Tag Archives: কোম্পানীগঞ্জ থানা

পড়তে বসতে বলায় মায়ের হিজাবে ফাঁস নিল ছেলে

পড়তে বসতে বলায় মায়ের হিজাবে ফাঁস নিল ছেলে

নোয়াখালী প্রতিনিধিঃ

নোয়াখালীর কোম্পানীগঞ্জে গলায় ফাঁস দিয়ে সপ্তম শ্রেণির এক শিক্ষার্থী আত্মহত্যা করেছে বলে জানা গেছে।

নিহত তাহসিন কবির সামির (১৪) উপজেলার বসুরহাট পৌরসভার ৫নম্বর ওয়ার্ডের মৌলভী ইয়াকুব সাহেবের বাড়ির হুমায়ন কবির ভুট্রোর ছেলে।

বৃহস্পতিবার (২১ সেপ্টেম্বর) বিকেলের দিকে খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করে। এর আগে, একই দিন সকালের দিকে বসুরহাট পৌরসভার ৫নম্বর ওয়ার্ডের মৌলভী ইয়াকুব সাহেবের বাড়িতে এ ঘটনা ঘটে।

পুলিশ জানায়, নিহত সামির স্থানীয় আবু নাছের উচ্চ বিদ্যালয়ের সপ্তম শ্রেণির ছাত্র ছিল। তার বাবা প্রবাসে থাকে। সে ঘরে প্রায় টিভি দেখা নিয়ে ব্যস্ত থাকত। আবার ছোট বোনের সাথে ঝগড়া-বিবাদে জড়াত। এ নিয়ে গত বুধবার রাত ১১টার দিকে তার মা তাকে শাসন করে পড়তে বসতে বলে এবং প্রবাসে তার বাবার সাথে মুঠোফোনে কথা বলতে বলে। সামির তার বাবার সাথে কথা বলতে অস্বীকৃতি জানায়। এরপর তার মা তার শয়নকক্ষে ঘুমাতে চলে যায়। সকাল ৯টার দিকে সামিরের মা ঘুম থেকে উঠে ছেলেকে তার রুমে ঢাকতে যায়। তিনি গিয়ে দেখেন ছেলে মায়ের হিজাব দিয়ে গলায় ফাঁস দিয়ে ঝুলে আছে।

কোম্পানীগঞ্জ থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) মজিবুর রহমান ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করেন। তিনি বলেন, খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করে। তবে মরদেহ উদ্ধার করে ময়না তদন্তের জন্য পাঠানো হবে কিনা এ বিষয়ে ওসি সাহেব এখনো আমাকে কোনো সিন্ধান্ত দেননি।

৬ বছর বয়সী ভাতিজিকে ধর্ষণ চেষ্টার অভিযোগ চাচার বিরুদ্ধে

 

নোয়াখালী প্রতিনিধিঃ

নোয়াখালীর কোম্পানীগঞ্জে ছয় বছর বয়সী ভাতিজিকে ধর্ষণের চেষ্টার অভিযোগে দূর সম্পর্কের চাচার বিরুদ্ধে থানায় লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছেন ভিকটিমের মা।

অভিযুক্ত যুবকের নাম নাম শাহাদাত হোসেন (২৬)। সে উপজেলার সিরাজপুর ইউনিয়নের ৯নম্বর ওয়ার্ডের শাহজাদপুর গ্রামের ছিদ্দিক চৌকিদার বাড়ির মৃত সোলেমান হোসেনের ছেলে।

বৃহস্পতিবার (২৭ এপ্রিল) বিকেলে এ ঘটনায় ভিকটিমের মা বাদী হয়ে থানায় এ লিখিত অভিযোগ দায়ের করেন।

লিখিত অভিযোগ সূত্রে জানা যায়, গত শুক্রবার ২১ এপ্রিল বেলা সাড়ে ১১টার দিকে ভিকটিম বাড়ির শিশুদের সাথে পাটি পাতার বাগানে খেলাধুলা করছিল। তখন প্রতিবেশী দূর সম্পর্কের চাচা শাহাদাত হোসেন ভিকটিমকে পাশের একটি বাড়িতে নিয়ে যায়। সেখানে বাড়ির সদস্যদের অনুপস্থিতিতে শাহাদাত তাকে একটি কক্ষে নিয়ে শরীরের বিভিন্ন স্পর্শকাতর জায়গায় হাত দেয় এবং ধর্ষণের চেষ্টা করে। ভয়ে ভুক্তভোগী শিশুর চিৎকার করলে শাহাদাত পালিয়ে যায়। পরে বিষয়টি ঘরোয়া সালিশে সমাধানের চেষ্টা করা হয়। কিন্তু সমাধান না হওয়ায় থানায় লিখিত অভিযোগ দায়ের করেন ভিকটিমের মা।

কোম্পানীগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো.সাদেকুর রহমান বলেন, এ ঘটনায় লিখিত অভিযোগ পেয়েছি। তদন্ত করে পরবর্তী আইনগত পদক্ষেপ নেওয়া হবে।

এএসআইয়ের বিরুদ্ধে মাল ক্রোকের ভয় দেখিয়ে টাকা আদায়ের অভিযোগ

নোয়াখালী প্রতিনিধিঃ

নোয়াখালীর কোম্পানীগঞ্জ থানার সহকারী উপ-পরিদর্শক (এএসআই) মো.সুমন হোসেনের বিরুদ্ধে এক প্রবাসীর স্ত্রীকে বসতঘরের মালপত্র ক্রোকের ভয় দেখিয়ে টাকা আদায়ের অভিযোগ পাওয়া গেছে।

শনিবার (৩০ জুলাই) দুপুর দেড়টার দিকে উপজেলার চরএলাহী ইউনিয়নের ৪নম্বর ওয়ার্ডের বেলাল হুজুরের বাড়ির সৌদি প্রবাসী ওমর ফারুকের স্ত্রীর সঙ্গে এ ঘটনা ঘটে।

ভুক্তভোগী প্রবাসীর স্ত্রী বিবি কুলসুম পারুল (৩০) বলেন, তার স্বামী ২০১৬ সালের উপজেলার চাপরাশিরহাট ইসলামী ব্যাংক থেকে ৪ লাখ ৯০ হাজার টাকা ঋণ নিয়ে দেশে ব্যবসা শুরু করেন। এরপর তার স্বামী বিদেশ চলে গেলে ২০১৯ ঋণখেলাপি হয়ে যায়। এ ঘটনায় ইসলামী ব্যাংক চাপরাশিরহাট শাখা আদালতে একটি মামলা দায়ের করেন। ওই মামলায় আদালত তার স্বামীর বিরুদ্ধে গ্রেফতারি পরোয়ানাও মালপত্র ক্রোকের আদেশ দেয়। গত ২ মাস আগে আমরা ব্যাংকের পাওনা ৪লাখ ৭৫ টাকা পরিশোধ করি। এরপর ব্যাংক আরও ২৮ হাজার টাকা পাওনা দাবি করলে গত ২৫ জুলাই বাকী ২৮ হাজার টাকাও পরিশোধ করা হয়। কিন্তু ব্যাংকের পাওনা পরিশোধের পর ওই কাগজপত্র এখনো আদালতে গিয়ে পৌঁছায়নি বলে জানান ব্যাংক কর্মকর্তারা।

পারুল অভিযোগ করে আরও বলেন, এক সপ্তাহ আগে আমার স্বামী সৌদি থেকে দেশে আসে। এমন খবর পেয়ে শনিবার দুপুরে কোম্পানীগঞ্জ থানার এএসআই মো.সুমন হোসেন আরেকজন পুলিশ কনস্টেবলসহ আমাদের বাড়িতে আসেন। ওই সময় আমার স্বামী বাড়িতে না থাকায় আমি তাদেরকে সকল ঘটনা খুলে বলি। এরপর এএসআই সুমন আমার সঙ্গে খারাপ ব্যবহার করে ঘর থেকে মালপত্র বাহির করতে উদ্যত হয় এবং ঘরে তালা মেরে দেওয়ার হুমকি দেয়। ওই সময় আমি এএসআই সুমনের কাছে জানতে চাইলে তিনি আদালতের মালপত্র ক্রোকের আদেশ দেখিয়ে বলেন, বেশি কথা বলতে পারবোনা। আমরা এসেছি আপনার সম্পত্তি নেওয়ার জন্য। পরবর্তীতে এ ঘটনা দফারফা করতে সে ২০ হাজার টাকা দাবি করে। এরপর প্রথমে তাকে ২ হাজার টাকা দেওয়া হয়, না মানলে আরও ৩হাজার টাকাসহ মোট ৫হাজার টাকা নিয়ে সে চলে যায়। এএসআই সুমন আরও বলে প্রথমে টাকা দিয়ে দিলে এতো ঝামেলা হতো না।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে অভিযুক্ত উপপুলিশ পরিদর্শক (এএসআই) মো.সুমন হোসেন বলেন,আমি মাল ক্রোকের একটি আদেশ নিয়ে সেখানে যাই সত্য। তবে মাল ক্রোকের ভয় দেখিয়ে কোন অর্থ গ্রহণ করিনি।

কোম্পানীগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো.সাদেকুর রহমান বলেন,বিষয়টি তার জানা নেই।

প্রতিবেশী শিশুকে ঘরে ডেকে নিয়ে ধর্ষণচেষ্টা

 

নোয়াখালী প্রতিনিধিঃ

নোয়াখালীর কোম্পানীগঞ্জে প্রতিবেশী পাঁচ বছর বয়সী এক শিশুকে নিজ ঘরে ডেকে নিয়ে ধর্ষণচেষ্টার অভিযোগ উঠেছে এক যুবকের বিরুদ্ধে।

শুক্রবার (১ জুলাই) এ ঘটনায় ওই ভিকটিমের নানি বাদী হয়ে কোম্পানীগঞ্জ থানায় নারীও শিশু নির্যাতন দমন আইনে মামলা দায়ের করেন। এর আগে গত শুক্রবার (২৪ জুন) উপজেলার চরকাঁকড়া ইউনিয়নের ৭নম্বর ওয়ার্ডে এ ঘটনা ঘটে।

অভিযুক্ত যুবকের নাম মো.সাদ্দাম হোসেন (৩২) সে উপজেলার ৪নং চরকাঁকড়া ইউনিয়নের ৭নম্বর ওয়ার্ডের আব্দুর রহমান হাফেজ বাড়ি ওরফে টিকা ওয়ালাগো বাড়ির মৃত আবুল হোসেনের ছেলে।

মামলা ও ভুক্তভোগীর পরিবার সূত্রে জানা যায়, ভুক্তভোগী শিশুটি নানির সাথে নানার বাড়িতে থাকে। কয়েক দিন আগে ওই শিশুর মা বাবার বাড়িতে বেড়াতে আসে। অভিযুক্ত সাদ্দাম হোসেন তাদের প্রতিবেশী হওয়ায় ওই শিশু প্রায় সময় আসামির বসত ঘরে গিয়ে তার মেয়ের সঙ্গে খেলাধুলা করত। গত শুক্রবার সকাল সাড়ে ৭টার দিকে ভিকটিমের মা তার মেয়েকে দেখতে না পেয়ে খোঁজাখুঁজি শুরু করে। খোঁজাখুঁজির এক পর্যায়ে শিশুটির মা আসামি সাদ্দাম হোসেনের বসত ঘরে গিয়ে দেখে সাদ্দামের স্ত্রী-মেয়ে একটি কক্ষে ঘুমিয়ে আছে। অপর কক্ষে আসামি সাদ্দাম ভিকটিমকে ধর্ষণের চেষ্টা করছে। ওই অবস্থায় ভিকটিমের মা শৌরচিৎকার করে কান্নাকাটি করলে আসামি ভিকটিমকে ছেড়ে দিয়ে তার মায়ের হাত-পা ধরে ক্ষমা চেয়ে এ ঘটনা কাউকে না বলার জন্য বলে অনুরোধ করে। আসামির স্ত্রী পরবর্তীতে বিষয়টি নিজে দেখে কান্নাকাটি করে শিশুটির মায়ের হাত-পা ধরে বিষয়টি মীমাংসা করার অনুরোধ করে। পরে ভিকটিমকে চিকিৎসার জন্য প্রথমে কোম্পানীগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নেওয়া হয়। সেখান থেকে উন্নত চিকিৎসার জন্য নোয়াখালী জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে কোম্পানীগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো.সাদেকুর রহমান বলেন, পাঁচ বছর বয়সী শিশুকে ধর্ষণের চেষ্টার অভিযোগে মামলা নেওয়া হয়েছে। তদন্ত করে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।