Tag Archives: গ্রেপ্তার ৬

কুমিল্লার মুরাদনগরে ৪ কেজি গাঁজা উদ্ধার, গ্রেপ্তার ৬

 

মাহবুব আলম আরিফ, মুরাদনগরঃ

কুমিল্লার মুরাদনগরে ৪ কেজি গাঁজাসহ ২ মাদক ব্যবসায়ী ও ভিন্ন মামলার ৪ আসামীসহ ৬ জনকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ।

সোমবার উপজেলার একাধীক স্থানে অভিযান চালিয়ে তাদেরকে গ্রেপ্তার করা হয়।

গ্রেপ্তারকৃতরা হলেন, বি-বাড়িয়া জেলার কসবা উপজেলার আড়াইবাড়ী গ্রামের মৃত আবু তালেবের মেয়ে মাদক ব্যবসায়ী তানিয়া আক্তার (২৫), সুনামগঞ্জ জেলার তাহিরপুর থানার ধুতমা গ্রামের আব্দুল আলীর ছেলে মাদক ব্যবসায়ী মোহাম্মদ আলী (৩৫), থানায় নিয়মিত মামলার আসামী উপজেলার নবীপুর গ্রামের হামিদ মৌলভীর ছেলে ইউনুছ মিয়া (৪৭), ধামঘর ইউনিয়নের গাইটুলী গ্রামের মৃত রহমত আলীর ছেলে রেনু মিয়া (৫৮), রেনু মিয়ার ছেলে নাজমুল হাসান (১৮) ও রহমত আলীর ছেলে শফিক মিয়া(৪০)।

পুলিশ সূত্রে জানা যায়, মাদকের একটি চালান যাচ্ছে এমন গোপন সংবাদের ভিত্তিতে মুরাদনগর থানার এস আই সাইফুল ইসলাম, এএসআই মোফাজ্জল হোসেনসহ সঙ্গীয় ফোর্স উপজেলার বাখরনগর এলাকায় কুটি চৌমুহনী থেকে আগত সুগন্ধা বাসে তল্লাশি চালিয়ে তানিয়া আক্তার ও মোহাম্মদ আলীর কাছ থেকে ৪ কেজি গাঁজা উদ্ধার করা হয়। পরে তাদেরকে গ্রেপ্তার করে মুরাদনগর থানায় নিয়ে আসা হয়।

অন্যদিকে এস আই হামিদুল ইসলাম ও এস আই মোঃ নজরুল ইসলাম সঙ্গীয় ফোর্সসহ থানায় নিয়মিত মামলার ৪ আসামী ইউনুছ মিয়া, নাজমুল হাসান, শফিক মিয়া ও রেনু মিয়াকে গ্রেপ্তার করে।
মুরাদনগর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আবুল হাসিম বলেন, দুই মাদক ব্যবসায়ীর বিরুদ্ধে মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ আইনে মামলা দায়ের করে অপর ৪ আসামীসহ ৬ জনকে সোমবার বিকালে আদালতের মাধ্যমে কুমিল্লা কেন্দ্রিয় কারাগারে পাঠানো হয়েছে।

কুমিল্লায় জোড়া খুনের ঘটনায় ৮৫ জনকে আসামি করে মামলা, গ্রেপ্তার ৬

 

স্টাফ রিপোর্টারঃ

কুমিল্লার ব্রাহ্মণপাড়া উপজেলার শিদলাই গ্রামে জমি সংক্রান্ত বিরোধের জেরে গত শনিবার দুইপক্ষের মধ্যে সংঘর্ষ হয়।

এ সময় দুইজন নিহত হয়। এ ঘটনায় রবিবার রাতে ৮৫ জনের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের হয়েছে। মামলাটিতে সোমবার ভোর রাত পর্যন্ত ৬ জনকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। তাদের সোমবার দুপুরে আদালতের মাধ্যমে জেলহাজতে প্রেরণ করা হয়েছে।

এদিকে ওই ঘটনার পর থেকে এলাকায় গ্রেপ্তার আতংক বিরাজ করছে এবং গ্রেপ্তার এড়াতে ওই এলাকা প্রায় পুরুষশূন্য হয়ে পড়েছে। পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, উপজেলার শিদলাই গ্রামের আমেরিকা প্রবাসী সামসু মিয়া গ্রুপের ‘বড় দলের’ জাহাঙ্গীর ও লিটনের লোকজনের সঙ্গে একই গ্রামের ‘ছোট দলের’ খোরশেদ আলম ও শানুর লোকজনের দীর্ঘ ৪০ বছর ধরে জমি নিয়ে বিরোধ চলে আসছিল। ওই বিরোধের জের ধরে গত শনিবার সকালে উভয় পক্ষ লাঠি, টেটা ও বল্লমসহ দেশীয় অস্ত্রশস্ত্রে সজ্জিত হয়ে সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়ে। এ সংঘর্ষে ওই গ্রামের খোরশেদ আলম ও শানু মিয়া নিহত হন এবং অন্তত ২০ জন আহত হন।

এ ঘটনায় নিহত খোরশেদ আলমের স্ত্রী নাসিমা আক্তার বাদী হয়ে রবিবার রাতে ৫০ জনের নাম উল্লেখ করে ও অজ্ঞাতনামা ৩৫ জনসহ ৮৫ জনকে আসামি করে ব্রাহ্মণপাড়া থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করেন। সোমবার ভোর রাত পর্যন্ত পুলিশ উপজেলার বিভিন্ন স্থানে অভিযান চালিয়ে ৬জনকে গ্রেপ্তার করেছে।

স্থানীয়রা জানান, এ ঘটনার পর থেকে ওই গ্রামে গ্রেপ্তার আতংক বিরাজ করছে। অধিকাংশ পরিবারের পুরুষরা গ্রেপ্তার এড়াতে গ্রাম ছেড়ে পালিয়ে বেড়াচ্ছে। এতে ওই গ্রাম প্রায় পুরুষশূন্য হয়ে পড়েছে। এ ঘটনায় যেন কেউ অহেতুক হয়রানীর শিকার না হন সেজন্য তারা প্রশাসনের হস্তক্ষেপ কামনা করেছে।

সন্ধ্যা ৬টায় ব্রাহ্মণপাড়া থানার ওসি সৈয়দ আবু মো. শাহজাহান কবির জানান, গ্রেপ্তারকৃতদের সোমবার আদালতের মাধ্যমে জেলহাজতে প্রেরণ করা হয়েছে। অপর আসামিদের গ্রেপ্তারের চেষ্টা চলছে। এ ঘটনায় অহেতুক কেউ গ্রেপ্তার কিংবা হয়রানীর শিকার হবে না এবং এ নিয়ে আতংকিত হওয়ার কোনো কারণ নেই বলে তিনি জানান।