Tag Archives: গবেষণায় আন্তর্জাতিক পুরস্কার পেলেন কুমিল্লার ছেলে আল-আমিন

গবেষণায় আন্তর্জাতিক পুরস্কার পেলেন কুমিল্লার ছেলে আল-আমিন

 

স্টাফ রিপোর্টারঃ

বাংলাদেশ কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ের (বাকৃবি) কৃষি অর্থনীতি বিভাগের সহকারী অধ্যাপক এ.কে.এম আবদুল্লাহ আল-আমিন গবেষণা কাজের স্বীকৃতিস্বরূপ ইন্টারন্যাশনাল সোসাইটি অব প্রিসিশন এগ্রিকালচার কর্তৃক ‘আউটস্টানডিং গ্র্যাজুয়েট স্টুডেন্ট অ্যাওয়ার্ড’ পেয়েছেন। দ্বিতীয় কোনো বাংলাদেশী হিসেবে তিনি এ পুরষ্কার অর্জন করেছেন।

বিষয়টি নিয়ে তার সঙ্গে যোগাযোগ করা হলে তিনি বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। এ.কে.এম আব্দুল্লাহ আল আমিনের বাড়ি কুমিল্লা আদর্শ সদর আমড়াতলী ইউনিয়নের ভুবনঘর গ্রামে। তিনি মরহুম আব্দুর রউফ মাস্টারের দ্বিতীয় ছেলে। দুই ভাই, এক বোন, ভাইদের মধ্যে সে দ্বিতীয়। তার স্ত্রী বাংলাদেশ পুলিশে সহকারী পুলিশ সুপার হিসেবে কর্মরত। তার এই অর্জনে পরিবার এবং এলাকাবাসী খুব আনন্দিত।

জানা যায়, ‘ইন্টারন্যাশনাল সোসাইটি অব প্রিসিশন এগ্রিকালচার’ প্রিসিশন এগ্রিকালচার বিষয়ে ১৫তম আন্তর্জাতিক সম্মেলনের আয়োজন করে। সম্মেলনটি গত ২৬ জুন থেকে ২৯ জুন পর্যন্ত যুক্তরাষ্ট্রের মিনিসোটাতে অনুষ্ঠিত হয়। এ সম্মেলনের সমাপনী অনুষ্ঠানে আউটস্টানডিং গ্র্যাজুয়েট স্টুডেন্ট অ্যাওয়ার্ড ঘোষণা করা হয়। পরে অ্যাওয়ার্ড প্রাপ্তদের সার্টিফিকেট এবং এককালীন অর্থ প্রদান করা হয়।

আরো জানা যায়, বিশ্বের বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয়ে যারা প্রিসিশন এগ্রিকালচার নিয়ে বিশেষ কাজ করেন তাদের কাজের স্বীকৃতিস্বরূপ এই পুরষ্কার দেয়া হয়। এ পুরষ্কারের জন্যে বিশ্ববিদ্যালয় ও গবেষণা সংস্থা থেকে নাম চাওয়া হয়। রিচার্স গ্রুপ থেকে নাম পাঠানো হয়। পরে ১০০ নম্বরের ভিত্তিতে এই পুরষ্কারের জন্যে নির্বাচন করা হয়। যেখানে গবেষকের ব্যক্তিগত অর্জনের একটি সংক্ষিপ্ত জীবন বৃত্তান্ত দিতে হয় এবং এখানে ৪০ নম্বর অন্তর্ভূক্ত থাকে। তার সাথে গবেষকের বর্তমান গবেষণার সারমর্মের জন্যে ৩৫ নম্বর থাকে। এছাড়া গবেষকের ভবিষ্যৎ কর্ম পরিকল্পনা তুলে ধরতে হয় যেখানে ১৫ নম্বর থাকে। বাকী ১০ নম্বর থাকে গবেষকের গবেষণা গ্রুপের সন্তুষ্টির উপর। যার একটি বিবরণ পাঠাতে হয়।

গবেষকের পক্ষে গবেষণা গ্রুপ সেটি সাবমিট করে। গবেষক জানান, যুক্তরাজ্যের হার্পার অ্যাডামস বিশ্ববিদ্যালয়ের গ্লোবাল ইন্সটিটিউট অব এগ্রিটেক ইকোনোমিক্স তার পক্ষে এ প্রস্তাব পাঠায়।
তিনি ছাড়া এ বছর আমেরিকা, কানাডা, ইসরাইল, ব্রাজিল এবং চীন থেকে আরো ১০ জন এ পুরষ্কারের জন্য মনোনীত হয়েছেন। বর্তমানে আল-আমিন যুক্তরাজ্যের হার্পার অ্যাডামস বিশ্ববিদ্যালয়ে এলিজাবেথ ক্রিক ফেলো হিসেবে ‘ফসল উৎপাদনে স্বায়ত্তশাসিত কৃষি রোবোটিক্সের অর্থনৈতিক বিশ্লেষণ’ বিষয়ে পিএইচডি করছেন।এছাড়াও তিনি স্নাতকে প্রথম হওয়ার জন্য ‘বিশ্বাবিদ্যালয় পুরস্কার’ ও প্রধানমন্ত্রী স্বর্ণপদক’ পায় ২০১৪ সালে।

গবেষক তার গবেষণার বিষয়ে বলেন, ‘আমি বর্তমানে আমার গবেষণার অংশ হিসেবে যুক্তরাজ্য এবং যুক্তরাষ্ট্রের পেক্ষাপটে স্বয়ংক্রিয় যন্ত্রের অর্থনৈতিক বিশ্লেষণ করছি। যার মূল লক্ষ্য হলো কৃষির ফলে পরিবেশের যে ক্ষতি হচ্ছে তা কমিয়ে এনে কিভাবে লাভবান করা যায়। যেখানে জমির উৎপাদনশালতা বৃদ্ধির উপরও গুরুত্ব আরোপ করা হচ্ছে।