Tag Archives: ক্যাসিনো

আজকের কুমিল্লায় সংবাদ প্রকাশের পর ধর্মপুরে জুয়ার আসরে পুলিশের অভিযান: ১২ জন আটক

স্টাফ রিপোর্টার:

দৈনিক আজকের কুমিল্লার অনলাইন ভার্সনে গতকাল ৪ মে বিকেলে “কুমিল্লার ধর্মপুরে জমজমাট জুয়ার আসর: কিশোর-যুবক-দিনমজুর সর্বশান্ত হচ্ছে” শীর্ষক একটি সংবাদ প্রকাশিত হওয়ার ঘন্টা খানেকের মধ্যে কুমিল্লা পুলিশ সুপার ফারুক আহমেদের সার্বিক দিক নির্দেশনায় নগরীর ধর্মপুর ও রেলগেইটের আশেপাশের জুয়ার আসরগুলোতে ডিবি পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা আনোয়ারুল আজিমের নেতৃত্বে একটি সাড়াশি অভিযান পরিচালনা করে জুয়ার আসর পরিচালনাকারি মাষ্টারমাইন্ড মো: শাকিল হোসেনসহ ১২ জন জুয়াড়িকে আটক করা হয়। জেলা পুলিশের এ অভিযানের পর স্থানীয়রা সন্তোষ প্রকাশ করেছেন।

মঙ্গলবার সন্ধ্যা থেকে রাত পর্যন্ত এ অভিযান পরিচালিত হয়। এ সময় জুয়া খেলার সামগ্রীসহ নগদ ৪৭ হাজার ৫৫০ টাকা জব্দ করা হয়।

আটককৃত জুয়াড়িরা হলেন মো: দুলাল (৫০), আক্তার হোসেন (৪৫), মো: মাসুদ রানা (৪০), এরশাদ আলী (৩০), মো: রানা(৩৫), মো: রাসেল মিয়া (৩০), রওশন আলী (৪৫), ইব্রাহিম খলিল (৩০), মো: সুমন মিয়া (৩০), মো: ইকবাল হোসেন স্বপন (৩৭), মো: রুবেল মিয়া (২৫)  এবং জুয়ার আসর পরিচালনাকারি মো: শাকিল হোসেন (৩৩)।

ডিবি পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা আনোয়ারুল আজিম অভিযানের বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

স্থানীয় ব্যবসায়ী রজব হোসেন জানান, পুলিশ আজ ভাল একটি কাজ করছে। এই জুয়ার আসলগুলোর জন্য যুব সমাজ ধ্বংসের পথে চলে যাচ্ছে। এ অভিযানের ফলে মানুষ এখন সচেতন হবে।

পুলিশ সুপার ফারুক আহমেদ জানান,  জুয়া ও মাদক বিরোধী বিশেষ অভিযান অব্যাহত থাকবে। একটি সুষ্ঠ ও শিক্ষিত যুব সমাজ গঠনে এ বিশেষ অভিযান আরো বেগবান হবে।

 

ক্যাসিনো কান্ডে জড়িত কুমিল্লা ও ভোলার দুই এমপি !

ডেস্ক রিপোর্টঃ

ক্যাসিনো কাণ্ডের জের ধরে আওয়ামী লীগ ও এর সহযোগী সংগঠনের শতাধিক নেতাকর্মী ও তাদের স্বজনদের অবৈধ সম্পদের অনুসন্ধানে মাঠে নেমেছে দুর্নীতি দমন কমিশন। অভিযুক্তদের মধ্যে রয়েছে দুজন সংসদ সদস্যের নাম। তাদের নাম না জানালেও, দুদক কমিশনার মোজাম্মেল হক খান বলছেন, দুর্নীতির তথ্য-প্রমাণ পেলেই ব্যবস্থা নেয়া হবে, এক্ষেত্রে কোনো দল-মত দেখা হবে না।

ক্যাসিনোসহ আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীর নানা অনিয়মের বিরুদ্ধে অভিযান শুরুর পর পরই সামনে আসে এর সঙ্গে জড়িত আওয়ামী লীগ ও এর সহযোগী সংগঠনের নেতাকর্মীর নাম।

এ অবস্থায় অভিযুক্তদের বিষয়ে তথ্য সংগ্রহ শুরু করে দুদক। করণীয় ঠিক করতে সেগুনবাগিচার কার্যালয়ে সব উপপরিচালক, পরিচালক, মহাপরিচালক ও সচিবকে নিয়ে হয়েছে দুদকের বৈঠক। এসময় দেয়া হয় ভোলা ও কুমিল্লার দুই সংসদ সদস্য, একাধিক যুবলীগ নেতাসহ ক্ষমতাসীন দলের শতাধিক নেতাকর্মীর অবৈধ সম্পদ অনুসন্ধানের দিক-নির্দেশনা।

তবে আওয়ামী লীগের বেশ কজন দুর্নীতিবাজ নেতার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া হবে জানালেও, কোনো ব্যক্তি বিশেষের নাম বলতে রাজি হননি দুদক কমিশনার মোজাম্মেল হক খান।

ক্যাসিনো ও দুর্নীতিবিরোধী অভিযানে নাম আসেনি, এমন কিছু দুর্নীতিবাজ ব্যক্তির তথ্য-প্রমাণও সংগ্রহ করছে দুদক। আদালতে উপস্থাপনযোগ্য তথ্য পেলেই নেয়া হবে আইনি ব্যবস্থা।

দুর্নীতির বিরুদ্ধে প্রধানমন্ত্রীর জিরো টলারেন্স নীতির কথা বিবেচনায় রেখেই কাজ চলছে বলেও জানিয়েছে দুদক।

সূত্রঃ ইনডিপেন্ডেন্ট টিভি অনলাইন ।