Tag Archives: গলে যাচ্ছে হিমালয়ের বরফ

গলে যাচ্ছে হিমালয়ের বরফ, ঝুঁকিতে এশিয়ার ২০০ কোটি মানুষ

 

আন্তর্জাতিক ডেস্কঃ

এশিয়ার হিন্দুকুশ হিমালয়ের হিমবাহ গলে যাওয়ার ফলে ২ বিলিয়ন মানুষের বিপদে পড়ার আশঙ্কা করছে বিজ্ঞানীরা। মঙ্গলবার কাঠমান্ডু-ভিত্তিক ইন্টারন্যাশনাল সেন্টার ফর ইন্টিগ্রেটেড মাউন্টেন ডেভেলপমেন্ট এর প্রতিবেদনে এ তথ্য তুলে ধরা হয়েছে। খবর আল-জাজিরা।

বিজ্ঞানীরা সতর্ক করে দিয়ে বলেছেন, এত দ্রুত গতিতে বরফ গলে গেলে এই শতাব্দীর মধ্যেই বরফের আয়তনের ৭৫ শতাংশ কমে যাবে। এতে পাহাড়ি অঞ্চল থেকে উৎপন্ন নদীগুলোর ভাটিতে বসবাসকারী প্রায় ২ বিলিয়ন মানুষ বিপজ্জনক বন্যার মুখোমুখি হতে পারে এবং পানির ঘাটতি দেখা দিতে পারে। খবর আল-জাজিরা।

মঙ্গলবার কাঠমান্ডু-ভিত্তিক ইন্টারন্যাশনাল সেন্টার ফর ইন্টিগ্রেটেড মাউন্টেন ডেভেলপমেন্ট এর রিপোর্টে সতর্ক করা হয়েছে। এতে বলা হয়, গ্রিনহাউজ গ্যাসগুলো যদি দ্রুত হ্রাস করা না হয় তবে আগামী বছরগুলোতে আকস্মিক বন্যা এবং তুষার ধসের সম্ভাবনা বাড়বে।

প্রতিবেদনে আরও বলা হয়, শুধু হিমালয়ে বসবাসকারী ২৪০ মিলিয়ন মানুষই নয় বরং পাহাড়ের ওপর দিয়ে বয়ে যাওয়া আরও ১২টি নদীর কাছে বসবাসকারী ১.৬৫ বিলিয়ন মানুষও পরিষ্কার পানির অভাবে পড়বে।

মাইগ্রেশন বিশেষজ্ঞ আমিনা মাহারজান বলেন, ‘এই পাহাড়ে বসবাসকারী যেসব মানুষ এতদিন বৈশ্বিক উষ্ণায়ন নিয়ে চিন্তিত ছিলেন না তারাই জলবায়ু পরিবর্তনের কারণে বিপদের সম্মুখীন হতে যাচ্ছে এবং বর্তমান অভিযোজন প্রচেষ্টা এতোটাই কম যে, সবাই এগিয়ে না আসলে সম্প্রদায়গুলো এই বিপদের মোকাবিলা করতে সক্ষম হবে না’

পূর্ববর্তী বিভিন্ন প্রতিবেদনে পাওয়া যায়, জলবায়ু পরিবর্তনের ফলে তুষার এবং বরফে আচ্ছাদিত অঞ্চলগুলো সবচেয়ে বেশি ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছে। সাম্প্রতিক গবেষণায় দেখা গেছে, মাউন্ট এভারেস্টে গত ৩০ বছরেই ২০০০ বছরের সমান বরফ গলে গেছে। হিমালয়ের বরফগুলো আগের দশকের তুলনায় ২০১০ সাল থেকে ৬৫ শতাংশ দ্রুত গতিতে গলে যাচ্ছে।

প্রতিবেদনে বলা হয়, এই ক্ষতিগ্রস্ত অঞ্চলের হিমবাহ, তুষার এবং পার্মাফ্রস্টগুলো বৈশ্বিক উষ্ণায়নের আগে অপরিবর্তিত ছিল। এমন করে বৈশ্বিক তাপমাত্রা ২ ডিগ্রী সেলসিয়াস হারে বাড়তে থাকলে ২১০০ সালের মধ্যে সমগ্র অঞ্চলের বরফের আয়তন ৩০ শতাংশ থেকে ৫০ শতাংশে কমে যাবে ।

কিন্তু অবস্থানের ওপর নির্ভর করবে কোথায় কোথায় বরফ গলবে। বর্তমান জলবায়ু নীতি অনুযায়ী, ২১০০ সালের মধ্যে পূর্ব হিমালয়ের (যার মধ্যে নেপাল এবং ভুটান রয়েছে) বরফগুলো ৩ ডিগ্রি সেলসিয়াস উষ্ণতায় ৭৫ শতাংশ হ্রাস পাবে এবং ৪ ডিগ্রি সেলসিয়াসে তা পরিণত হবে ৮০ শতাংশে।

একজন পরিবেশ বিজ্ঞানী এবং ‘আইসিআইএমওডি’-এর সহকর্মী বলেন, ‘আমরা ১০০ বছরের ব্যবধানের মধ্যেই এগুলো হারাতে যাচ্ছি, আমাদের হাতে বেশি সময় নেই।’