Tag Archives: গলায় ফাঁস

গলায় ফাঁস দিয়ে জাবি ছাত্রীর আত্মহত্যা

গলায় ফাঁস দিয়ে জাবি ছাত্রীর আত্মহত্যা

ডেস্ক রিপোর্ট:

জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের (জাবি) পার্শ্ববর্তী আমবাগান এলাকার একটি বাসা থেকে গলায় ফাঁস লাগানো এক ছাত্রীর মরদেহ পাওয়া যায়। নিহতের নাম কাজী সামিতা আশকা।

বিশ্ববিদ্যালয়ের ইতিহাস বিভাগের ২০১৮-১৯ শিক্ষাবর্ষের শিক্ষার্থী তিনি। তার গ্রামের বাড়ি সাতক্ষীরা জেলার সদর উপজেলায়৷

বন্ধুর সঙ্গে ঝগড়া করে অভিমানে আশকা আত্মহত্যা করেছেন বলে ধারণা সহপাঠীদের।

শুক্রবার রাত সাড়ে ৮টার দিকে আমবাগান এলাকায় নিজ কক্ষের দরজা ভেঙে আশকার ঝুলন্ত দেহ উদ্ধার করেন সহপাঠীরা। এরপর সাভারের এনাম হাসপাতালে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন৷

সহপাঠীরা জানান, আমবাগান এলাকায় দ্বিতীয় বর্ষের (৫০ ব্যাচ) চারজন জুনিয়রের সঙ্গে বাসা ভাড়া করে থাকতেন আশকা। ঘটনার সময় তার রুমমেটরা কেউই বাসায় ছিলেন না৷ আশকার বন্ধু শাহরিয়ার জামান তুর্য খুলনা থেকে মোবাইল ফোনে জানালে ঘটনাস্থলে ছুটে যান রুমমেট ও সহপাঠীরা। এরপর সেখানে পৌঁছে তারা আশকাকে রুমের সিলিংয়ের সঙ্গে ঝুলন্ত অবস্থায় দেখতে পান তারা।

আশকার রুমমেট শর্মী ও মাইশা জানান, তারা শুক্রবার সন্ধ্যায় কেউই বাসায় ছিলেন না। মাইশা সন্ধ্যার কিছু আগে বাসা থেকে বের হওয়ার সময় আশকাকে তার বন্ধু তূর্যের সঙ্গে ভিডিও কলে ঝগড়া করতে দেখেন। পরে রাত সাড়ে আটটায় আশকার বান্ধবী সামিহাকে ফোন করে দ্রুত বাসায় যেতে বলেন তূর্য। বাসায় গিয়ে তারা রুমের দরজা বন্ধ দেখতে পান৷ এরপর বাইরে থেকে দরজা ভেঙে তারা তাকে উদ্ধার করে। প্রথমে বিশ্ববিদ্যালয়ের মেডিকেল সেন্টারে নিয়ে আসেন। পরে সেখানকার কর্তব্যরত চিকিৎসকরা তাকে সাভারের এনাম হাসপাতালের পাঠানোর কথা বলেন।

আশকার বন্ধু শাহরিয়ার জামান তূর্য খুলনার নর্থ ওয়েস্টার্ন বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী।

তিনি জানান, আশকার সঙ্গে আমার তেমন কোনো ঝগড়া হয়নি৷ আমরা ভিডিও কলে কথা বলছিলাম। পরে হঠাৎ করে কল কেটে যায়। পরে আর তাকে না পেয়ে আমি ওর বন্ধুদের বাসায় যেতে বলি।

বিশ্ববিদ্যালয়ের ইতিহাস বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক হোসনে আরা বেবী জানায়, আমাকে শিক্ষার্থীরা ফোন করে দ্রুত একটা অ্যাম্বুলেন্স জোগাড় করে দিতে বলে। কিন্তু তারা আমাকে আত্মহত্যার কথা জানায়নি৷ পরে আমরা হাসপাতালে এসে জানতে পারি যে আশকা আত্মহত্যা করেছে।

এনাম হাসপাতালের দায়িত্বরত চিকিৎসক ডা.অর্ণব জানান, আমাদের এখানে এক ছাত্রীকে রাত সাড়ে নয়টায় নিয়ে আসা হয়। ইসিজি রিপোর্ট দেখে আমরা বুঝতে পারি অন্তত এখানে আনার আধাঘণ্টা আগে তার মৃত্যু হয়েছে। এটা যেহেতু অস্বাভাবিক মৃত্যু, পুলিশ সুরতহাল প্রতিবেদন তৈরি করার পর আমরা মৃতদেহ পরিবারকে বুঝিয়ে দেব।

সাভার থানার দায়িত্বরত উপ-পরিদর্শক আল মামুন কবির জানায়, প্রাথমিকভাবে গলায় ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যা বলে ধারণা করছি। বন্ধুর সঙ্গে ঝগড়ার কারণে মেয়েটি আত্মহত্যা করতে পারে বলে জানতে পেরেছি। সাক্ষী এবং সুরতহাল প্রতিবেদন তৈরি শেষে আমরা পরিবারকে মৃতদেহ বুঝিয়ে দিতে পারব।

প্রেম করে বিয়ে, ৩ মাসের মাথায় তরুণীর মরদেহ উদ্ধার

নোয়াখালী প্রতিনিধিঃ

নোয়াখালীর সেনবাগে প্রেম করে বিয়ের তিন মাসের মাথায় শাহরিয়ার ইসলাম অবনি (২২) নামে এক নববধূর ঝুলন্ত মরদেহ উদ্ধার করেছে পুলিশ।

রোববার (৩১ জুলাই) সকালে মরদেহ ময়নাতদন্তের জন্য নোয়াখালী জেনারেল হাসপাতালের মর্গে পাঠানো হয়। এর আগে, শনিবার দুপুরের দিকে সেনবাগ পৌরসভার অস্ট্রোদ্রোন গ্রামের দরগা সংলগ্ন একটি পরিত্যাক্ত বাড়িতে এ ঘটনা ঘটে।

নিহত অবনি ওই গ্রামের সাইফুল ইসলামের মেয়ে ও কাদরা ইউনিয়নের ভাটিরচর গ্রামের মান্নান মেম্বার বাড়ির যোবায়ের স্ত্রী। তিন মাস আগে প্রেমের সম্পর্কে অবনি ও যোবায়ের বিয়ে হয়েছিল।

স্থানীয়রা জানায়, খবর পেয়ে পুলিশ শনিবার রাতে অবনির মরদেহ পিতার বাড়ি থেকে উদ্ধার করে থানায় নিয়ে আসে এবং রোববার সকালে ময়নাতদন্তের জন্য নোয়াখালী জেনারেল হাসপাতালের মর্গে প্রেরণ করে। ঘটনার দিন শনিবার বিকেল অনুমানিক ৩টা সময় পারিবারের লোকজনের অজান্তে অবনি পিতার বাড়ির পাশ্বে একটি পরিত্যাক্ত ঘরের আড়ার সাথে গলায় ফাঁস দেয়। পরে অবনিকে দেখতে না পেযে তার মা খোঁজাখুজি শুরু করে। এক পর্যায়ে বাড়ির পার্শ্ববর্তী একটি পরিত্যাক্ত ঘরে গিয়ে দেখেন মেয়ে অবনি ফাঁস দিয়ে ঝুলছে।

সেনবাগ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) ইকবাল হোসেন পাটোয়ারী জানান, এ ঘটনায় একটি অপমৃত্যু মামলা দায়ের করা হয়েছে। ময়নাতদন্তের রিপোর্ট হাতে পেলে পরবর্তী আইনী ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

অভাব অনটনে কৃষকের আ’ত্মহ’ত্যা

 

নোয়াখালী প্রতিনিধিঃ

নোয়াখালীর কোম্পানীগঞ্জে আর্থিক সংকটে পড়ে এক কৃষক গলায় ফাঁস দিয়ে আ’ত্মহ’ত্যা করেছেন বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে।

শুক্রবার (১ জুলাই) বিকেল ৪টার দিকে উপজেলার চরএলাহী ইউনিয়নের ৪ নম্বর ওয়ার্ড থেকে পুলিশ এ ম’রদেহ উদ্ধার করে। এর আগে বৃহস্পতিবার দিবাগত রাতে কোন এক সময়ে উপজেলার চরএলাহী ইউনিয়নের ৪ নম্বর ওয়ার্ডের হেলালের বাড়িতে এ ঘটনা ঘটে।

নি’হত কৃষকের নাম মো.হেলাল (৩৮) সে উপজেলার চরএলাহী ইউনিয়নের ৫ নম্বর ওয়ার্ডের ফজল হকের ছেলে।

চরএলাহী ইউনিয়নের ৪ নম্বর ওয়ার্ডের ইউপি সদস্য মো.বাহার উদ্দিন জানান, নিহত হেলাল দুই সন্তানের জনক। তিনি পেশায় একজন কৃষক ছিলেন। কিছু দিন আগে নদী ভাঙ্গনে তাঁর বাড়ি ঘর বিলীন হয়ে যায়। সে অভাব-অনটনে ছিল। কয়েক দিন তাঁর স্ত্রী দুই সন্তানকে নিয়ে বাবার বাড়িতে চলে যায়। চাষাবাদে বারবার ক্ষতি হওয়ায় ধার-দেনায় জড়িয়ে পড়েন তিনি। বৃহস্পতিবার দিবাগত রাতে তিনি নিজ বসত ঘরে একা ছিলেন। অভাব অনটনের এ চাপ সইতে না পেরে হেলাল নিজ বসত ঘরের আড়ার সঙ্গে ফাঁস দিয়ে আ’ত্মহ’ত্যা করেন। শুক্রবার দুপুর পৌনে ১২টার দিকে বাড়ির লোকজন তার ঝুলন্ত ম’রদেহ দেখতে পেয়ে পুলিশে খবর দেয়।

কোম্পানীগঞ্জ থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) রেজাউল ইসলাম বলেন, স্থানীয়দের ভাষ্যমতে অভাব অনটনে পড়ে ওই কৃষক গলায় ফাঁস দিয়ে আ’ত্মহ’ত্যা করে। খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে ম’রদেহ উদ্ধার করে। শুক্রবার সন্ধ্যার দিকে ম’রদেহ ময়নাতদন্তের জন্য মরদেহ নোয়াখালী জেনারেল হাসপাতালের মর্গে পাঠানো হবে।

চান্দিনায় অজ্ঞাত কারনে আত্মহত্যা করা কিশোরের ঝুলন্ত মরদেহ উদ্ধার

সাকিব আল হেলাল:

কুমিল্লার চান্দিনা উপজেলার মাইজখার ইউনিয়নের ভোমরকান্দি(দঃপাড়া) গ্রামে রুবেল (১৯) নামে এক কিশোরের ঝুলন্ত মরদেহ উদ্ধার করেছে চান্দিনা থানা পুলিশ।

মঙ্গলবার(২৩ মার্চ) সকাল ৯টায় চান্দিনা থানা পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে মরদেহ উদ্ধার করে ময়না তদন্তের জন্য কুমিল্লা মেডিকেল কলেজে পাঠায়।

রুবেল চান্দিনা উপজেলার মাইজখার ইউনিয়নের ভোমরকান্দি (বাশার মৌলভী বাড়ি) গ্রামের মৃত জামাল উদ্দিনের ছেলে।

স্থানীয় ও পুলিশ সূত্র জানায়, সোমবার (২২ মার্চ) দিবাগত রাতের কোন এক সময় অজ্ঞাত কারনে গলায় ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যা করে রুবেল।

সকালে পরিবারের লোকজন তাকে গলায় ফাঁস দেওয়া ঝুলন্ত অবস্থায় দেখে চিৎকার দিলে প্রতিবেশীরা ছুটে এসে পুলিশকে খবর দেয়।

এ বিষয়ে চান্দিনা থানা ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) শামসুদ্দিন ইলিয়াস বলেন, ‌‌‍আমি খবর পেয়ে দ্রুত ঘটনাস্থলে ফোর্স পাঠিয়েছি। মরদেহ উদ্ধার করে ময়না তদন্তের জন্য কুমিল্লা মেডিকেল কলেজে পাঠিয়েছি। ময়না তদন্তের পর মৃত্যুর প্রকৃত কারন জানা যাবে।এ বিষয়ে থানায় অপমৃত্যুর মামলা প্রক্রিয়াধীন।”