ্রব্য প্রকাশ্য দিবালোকেই বেচাকেনা করে যাচ্ছে মাদক ব্যবসায়ীরা।

এসব চিহ্নিত মাদক ব্যবসায়ী ও মাদক সেবীদের প্রকাশ্য বিচরণে অতিষ্ঠ হয়ে পড়েছে এলাকাবাসী। কেউ কিছু বললে তাদের ওপর নেমে আসে খড়গ।

এলাকাবাসী ও স্থানীয় বিভিন্ন সূত্র জানায়, সুবর্ণপুর, বাড়াইপুর, পশ্চিম মাঝিগাছা, কোটেশ্বর, বাঘবের, নিশ্চিন্তপুর, জালুয়াপাড়া, শাহপুর, গোলাবাড়ি এবং শালধর ব্রীজের কিছু অংশ মাদক সেবীদের নিরাপদ স্থান হওয়ায় দিনরাত নির্বিঘ্নে চলে তাদের ফেনসিডিল, ইয়াবা, গাঁজা ও হেরোইনসহ বিভিন্ন ধরণের মাদক সেবনের কাজ।

তবে মাদক সেবীদের আনাগোনা বেশী লক্ষ্য করা যায় বিকেল থেকে গভীর রাত পর্যন্ত। বিকেলের পর থেকে শুরু হয় এই সব এলাকার উপর দিয়ে শত শত মোটরসাইকেল, সিএনজি চলাচল। রাত যতবাড়ে মাদক সেবীদের জন্য এই সব এলাকা পরিণত হয় অভয়ারণ্য।

নাম প্রকাশ না করার শর্তে এলাকার অনেকে জানিয়েছেন, এই সব এলাকার বেশ কিছু দোকানপাটেও চলে মাদকের ব্যবসা। আর ওইসব দোকান থেকে দূর দূরান্তের আসা বিভিন্ন মাদকসেবী ইয়াবা, ফেনসিডিল ও হেরোইন সেবন ও ক্রয় করে থাকে।

আর এসব মাদক ব্যবসায়ীদের আশ্রয় প্রশ্রয় দিয়ে থকেন এলাকার বেশ কিছু প্রভাবশালী রাজনৈতিক ব্যক্তি। প্রত্যেকটি এলাকায় আছে একজন করে গডফাদার যাদের ছত্রছায়ায় মাদক ব্যবসায়ীরা অবাঁধে মাদক ব্যবসা চালালেও এলাকার সাধারন মানুষ তাদের বিরুদ্ধে মুখ খোলার সাহস পায় না।

নাম প্রকাশ্যে অনিচ্ছুক ভুক্তভোগী একজন সচেতন ব্যক্তি ক্ষোভ প্রকাশ করে বলেন, এসব মাদক ব্যবসায়ীদের বিরুদ্ধে পুলিশসহ সংশ্লিষ্ট বিভিন্ন দপ্তরে জানানোর পর, প্রশাসন অভিযান পরিচালনা করে কিছু মাদক ব্যবসায়ীদের আটক করে। কিছু দিন পর জেল থেকে জামিনে বের হয়ে মাদক ব্যবসায়ীরা পুনরায় মাদক ব্যবসা শুরু করে। যার কারণে বন্ধও হচ্ছে না তাদের মাদক ব্যবসা।

এসব মাদকের হাট বন্ধে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহনসহ সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের হস্তক্ষেপ কামনা করেছে ভূক্তভোগী পাঁচথুবী ইউনিয়নের এলাকাবাসী।

মাদক ব্যবসা বন্ধে ও মাদক ব্যবসায়ীদের বিরুদ্ধে কোন ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে কি না এ বিষয়ে জানতে চাইলে অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (সদর সার্কেল) কুমিল্লা মোঃ সোহান সরকার (পিপিএম) জানান, মাদক নিয়ন্ত্রণে আমরা প্রতিনিয়ত কাজ করে যাচ্ছি। আমরা প্রতিদিন মাদকদ্রব্যসহ মাদক ব্যবসায়ী আটক করছি। যদি আমাদেরকে কেউ সুনির্দিষ্ট তথ্য দেয় তাহলে মাদক ব্যবসায়ীদের বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা গ্রহণ করবো।