Tag Archives: গোটা

কে হচ্ছেন নতুন ওয়ানডে অধিনায়ক?

স্পোর্টস ডেস্ক:

তিনি ওয়ানডে অধিনায়কত্ব ছেড়েছেন। পাশাপাশি এশিয়া কাপও খেলছেন না। এই খবর জেনে গেছে গোটা ক্রিকেট বিশ্ব। খুব স্বাভাবিকভাবেই দুটি প্রাসঙ্গিক প্রশ্ন জেগেছে সবার মনে। নতুন অধিনায়ক কে হবেন? তামিম ইকবালের বিকল্প ওপেনারই বা হবেন কে?

অধিনায়কত্বটাই এখন সবচেয়ে বড় ইস্যু। মাঝে বিভিন্ন ফরম্যাটে ভারপ্রাপ্ত অধিনায়কের দায়িত্ব পালন করা লিটন দাস কি দায়িত্ব পাচ্ছেন? নাকি টেস্ট আর টি-টোয়েন্টির অধিনায়ক সাকিব আল হাসানকে তিন ফরম্যাটেই দায়িত্ব বুঝিয়ে দেওয়া হবে?

গতকাল বৃহস্পতিবার রাতে বিসিবি সভাপতি নাজমুল হাসান পাপন তাৎক্ষণিকভাবে এর উত্তর দেননি। বলেছেন, এটা আলাপ আলোচনা করে ঠিক করা হবে।

বোঝাই যায়, দীর্ঘমেয়াদে ওয়ানডে অধিনায়ক মনোনীত করা হলে এক নম্বর ও ‘অটো চয়েজ’ সাকিব। আর খণ্ডকালীন দল পরিচালনার দায়িত্ব দিলেই শুধু লিটন পাবেন নেতৃত্ব।

যেহেতু সামনেই ওয়ানডে বিশ্বকাপ। আবার এশিয়া কাপের পরপরই চলে আসবে নিউজিল্যান্ড। কিউইদের সঙ্গে তিন ম্যাচের ওয়ানডে সিরিজ খেলেই বিশ্বকাপযাত্রা টাইগারদের।

তার মানে বিশ্বকাপের আগেও আরও দুটি মিশন আছে। কাজেই শুধু এশিয়া কাপের জন্য কাউকে অধিনায়ক করার সম্ভাবনা নেই বললেই চলে। ধরেই নিতে হবে যিনি এশিয়া কাপে অধিনায়ক হবেন, তিনিই বিশ্বকাপেও টিম বাংলাদেশকে নেতৃত্ব দেবেন।

এখন দীর্ঘমেয়াদের জন্য ওয়ানডে অধিনায়ক হিসেবে সাকিবের বিকল্প কেউ নেই। তার ধারেকাছেও কাউকে আনার সুযোগ নেই। তবে দেখতে হবে তিন ফরম্যাটে সাকিব অধিনায়ক হতে রাজি কি না।

সেটা সাকিবের সঙ্গে বসেই ঠিক করতে হবে বোর্ড শীর্ষকর্তাদের। সাকিবকেই যে প্রথম প্রস্তাব দেওয়া হবে, তাতে কোনো সন্দেহ নেই। সাকিব সে প্রস্তাবে রাজি হবেন কি না, সেটাই দেখার। সাকিব ওয়ানডে অধিনায়ক হতে রাজি না হলে তখন দ্বিতীয় কাউকে এশিয়া কাপ ও ওয়ানডে দল পরিচালনার দায়িত্ব দেওয়ার প্রশ্ন।

সাকিব রাজি না হলে লিটন দাসের অধিনায়ক হবার সম্ভাবনাই বেশি। খুব শিগগির মানে সাকিব শ্রীলঙ্কা প্রিমিয়ার লিগ খেলে দেশে ফেরার পরপরই হয়তো তার সঙ্গে বসবেন বোর্ড সভাপতি নাজমুল হাসান।

ধারণা করা হচ্ছে, অধিনায়ক নির্বাচনী আলোচনায় হেড কাচ চন্ডিকা হাথুরুসিংহেও থাকবেন। তার ঢাকা ফেরার কথা ৭ আগস্ট।

ওদিকে সাকিবের এনওসি নেওয়া আছে ২০ আগস্ট পর্যন্ত। তার মানে সামনাসামনি সাকিবের সঙ্গে কথা হলে আরও অন্তত ১৪-১৫ দিনের অপেক্ষা। অবশ্য এর মধ্যে সাকিবের সঙ্গে মুঠোফোন বা অন্যভাবে কথা বলে ফেলতে পারেন বিসিবি বিগবস।

এদিকে এশিয়া কাপে অধিনায়ক তামিমের বিকল্পের সঙ্গে ওপেনার বিকল্পও খুঁজতে হচ্ছে টিম ম্যানেজমেন্টকে। পার্থক্য একটাই, অধিনায়ক নির্বাচন করবে বোর্ড। আর ওপেনার তামিমের বিকল্প রিক্রুটমেন্ট খোঁজার কাজটি নির্বাচকদের।

টিম ম্যানেজমেন্ট ও নির্বাচকদের অতি নির্ভরযোগ্য সূত্র জানিয়েছে, ওপেনার তামিমের বিকল্প হিসেবে আর নতুন কাউকে ‘ট্রাই ’ করা হবে না। যে ৩২ জন ফিটনেস টেস্ট দিয়েছেন, তাদের মধ্য থেকেই বিকল্প খুঁজে নেওয়া হবে।

তিনি কে হতে পারেন? লিটন দাসের সঙ্গী হিসেবে কাকে বেছে নিতে পারেন নির্বাচকরা? ডান ও বাঁহাতি কম্বিনেশন রাখতে একজন বাঁহাতিকে বেছে নেীয়ার সম্ভাবনা অনেক বেশি। সেক্ষেত্রে আফগানিস্তানের সঙ্গে প্রথম দুই ম্যাচ খেলা নাইম শেখ (তৃতীয় ও শেষ ম্যাচে লিটনের সঙ্গে আফিফ ওপেন করেছেন) ও আফিফ হোসেন ধ্রুব আছেন বিবেচনায়। আরেক বাঁহাতি জাকির হাসানের ভাগ্যও খুলে যেতে পারে। এখন তাদের কাকে বেছে নেন নির্বাচকরা, সেটাই দেখার।