Tag Archives: গোমতীর অবৈধ মাটি কাটা ও বালু উত্তোলন রোধে গোয়েন্দা সংস্থা ও প্রশাসনের সাড়াশি অভিযান

গোমতীর অবৈধ মাটি কাটা ও বালু উত্তোলন রোধে গোয়েন্দা সংস্থা ও প্রশাসনের সাড়াশি অভিযান

স্টাফ রিপোর্টার:
কুমিল্লার গোমতি নদীর নাব্যতা রক্ষায় ও নদীটির সৌন্দর্য্য রক্ষায় সকলের সহযোগীতা থাকাটাই ছিল সবার দায়িত্ব কিন্তু সরেজমিনে তার উল্টোটাই লক্ষ্য করা যায়। জেলা প্রশাসনের অগণিত অভিযানকে তোয়াক্কা না করেই অবৈধভাবে কাটা হচ্ছে নদীর দু পাশের মাটি আর অনুমতি ছাড়াই তোলা হচ্ছে বালি। এরই প্রেক্ষাপটে গতকাল বুধবার রাত ৮টা থেকে কাপ্তান বাজার পাক্কার মাথায় বিষ্ণুপুর মৌজা এলাকায় জাতীয় গোয়েন্দা সংস্থা কুমিল্লা অফিসের কর্মকর্তারা কড়া নজরদারি রাখে । এরপরই রাতে অভিযান চালানো হয় গোমতীর পাড়ে।

বৃহ্ষ্পতিবার সকালে জাতীয় গোয়েন্দা সংস্থা কুমিল্লা অঞ্চলের যুগ্ম পরিচালক জি এম আলীম উদ্দিনের নেতৃত্বে কুমিল্লা জেলা প্রশাসনের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রট আবু সাঈদ এবং এস এম মোস্তাফিজুর রহমানের অভিযানে আটক করা হয় অবৈধভাবে মাটি কাটা ৩টি ভেকু, ৩টি ট্রাক, ১টি মোটর সাইকেলসহ কুমিল্লা সিটি কর্পোরেশন ২১নং ওয়ার্ডের নাগরিক ব্রুনাই প্রবাস ফেরত কামরুলকে ।

জাতীয় গোয়েন্দা সংস্থার কুমিল্লা অঞ্চলের উপপরিচালক মো: আবু জাফর ইকবাল, মাঠ কর্মকর্তা নিজামুল হক ভূঞা, অসীম মজুমদার, সুজত কান্তি তালুকদার ও ওয়্যারল্যাস অপারেটর এরফান ফরহাদ বুধবার সারারাত এ অভিযান পরিচালনা করেন । এ সময় কুমিল্লা কোতয়ালী মডেল থানার তদন্ত কর্মকর্তা মো: বিল্লাল হেসেনের নেতৃত্বে কোতয়ালী মডেল থানা পুলিশ টিম এবং কুমিল্লা ফায়ার সার্ভিসের লিডার মিজানুর রহমানের নেতৃত্বে ফায়ার সার্ভিস কুমিল্লা টিমের উপস্থিতিতে এ অভিযান পরিচালনা করা হয়।

কুমিল্লা জেলা প্রশাসনের নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেট আবু সাঈদ বলেন, ভূমিদুস্যুরা যতই প্রভাবশালী হোক না কেন আমরা আইনের মাধ্যমে তা প্রতিহত করবো। জাতীয় গোয়েন্দা সংস্থার ভুয়সী প্রশংসা করে তিনি আরো বলেন, এমন অবৈধ মাটি কাটা ও বালু উত্তোলনে জেলা প্রশাসনের অভিযান অব্যাহত থাকবে।

গোমতী নদীর দুপাশেই সবুজ শাক সবজি চাষ করেই কুমিল্লার মানুষের সবজির চাহিদা মেটায় কৃষকরা কিন্তু অধৈ মাটি কাটা ও বালু উত্তেলণের ফলে নদীর দুপাশের সবজি চাষ বিলীণ হয়ে গিয়েছে। স্থাণীয়রা এতে ক্ষুব্দ ও আতংকে আছে অবৈধ মাটি কাটা নিয়েই তারা মনে করেন, এভাবে নদীর দুপাশে মাটি কাটতে থাকলে নদীর দুপাশের এলাকা গুলো অচিরেই বিলীণ হয়ে যাবে। সাথে সাথে অবৈধ মাটি কাটার প্রতিবাদও জানান স্থাণীয়রা।