Tag Archives: কুমিল্লা

চৌদ্দগ্রামে বিদ্যুৎ স্পৃষ্টে গৃহবধুর মৃত্যু

ফখরুদ্দীন ইমন:

কুমিল্লার চৌদ্দগ্রামে বেড়াতে এসে শুক্রবার বিকালে বাবার বাড়িতে বিদ্যুৎ স্পৃষ্ট হয়ে মুনা আক্তার (২০) নামে এক গৃহবধূর মৃত্যু হয়েছে।

নিহত মুনা আক্তার উপজেলার কালিকাপুর ইউনিয়নে সোনাপুর গ্রামের মো: আবুল কালামের মেয়ে ও একই ইউনিয়নের আব্দুল্লাহপুর গ্রামের মালয়েশিয়া প্রবাসী মোহাম্মদ হাসান এর স্ত্রী।

হাবিবা আক্তার নামে নিহতের নয় মাস বয়সী এক কন্যা সন্তান রযেছে। শনিবার (২০ এপ্রিল) বিকালে বিষয়টি নিশ্চিত করেন নিহতের বড় ভাই মোহাম্মদ রাশেদ।

জানা গেছে, পবিত্র ঈদুল ফিতরের সময় একমাত্র কন্যা সন্তান সহ বাবার বাড়িতে বেড়াতে আসেন গৃহবধূ মুনা আক্তার। বেড়ানো শেষে শুক্রবার (১৯ এপ্রিল) বিকালেই স্বামীর বাড়ীতে যাওয়ার কথা ছিলো। দুপুরের খাওয়া-দাওয়া শেষ করে স্বামীর বাড়িতে যাওয়ার লক্ষ্যে ব্যাগেজ গোছাচ্ছিলেন গৃহবধূ মুনা। পরিবারের লোকজনের অগোচরে মুনার বাবার বাড়ীর বসতঘরের দরজার সাথে থাকা বৈদ্যুৎ তার লিক হয়ে দরজায় বিদ্যুৎ সরবরাহ হয়। একপর্যায়ে মুনা ওই দরজা স্পর্শ করলে বিদ্যুৎ স্পৃষ্ট হয়ে সে গুরুতর আহত হয়। পরে পরিবারের লোকজন তাকে উদ্ধার করে চৌদ্দগ্রাম উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে গেলে সেখানকার কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষনা করেন। শুক্রবার রাত এগারটায় স্বামীর বাড়িতে জানাযা শেষে তাকে পারিবারিক কবরস্থানে দাফন করা হয়েছে। মায়ের আকষ্মিক মৃত্যুতে অবুঝ শিশু হাবিবার অপলক চাহনীতে যেন হাহাকার ফুটে উঠেছে।

পরিবারে নেমে এসেছে শোকের ছায়া। স্বজনদের গগনবিদারী চিৎকারে আকাশ-বাতাস ভারী হয়ে উঠেছে।

চৌদ্দগ্রামে ৫০ কেজি গাঁজা সহ ৬ মাদক কারবারি আটক

ফখরুদ্দীন ইমন:

কুমিল্লার চৌদ্দগ্রামে থানা পুলিশের বিশেষ অভিযানে ৫০ কেজি গাঁজাসহ ছয় মাদক ব্যবসায়ীকে আটক করা হয়েছে।

আটককৃতরা হলো, নারায়ণগঞ্জ জেলার ফতুল্লা থানার গাবতলী নতুন বাজার (মাজদাইর গোরস্থান সংলগ্ন তুহিন মিয়ার ভাড়াটিয়া) এলাকার মৃত মাসুদ পারভেজ এর ছেলে হায়দার আহম্মেদ উৎসব প্রকাশ উৎসব শিকদার (৩০), একই থানার পশ্চিম ইসদাইর গ্রামের আলমাছ ঢালীর ছেলে মাহফুজুর রহমান প্রকাশ মুন্না (৩০), মুন্সীগঞ্জ জেলার টঙ্গীবাড়ী থানার বাহারপাড়া গ্রামের মৃত হয়দার আলীর প্রকাশ হাসান আলীর ছেলে মো: রাকিব হোসেন প্রকাশ রকি (৩৫), লক্ষীপুর জেলার রামগঞ্জ থানার করপাড়া গ্রামের আবুল খায়েরের ছেলে সুফিয়ান হোসেন সজল (২৪), জামালপুর জেলার ইসলামপুর থানার নোয়াপাড়া গ্রামের আব্দুল বাসেত মন্ডলের ছেলে মো: ইব্রাহিম (২৬) ও কুমিল্লার চৌদ্দগ্রাম উপজেলার পৌরসভাধিন কমলপুর গ্রামের মৃত শিহাবুল আলম মিলন এর ছেলে রবিউল আলম পিয়াস (২৬)।

বুধবার বিকালে তথ্যটি নিশ্চিত করেন চৌদ্দগ্রাম থানার সেকেন্ড অফিসার উপ-পরিদর্শক আলমগীর হোসেন।

জানা গেছে, গোপন সংবাদের ভিত্তিতে বুধবার (০৩ এপ্রিল) সকাল পৌঁনে সাতটায় চৌদ্দগ্রাম থানার উপ-পরিদর্শক মো: মশিউর আলম সঙ্গীয় ফোর্স সহ চৌদ্দগ্রাম পৌরসভাধিন কমলপুর রাস্তার মাথা এলাকায় চৌদ্দগ্রাম উপ-কর কমিশনারের কার্যালয়ের সামনে মহাসড়কের ঢাকামুখী লেনে বিশেষ অভিযান চালিয়ে চটের বস্তায় স্কচটেপ মোড়ানো মোট ১৩ পোটলায় ৫০ কেজি গাঁজা উদ্ধার করা হয়।

এ সময় ৬ মাদক কারবারিকে আটক করে পুলিশ। পরে আটককৃতদের বিরুদ্ধে থানায় মাদক আইনে মামলা দায়ের শেষে বুধবার দুপুরে আদালতের মাধ্যমে তাদেরকে জেলহাজতে প্রেরণ করা হয়। আটককৃত রকির বিরুদ্ধে ৫টি মাদক মামলা সহ মোট ৬টি মামলা, উৎসব এর বিরুদ্ধে ৪টি মাদক মামলা সহ মোট ৫টি মামলা, মাহফুজ মুন্নার বিরুদ্ধে ১টি মাদক ও ১টি ধর্ষণের মামলা বিচারাধিন রয়েছে বলে জানিয়েছে পুলিশ।

এ বিষয়ে চৌদ্দগ্রাম থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) বলেন, ‘গোপন সংবাদের ভিত্তিতে অভিযান চালিয়ে ৫০ কেজি গাঁজা সহ ৬ মাদক কারবারিকে আটক করা হয়েছে। আটককৃতদের বিরুদ্ধে থানায় আইনগত ব্যবস্থা শেষে বুধবার দুপুরে আদালতের মাধ্যমে তাদেরকে জেলহাজতে প্রেরণ করা হয়েছে। আটককৃত ৩ আসামীর বিরুদ্ধে দেশের বিভিন্ন থানায় মাদক মামলা সহ একাধিক মামলা রয়েছে। মাদকের বিরুদ্ধে থানা পুলিশের অভিযান অব্যাহত থাকবে।’

চৌদ্দগ্রামে ভ্রাম্যমান আদালতের অভিযানে ২ ব্যবসায়ীকে ১ লাখ টাকা জরিমানা

ফখরুদ্দীন ইমন:

কুমিল্লার চৌদ্দগ্রামে পবিত্র মাহে রমজান উপলক্ষে ভোক্তা পর্যায়ে নিরাপদ খাদ্য নিশ্চিতের লক্ষ্যে বিশেষ ভ্রাম্যমান আদালত পরিচালনা করে দুই ব্যবসায়ীকে ৫০ হাজার টাকা করে মোট এক লাখ টাকা জরিমানা করেছেন উপজেলা নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট।

বুধবার (০৩ এপ্রিল) বিকালে চৌদ্দগ্রাম উপজেলা নির্বাহী অফিসার ও উপজেলা নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মোহাম্মদ রহমত উল্লাহ চৌদ্দগ্রাম খাদ্য গুদামের বিপরীত পাশে মহাসড়কের চট্টগ্রামমুখী লেনে থানা গেইটের দক্ষিণ পাশে মিজানের কলার আড়ৎ এ অভিযান চালিয়ে বিষাক্ত ক্যামিকেল দ্বারা মাত্র এক ঘন্টার মধ্যে কলা পাকানোর অভিযোগে ওই কলা ব্যবসায়ীকে ৫০ হাজার টাকা জরিমানা করেন।

অভিযানকালে অন্যান্য ব্যবসায়ীদেকেও এ ব্যাপারে সতর্ক করা হয়। এছাড়াও একই দিন বিকালে উপজেলা নির্বাহী অফিসার উপজেলার চিওড়া ইউনিয়নের ধোড়করা বাজার এলাকায় ভ্রাম্যমান আদালত পরিচালনা করে অবৈধভাবে ডিস ব্যবসা পরিচালনা করায় এক ডিস ব্যবসায়ীকে ৫০ হাজার টাকা জরিমানা করেন নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট। এ সময় ভ্রাম্যমান আদালতকে সার্বিক সহযোগিতা করেন চৌদ্দগ্রাম পৌরসভা সেনেটারী কর্মকর্তা ও নিরাপদ খাদ্য পরিদর্শক মো: ইমাম হোসেন সজীব, চৌদ্দগ্রাম থানার উপ-পরিদর্শক রুহুল আমিনের নেতৃত্বে থানা পুলিশের একটি টিম।

এ বিষয়ে চৌদ্দগ্রাম উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোহাম্মদ রহমত উল্লাহ জানান, ‘রমযানকে উপলক্ষ করে কতিপয় অসাধু ব্যবসায়ী বিষাক্ত ক্যামিকেল মিশিয়ে মাত্র এক ঘন্টার মধ্যে কাঁচা কলা পাকানোর পর বাজারজাত করছে, এমন সুনির্দিষ্ট অভিযোগের প্রেক্ষিতে থানার দক্ষিণ পাশের একটি কলার আড়ৎ এ ভ্রাম্যমান আদালত পরিচালনা করে ঘটনার সত্যতা পাওয়ায় ওই ব্যবসায়ীকে ৫০ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়।

এছাড়াও অবৈধভাবে ডিস ব্যবসা পরিচালনা করার অভিযোগে ধোড়করা বাজার এলাকার এক ডিস ব্যবসায়ীকে ৫০ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়। নিরাপদ খাদ্য নিশ্চিত ও অবৈধ ব্যবসা বন্ধে উপজেলার প্রশাসনের তৎপরতা অব্যাহত থাকবে।’

চান্দিনায় কাভার্ড ভ্যানের চাপায় পথচারী ভিক্ষুক নিহত

চান্দিনা প্রতিনিধি:

কুমিল্লার চান্দিনায় সড়ক পারাপারের সময় ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কে কাভার্ড ভ্যানের চাপায় পিষ্ট হয়ে পরী বেগম (৬০) নামে এক পথচারী ভিক্ষুক নিহত হয়েছে।

বুধবার (২০ মার্চ) সকাল ১০টায় ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কের মাধাইয়া বাস স্টেশন এলাকায় এ দুর্ঘটনা ঘটে।

তিনি উপজেলার মাধাইয়া ইউনিয়নের সোনাপুর গ্ৰামের শহীদ ভিক্ষুকের স্ত্রী।

স্থানীয় জানান, পরী বেগম ও তার স্বামী প্রতিদিন ভিক্ষা করে জীবিকা নির্বাহ করতো। সকাল ১০টার দিকে মহাসড়ক পারাপার হতে গিয়ে অজ্ঞাত একটি কাভার্ডভ্যানের চাপায় পিষ্ট হয়ে ঘটনাস্থলেই নিহত হন তিনি। কাভার্ডভ্যানটি তাকে চাপা দিয়ে দ্রুত গতিতে স্থান ত্যাগ করায় গাড়িটিকে শনাক্ত করা যায়নি।

এবিষয়ে ইলিয়টগঞ্জ হাইওয়ে থানার ইন-চার্জ (ইন্সপেক্টর) মনজুরুল আলম মোল্লা জানান, বিষয়টি সম্পর্কে তাৎক্ষনিক ভাবে আমাদের কেউ জানায়নি। সন্ধ্যায় সাংবাদিকদের মাধ্যমে বিষয়টি জেনেছি।

কুমিল্লার চৌদ্দগ্রামে মহাসড়কের পাশ থেকে লাশ উদ্ধার

ফখরুদ্দীন ইমন:

কুমিল্লার চৌদ্দগ্রামে ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কের গাংরা এলাকা থেকে মুখে স্কচটেপ মোড়ানো অবস্থায় মো: আব্দুল মমিন (৪৩) নামে এক ব্যক্তির লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ।

সে জামালপুর জেলার মেলান্দ থানার মো: ইয়াস আলী আখন্দ এর ছেলে।

বুধবার (২০ মার্চ) দুপুরে তথ্যটি নিশ্চিত করেন চৌদ্দগ্রাম থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) ত্রিনাথ সাহা।

জানা গেছে, বুধবার সকাল অনুমান সাড়ে এগারটায় ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কের গাংরা এলাকায় মুখে স্কচটেপ বাধা অবস্থায় মহাসড়কের পশ্চিম পাশে একটি লাশ দেখতে পায় স্থানীয়রা। পরে জাতীয় জরুরি সেবা ৯৯৯ এর মাধ্যমে স্থানীয়রা পুলিশে খবর দিলে তাৎক্ষণিক চৌদ্দগ্রাম থানার উপ-পরিদর্শক মো: রুহুল আমিন সঙ্গীয় ফোর্স সহ ঘটনাস্থলে পৌঁছে সুরতহাল শেষে লাশ উদ্ধার করে থানায় নিয়ে আসেন। প্রযুক্তির সহায়তায় নিহতের পরিচয় সনাক্তের পর স্বজনদেরকে খবর দেয়া হয়েছে। নিহতের বাড়ী জামালপুর জেলার মেলান্দ থানায় বলে জানিয়েছে পুলিশ। পুলিশ ধারণা করছে, এটি একটি পরিকল্পিত হত্যা। পরে ময়নাতদন্তের জন্য লাশ কুমিল্লা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের মর্গে প্রেরণ করা হয়েছে।

এ বিষয়ে চৌদ্দগ্রাম থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) ত্রিনাথ সাহা বলেন, ‘উপজেলার জগন্নাথদীঘি ইউনিয়নের গাংরা এলাকায় মহাসড়কের ঢাকামুখি লেনে রাস্তার পশ্চিম পাশে লাশ পড়ে থাকতে দেখে স্থানীয়রা খবর দিলে পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌঁছে সুরতহাল শেষে লাশ উদ্ধার ও পরিচয় সনাক্ত করে। নিহতের স্বজনদেরকে খবর দেয়া হয়েছে। ময়নাতদন্তের জন্য লাশ মর্গে প্রেরণ করা হয়েছে। প্রাথমিকভাবে এটিকে হত্যা বলেই ধারণা করা হচ্ছে। ময়নাতদন্তের রিপোর্ট আসলে বিস্তারিত বলা যাবে।’

কুমিল্লায় কোচিং সেন্টারে ঢুকে শিক্ষককে কুপিয়ে হত্যা

স্টাফ রিপোর্টার:

কুমিল্লায় মাদকাসক্ত যুবকের ছুরিকাঘাতে গোলাম রসুল (৪৬) নামে এক শিক্ষক নিহত হয়েছেন। বুধবার (৬ মার্চ) সন্ধ্যা সাড়ে ৭টার দিকে জেলার সদর দক্ষিণ উপজেলার গলিয়ারা ইউনিয়নের নলকুড়ি এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। পরে রাতে ঘাতককে আটক করে পুলিশে সোপর্দ করেন স্থানীয়রা।

নিহত গোলাম রসুল ওই এলাকার তোফাজ্জল হোসেনের ছেলে। তিনি একটি কিন্ডারগার্টেনের শিক্ষক ছিলেন। বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন সদর দক্ষিণ থানা পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আলমগীর হোসেন ভূঁইয়া।

স্থানীয়রা জানায়, নিহত গোলাম রসুল কিন্ডারগার্টেনে শিক্ষকতার পাশাপাশি বাড়ির পাশে কোচিং সেন্টার খুলে সেখানে শিক্ষার্থীদের পড়াতেন। একই গ্রামের শাহ আলমের ছেলে মো. শাফায়াত (৩৫) একজন মাদকাসক্ত। বুধবার সন্ধ্যায় কোনো কারণ ছাড়াই গোলাম রসুলের কোচিং সেন্টারে ঢুকে পড়েন শাফায়াত। এ সময় তাকে বের হয়ে যেতে বললে কোমরে থাকা ছুরি বের করে শিক্ষার্থীদের সামনেই গোলাম রসুলকে এলোপাতাড়ি কোপাতে থাকেন শাফায়াত। অতিরিক্ত রক্তক্ষরণে সেখানেই গোলাম রসুলের মৃত্যু হয়।

ওসি আলমগীর হোসেন ভূঁইয়া জানান, ঘটনার পর স্থানীয়দের সহযোগিতায় রাতেই ঘাতক শাফায়াতকে আটক করে থানায় আনা হয়েছে। নিহতের মরদেহ ময়নাতদন্তের জন্য কুমিল্লা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। এ ঘটনায় আইনি প্রক্রিয়া শেষ হলে ঘাতক শাফায়াতকে আদালতে তোলা হবে।

কুমিল্লায় অটোরিকশা চালককে হত্যায় তিনজনের মৃত্যুদণ্ড

স্টাফ রিপোর্টার:

কুমিল্লায় মো. নাজমুল হাসান (১৪) নামের এক সিএনজিচালিত অটোরিকশাচালককে হত্যার দায়ে তিনজনকে মৃত্যুদণ্ড এবং একজনকে সাত বছরের সশ্রম কারাদণ্ড দিয়েছেন আদালত।

বুধবার (৬ মার্চ) দুপুরে কুমিল্লার অতিরিক্ত জেলা ও দায়রা চতুর্থ আদালতের বিচারক মো. জাহাঙ্গীর হোসেন এ রায় দেন।

মৃত্যুদণ্ডপ্রাপ্তরা হলেন- কুমিল্লার বুড়িচং উপজেলার কোরপাই গ্রামের সেলিম মিয়ার ছেলে মো. সুমন মিয়া (২৬), মৃত আলম মিয়ার ছেলে মো. শিহাব (২০) ও নয় কামতা গ্রামের মৃত আমীর হোসেনের ছেলে মো. সোহেল মিয়া (২৮)। এ ছাড়া সাত বছরের সশ্রম কারাদণ্ডপ্রাপ্ত একই উপজেলার মৃত আবুল কাশেমের ছেলে আবুল বাশার (৩৮)।

কুমিল্লার অতিরিক্ত পাবলিক প্রসিকিউটর (এপিপি) অ্যাডভোকেট জাকির হোসেন জানান, ২০১৪ সালের ১৭ অক্টোবর বিকেলে মো. নাজমুল হাসান সিএনজিচালিত অটোরিকশা নিয়ে বাড়ি থেকে বের হয়। পরে ঘাতকরা তার পথরোধ করে তাকে জবাই করে হত্যা করে অটোরিকশাটি নিয়ে পালিয়ে যায়। নিহত অটোরিকশাচালক নাজমুল জেলার চান্দিনা উপজেলার মধ্যমতলা এলাকার আব্দুর রবের ছেলে। পরে নিহতের বাবা আব্দুর রব বাদী হয়ে বুড়িচং থানায় অজ্ঞাত আসামিদের নামে হত্যা মামলা দায়ের করেন।

মামলার পর বুড়িচং থানা পুলিশের তৎকালীন উপপরিদর্শক (এসআই) নজরুল ইসলাম তদন্তে নেমে চারজনের সংশ্লিষ্টতা পান। পরে তথ্যপ্রযুক্তির সহায়তায় ঘাতক সুমন ও বাশারকে গ্রেপ্তার করে আদালতে তোলা হলে তারা দায় স্বীকার করে জবানবন্দি দেন। এ সময় অপর দুই আসামি শিহাব ও সোহেলের সংশ্লিষ্টতা পাওয়া যায়।

পরবর্তীতে ২০১৫ সালের ৭ এপ্রিল সুমন, বাশার, শিহাব ও সোহেলকে অভিযুক্ত করে তদন্তকারী কর্মকর্তা নজরুল ইসলাম অভিযোগপত্র দাখিল করেন। পরে মামলাটি বিচারে এলে রাষ্ট্রপক্ষের ১৭ জন সাক্ষীর সাক্ষ্যগ্রহণ এবং আসামিদের স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি বিবেচনা করে আসামি সুমন, শিহাব ও সোহেলকে ফাঁসিতে ঝুলিয়ে মৃত্যুদণ্ডের আদেশ দেন আদালত। অপর আসামি বাশারকে সাত বছর সশ্রম কারাদণ্ডে দণ্ডিত করা হয়।

রায় ঘোষণার সময় সুমন, সোহেল ও বাশার কাঠগড়ায় উপস্থিত ছিলেন। মৃত্যুদণ্ডপ্রাপ্ত শিহাব পলাতক রয়েছেন।

কুমিল্লা নগরীর ২৭ নং ওয়ার্ডে হাতি প্রতিকের নারী টিমকে কাউন্সিলরের অফিসে বন্দী করে মারধর

স্টাফ রিপোর্টার:

কুমিল্লা সিটি কর্পোরেশন মেয়র পদে উপ- নির্বাচনে প্রচারণা চলাকালে নগরীর ২৭ নং ওয়ার্ডের চৌয়ারা বাজারে মেয়র প্রার্থী নুর উর রহমান মাহমুদ তানিমের পক্ষে গণসংযোগ করার সময় কাউন্সিলর হাসানের অফিসে হাতি প্রতিকের নারী টিমকে দীর্ঘক্ষণ আটক করে রাখে। এ সময় সমর্থক বাবুলকে মারধর করা হয়। নারী কর্মীদের মোবাইল ছিনিয়ে নেয়া হয়।

রোববার দুপুরে এ হামলা ও মারধরের ঘটনা ঘটে।

এই ঘটনায় মেয়র প্রার্থী তানিম রিটার্নিং কর্মকর্তা বরাবর একটি লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছেন।

কুমিল্লায় এক্সপার্ট আইটি পার্কের উদ্যোগে ২ শতাধিক ফ্রিল্যান্সারদের সম্মাননা ও সার্টিফিকেট প্রদান

স্টাফ রিপোর্টার :

ফ্রিলান্সিং কোর্স শেষ করে নিজেকে সফলতার প্রান্তে নিয়ে আসায় কুমিল্লায় এক্সপার্ট আইটি পার্কের উদ্যোগে শতাধিক ফ্রিল্যান্সারদের সম্মাননা ও সার্টিফিকেট প্রদান করা হয়।

শনিবার ( ২ মার্চ) কুমিল্লা টমছমব্রিজের হোটেল ওয়াসিস রেস্টুরেন্ট এর অডিটরিয়ামে সারাদেশ থেকে প্রশিক্ষণ নিয়ে ৭০ জনকে সম্মাননা ও প্রশিক্ষণ সম্পন্ন করায় ২০০ জনকে সার্টিফিকেট প্রদান করা হয়।

অনুষ্ঠানে এক্সপার্ট আইটি পার্কের সিইও এবং মেন্টর মোঃ ওমর ফারুক এর সভাপতিত্বে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন সামস আইটি জোনের সভাপতি ও শিক্ষা বিশেষজ্ঞ সামসুদ্দিন আহমেদ তালুকদার।

বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন আফজাল খান কারিগরিও কমার্স কলেজের আইসিটি প্রভাষক ও রাস্ট্রপতি পদকপ্রাপ্ত জাতীয় শেষ্ঠ শিক্ষক ইঞ্জিনিয়ার মো: নিজামুদ্দীন। ফাউন্ডার অফ আরিফ নোটস এর সত্তাধিকারি আরিফুল ইসলাম, এস.কে মিডিয়ার প্রতিষ্ঠাতা ও বৃহত্তর কুমিল্লা কন্টেন্ট ক্রিয়েটর অ্যাসোসিয়েশনের সভাপতি টিপু চৌধুরী, রিফাত এম হক ফাউন্ডার। ইন্সট্রাকটরি ফাউন্ডার রিফাত এম হকসহ আরো অনেকে।

বেইলি রোডের অগ্নিকাণ্ডে কুমিল্লার আপন দুইবোনসহ ৩ জন নিহত

স্টাফ রিপোর্টার:

‘বাবা আমাকে নিয়ে যাও, বাবা আমাকে বাঁচাও’- বেইলি রোডে লাগা আগুনে এভাবেই চিৎকার করতে করতে মারা যান রিয়া। মালয়েশিয়ায় পড়াশোনা করতেন তিনি। আজ শুক্রবার (১ মার্চ) বিকেলে মালয়েশিয়া ফিরে যাওয়ার কথা ছিল তার।

কান্নাজড়িত কণ্ঠে এভাবেই নিজের মেয়ের মৃত্যুর ঘটনার বর্ণনা দেন রিয়া ও আরিশার বাবা কোরবান আলী।

কুমিল্লার লালমাই উপজেলার পেরুল উত্তর ইউনিয়নের চরবাড়িয়া গ্রামের ব্যবসায়ী কোরবান আলীর তিন মেয়ে নিয়ে ঢাকায় থাকেন। বড় মেয়ে রিয়া মালয়েশিয়ায় একটি বিশ্ববিদ্যালয়ে ফ্যাশন ডিজাইনিং নিয়ে পড়াশোনা করেন। শেষ বর্ষের শিক্ষার্থী ছিলেন তিনি।

আজ বিকেলে রিয়ার মালয়েশিয়া ফিরে যাওয়ার কথা ছিল। যাওয়ার আগে ছোট বোন আরিশা ও সিটি কলেজে পড়ুয়া খালাত বোন লিমুকে নিয়ে কাচ্চি খেতে যান বেইলি রোডের ‘কাচ্চি ভাই’ রেস্টুরেন্টে।

খাওয়ার আগে হঠাৎ আচমকা আগুনের কুণ্ডলী দেখে বাবাকে ফোন দিয়ে বলেন, ‘বাবা আমাকে নিয়ে যাও। আমাকে এখান থেকে বাঁচাও।’

কোরবান আলী বলেন, মেয়ের ফোন পেয়ে আমি পাগল হয়ে যাই। আমার দুই রত্নের খোঁজে ঢাকা মেডিকেলের জরুরি বিভাগের মর্গে গিয়ে দেখি আমার দুই মেয়েসহ আমার পরিবারের তিন মেয়ের নিথর দেহ।

তিনি আরও বলেন, আমার মেয়েরা আমাকে ছেড়ে চলে গেছে। আমি এখন কী নিয়ে বাঁচব। আমার মেয়ের কেঁদে কেঁদে বলা কথাগুলো এখনো আমার কানে বাজছে।

এর আগে বৃহস্পতিবার (২৯ ফেব্রুয়ারি) রাত ৯টা ৫০ মিনিটের দিকে রাজধানীর বেইলি রোডে অবস্থিত কোজি কটেজ নামের বহুতল এই ভবনে আগুন লাগে। এতে এখন পর্যন্ত ৪৬ জনের মৃত্যু হয়েছে। এছাড়া, গুরুতর আহত অবস্থায় চিকিৎসা নিচ্ছেন আরও অন্তত ২২ জন। এ ঘটনায় নিহতের সংখ্যা আরও বাড়তে পারে বলে আশঙ্কা করা হচ্ছে।