Tag Archives: চাঁদপুর সদর উপজেলা

কুমিল্লার সদর দক্ষিণ থেকে বিপুল পরিমাণ মাদকসহ এক মাদক পাঁচারকারী আটক

 

স্টাফ রিপোর্টারঃ

কুমিল্লার সদর দক্ষিণ থেকে বিপুল পরিমাণ মাদকসহ মোঃ ফরহাদ হোসেন (২১) নামের এক মাদক পাঁচারকারীকে আটক করেছে কুমিল্লা র‌্যাব-১১, সিপিসি-২।

রবিবার রাতে চট্টগ্রাম-ঢাকা মহাসড়কের সদর দক্ষিণের দড়িবটগ্রাম সাকিনস্থ সুয়াগঞ্জ বাজার সজিব মেডিসিন পয়েন্টের সামনে থেকে তাকে আটক করা হয়। এসময় তার কাছ থেকে ১৫৮ বোতল ফেন্সিডিল, ৫ কেজি গাঁজা, ৩১৫ পিস ইয়াবা উদ্ধার করা হয়।

আটককৃত মাদক পাঁচারকারী ফরহাদ হোসেন চাঁদপুর সদর উপজেলার মালরা গ্রামের মোঃ শাহজাহান হোসেনের ছেলে।

কুমিল্লা র‌্যাব-১১, সিপিসি-২ এর অধিনায়ক মেজর তালুকদার নাজমুছ সাকিব এ বিষয়টির সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, আটককৃত মাদক পাঁচারকারী দীর্ঘদিন যাবৎ কুমিল্লাসহ দেশের বিভিন্ন অঞ্চলে ফেন্সিডিল, গাঁজা, ইয়াবাসহ বিভিন্ন মাদকদ্রব্য ক্রয়-বিক্রয় ও সরবরাহ করে আসছিল।

এ বিষয়ে আটককৃত মাদক পাঁচারকারী ফরহাদ হোসেনের বিরুদ্ধে কুমিল্লার সদর দক্ষিণ থানায় একটি মামলা দায়ের করা হয়েছে।

বৃহত্তর কুমিল্লার চাঁদপুরে এই প্রথম পরিত্যক্ত ইটভাটায় বিদেশি ফলের চাষ

 

মাসুদ হোসেন, চাঁদপুরঃ

চাঁদপুর সদর উপজেলার ৪নং শাহমাহমুদপুর ইউনিয়নের বড় শাহতলীতে পরিত্যক্ত ইটভাটায় চাষ হচ্ছে বিভিন্ন প্রজাতির বিদেশি রসালো ফল।

এসব ফলের মধ্যে আছে- সাম্মাম, রকমেলন, মাস্কমেলনসহ তিন জাতের ব্যতিক্রম তরমুজ। (উপরে হলুদ ভেতরে লাল, ডোরাকাটা সবুজ (লম্বা) ভেতরে গাড় হলুদ এবং ডোরাকাটা সবুজ (গোলাকার) ভেতরে সিডলেস হলুদ রং। এছাড়া বিদেশি নানা জাতের আম, মালটা, ড্রাগন ফল, স্ট্রবেরী, ক্যাপসিকামসহ নানা প্রজাতির ফল।

চাঁদপুর সদর উপজেলার উপসহকারী কৃষি কর্মকর্তা মোহাম্মদ মনিরুজ্জামানের তত্ত্বাবধানে বিশিষ্ট সমাজ সেবক, কৃষি উদ্দ্যোক্তা, সাংবাদিকতায় জাতীয় পুরস্কারপ্রাপ্ত চাঁদপুরের এক কৃতি সন্তান পরিত্যক্ত ইটভাটায় ড্রেজারের বালিতে মালচিং পেপার ও ড্রিপ সেচ পদ্ধতি ব্যবহার করে বিদেশী ফল চাষাবাদ করে দেখালেন চমক। সম্পূর্ণ ঝুঁকি নিয়ে ড্রেজারের বালিতে গড়ে তুলেছেন “ফ্রুটস ভেলি” নামক এগ্রো ফার্ম। প্রায় ৬০ বছরের চলমান পরিবেশ দুষণকারী ইটভাটার জমিতে চালু হয়েছে সর্বাধুনিক প্রযুক্তির এগ্রো প্রজেক্ট। প্রায় সাড়ে ৭ একর ভূমির মধ্যে প্রায় আড়াই একর জমিতে “ফ্রুটস ভেলি” প্রকল্পের কার্যক্রম শুরু করা হয়েছে। এই প্রকল্পে বিশ্বখ্যাত উন্নত জাতের বেশ কিছু ফলের বানিজ্যিক চাষ চলছে যা দেশে সম্ভবত এই প্রথম।

বাগানটিতে থাকছে ৩ জাতের পারসিমন, লাল, হলুদ, পিংক, বেগুনি এবং গোল্ডেন ড্রাগন ফল, ব্লাড অরেঞ্জ, সিডলেস গ্রেফ ফ্রুটস বা Star rubz , বারমাসি ভিয়েতনামী মাল্টা আর অরেঞ্জ (Navel Oranges, Valencia, Florida Oranges, darjeeling orange, Jaffa orange), ৯ জাতের বিখ্যাত আম (অস্ট্রেলিয়ান হানিগোল্ড, আলফানসো, ব্যানানা/ নামডকমাই, কাটিমন, কিং অব চাকাপাত, মিয়াজাকি জাতের রেড ম্যাংগো বা সূর্যডিম, আমেরিকান পালমার, ব্রাজেলিয়ান পারপল ম্যাংগো এবং থ্রি টেস্ট), দুই জাতের এভাকাডো, তিন জাতের স্ট্রবেরি এবং পবিত্র কোরানের ত্বীন ফল। আরও থাকছে বিশ্বের দুষ্পাপ্য দুটি ফল সিডলেস আনার এবং সবুজ আতা (ঈযবৎরসড়ুধ)। এই দুটি জাত পরীক্ষামূলক চাষ হবে।

এসব বিশ্বখ্যাত ফলের ফলন আসতে প্রায় দেড় বছর অপেক্ষা করতে হবে। তাই সাথী ফসল হিসেবে চাষ হচ্ছে, বিখ্যাত সাম্মাম/ রকমেলন/ মাস্কমেলনসহ তিন জাতের আনকমন তরমুজ। (উপরে হলুদ ভেতরে লাল, ডোরাকাটা সবুজ (লম্বা) ভেতরে গাঢ় হলুদ এবং ডোরাকাটা সবুজ (গোলাকার) ভেতরে সিডলেস হলুদ রং। সুখবর হচ্ছে, প্রথমবারেই আশাতীত ফলন হয়েছে। আশা করছি আগামী মাসেই ৮০ শতাংশ অর্গানিক এসব ফল বাজারজাত করা যেতে পারে। উদ্যোক্তা হেলাল উদ্দিন আরও বলেন, ‘প্রায় ৩ বছর আগে আমার ৬০ বছরের পারিবারিক লাভজনক ইটভাটার ব্যবসা স্বেচ্ছায় বন্ধ করি।

তবে, এই জমিতে পরিবেশবান্ধব সবুজের সমারোহ গড়ে তোলা আসলেই কঠিন ছিল। পুরো ইটভাটা এলাকা এখন সবুজে সবুজে একাকার।’ এখানে সর্বাধুনিক সব কৃষি প্রযুক্তি ব্যবহার করেছি। আমি চাই আমার এই বিষমুক্ত কীটনাশকমুক্ত অর্গানিক ফল পাইকারি মূল্যে সারাদেশের ক্রেতার হাতে তুলে দিতে,’ বলেন তিনি।

উপজেলা উপসহকারী কৃষি কর্মকর্তা মোহাম্মদ মনিরুজ্জামান বলেন, ‘বৃহত্তর কুমিল্লার মধ্যে চাঁদপুরে এই প্রথম জৈব ও পরিবেশবান্ধব পদ্ধতিতে বিদেশি দুর্লভ ফল চাষাবাদ করে অনন্য নজির স্থাপন করেছেন তিনি। এসব বিদেশি ফল চাষে প্রথম বিনিয়োগেই দুষ্পাপ্য বিশ্বখ্যাত কিছু ফল বানিজ্যিক চাষের ঝুঁকিও নেয়া হয়েছে। আনকমন এসব নানা ফলের জাত সংগ্রহ করতে দীর্ঘ সময় অনেক পরিশ্রম করতে হয়েছে। মোটা অংকের অর্থও ব্যয় করতে হয়েছে। জাতগুলো বাংলাদেশের আবহাওয়া উপযোগী কি না তা নিশ্চিত হতে হয়েছে। বহু দৌড়ঝাপের পর যখন বোধগম্য হয়েছে প্রতিটি ফলের জাতই বানিজ্যিক চাষ উপযোগী তখনই বিনিয়োগের ঝুঁকি নেয়া হয়েছে। আমি মনে করি এই এগ্রো প্রকল্পটি হবে এদেশের একটি মডেল ফল উৎপাদনকারী প্রতিষ্ঠান। যেখানে প্রথমবারের মত এমন কিছু ফলের চাষ হচ্ছে যা এতদিন ছিল অকল্পনীয়।প্রকল্পটি সফল হলে তা পুরো দেশেই ছড়িয়ে যাবে।

 

 

মহাসড়কে ডাকাতির প্রস্তুতিকালে চান্দিনা থেকে দেশীয় অস্ত্রসহ আটক ৩ ডাকাত

 

শরীফুল ইসলাম,চান্দিনাঃ

ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কে কুমিল্লার চান্দিনা উপজেলার নূরিতলা নামক স্থানে ডাকাতির প্রস্তুতিকালে দেশীয় অস্ত্রসহ ৩ ডাকাতকে আটক করেছে চান্দিনা থানা পুলিশ।

চান্দিনা থানার এসআই মো. সালাউদ্দিন শামীম এর নেতৃত্বে গোপন সংবাদের ভিত্তিতে থানা পুলিশ অভিযান চালিয়ে শুক্রবার (৪ ডিসেম্বর) গভীর রাতে তাদেরকে আটক করে।

আটককৃতরা হলেন, উপজেলার মহারং গ্রামের মো. শাহ আলম এর ছেলে মামুন (২৭), পশ্চিম বেলাশ্বর গ্রামের মবিন মিয়ার ছেলে কাদু (২৪), চাঁদপুর সদর উপজেলার খলিসাডুলী গ্রামের ছিদ্দিক আলী মোল্লার ছেলে খলিল (৪৫)।

চান্দিনা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) শামস্উদ্দিন মোহাম্মদ ইলিয়াছ জানান, আটককৃতদের বিরুদ্ধে চান্দিনা থানায় মামলা দায়ের করা হয়েছে। তাদেরকে বিজ্ঞ আদালতের মাধ্যমে কুমিল্লা কেন্দ্রীয় কারাগারে প্রেরণ করা হয়েছে।

চাঁদপুরে মসজিদ থেকে মাস্কের সচেতনতামূলক পেস্টুন অপসারণের অভিযোগ!

 

মাসুদ হোসেন, চাঁদপুরঃ

মসজিদ-মন্দিরসহ সকল উপাসনালয়ের মূল ফটকে মাস্ক পরিধান করে ভিতরে প্রবেশ ও মাইকে প্রচার-প্রচারণার জন্য গত ১৮ নভেম্বর ধর্ম বিষয়ক মন্ত্রণালয় থেকে একটি বিজ্ঞপ্তি জারি করা হয়েছে। বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, কোভিড-১৯ এর দ্বিতীয় ঢেউয়ের আশঙ্কায় মসজিদ-মন্দিরসহ সকল উপাসনালয়ের কমিটিকে প্রতিষ্ঠানের মূল ফটকে “নো মাস্ক, নো সার্ভিস” লেখা সম্বলিত ডিজিটাল ব্যানার বা পেস্টুন লাগাতে হবে। এবং সেই সাথে প্রতি ওয়াক্ত নামাজের পূর্বে মসজিদের মাইকে মাস্ক পরিধান করে মসজিদে আসার জন্য মাইকিং করার অনুরোধ জানিয়েছেন।

তারই আলোকে সরকারী নিবন্ধনকৃত স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন প্রভাত সমাজকল্যাণ সংস্থার উদ্যোগে চাঁদপুর সদর উপজেলার বিভিন্ন এলাকার মসজিদসহ মহামায়ার আশেপাশে কয়েকটি মসজিদে ইতিমধ্যে মাস্ক পরিধানের সচেতনতা বিষয়ক পেস্টুন লাগিয়েছে। পেস্টুনে উল্লেখ করেন- করোনাভাইরাস সংক্রমণ প্রতিরোধে মাস্ক ব্যবহার ব্যতীত মসজিদে প্রবেশ না করার জন্য অনুরোধ। নো মাস্ক, নো এন্ট্রি। কিন্তু এসব পেস্টুন জনসচেতনতায় লাগালেও অনেকে এটাকে ভালো ভাবে না নিয়ে মসজিদ থেকে খুলে ফেলার অভিযোগ করেছেন প্রভাত মহামায়া শাখার সহ সভাপতি মোঃ জুয়েল হাজী।

তিনি বলেন, গত ১২ নভেম্বর আমরা চাঁদপুর সদরের বিভিন্ন মসজিদের মূল ফটকে মাস্ক পরিধানের সচেতনতামূলক পেস্টুন লাগিয়েছে। কিন্তু কারা যেন কয়েকটি মসজিদ থেকে খুলে নিয়েছে। পেস্টুন অপসারণের বিষয়ে ইসলামিক ফাউন্ডেশন ও জেলা প্রশাসনের জরুরী হস্তক্ষেপ কামনা করছি।

শনিবার (২১ নভেম্বর) অভিযোগের ভিত্তিতে চাঁদপুর সদর উপজেলার মহামায়া বাজার কেন্দ্রীয় জামে মসজিদ, মধুরোড স্টেশন বায়তুল আমিন জামে মসজিদ ও পূর্ব লোধেরগাঁও বায়তুল হামদ জামে মসজিদে সংগঠনের লাগানো পেস্টুনগুলো লাগানো নেই।

এ বিষয়ে মহামায়া বাজার কেন্দ্রীয় জামে মসজিদের সাধারণ সম্পাদক মোঃ আবু তাহের খোকা পাটওয়ারী জানান, আমরা সরকারের এবিষয়টি গুরুত্ব দিচ্ছি। মসজিদে তো অনেক মুসল্লি আসে, কারা খুলছে তা আমরা বলতে পারছি না। তবে কে বা কাহারা খুলছে বিষয়টি খতিয়ে দেখছি। এবং এর তীব্র নিন্দা জানাচ্ছি। প্রভাত মহামায়া শাখার উপদেষ্টা ও রামপুর ইউপি চেয়ারম্যান আল মামুন পাটওয়ারী বলেন, সংগঠনের এমন কাজ তো জনকল্যাণমূলক। কারো বিরুদ্ধে না। বিষয়টি খুবই দুঃখজনক। শাহমাহমুদপুর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান স্বপন মাহমুদ বলেন, সংগঠনের এমন উদ্যোগকে আমি স্বাগত জানাই। তবে কে এমন কাজ করেছে আমি গ্রাম পুলিশ পাঠিয়ে খোঁজ নিয়ে কমিটিদের সাথে কথা বলবো।

ইসলামীক ফাউন্ডেশন চাঁদপুরের উপপরিচালক মোঃ খলিলুর রহমান বলেন, জেলায় ৭ হাজার ২শ’ ৪২টি মসজিদে প্রায় ১২শ’ গণশিক্ষা কেন্দ্র রয়েছে। এর মধ্যে ৪শ’ জন মহিলা ব্যতীত ৮শ’ জন পুরুষ ইমাম নিয়োজিত আছেন। তাদের মাধ্যমে মানুষকে এত বুঝাচ্ছি কিন্তু তারা সচেতন হতে চান না। সরকারের হয়ে কাজ করা সংগঠনের এমন কার্যক্রমকে আমি স্বাগত জানাই। যারাই মসজিদ থেকে পেস্টুনগুলো খুলে ফেলছে তারা কাজটা মোটেও ঠিক করেননি। এ দায়িত্ব তো সংশ্লিষ্ট মসজিদ কমিটির।

চাঁদপুরের অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) মোহাম্মদ আবদুল্লাহ আল মাহমুদ জামান দুঃখ প্রকাশ করে বলেন, মসজিদের মূল ফটকে মাস্ক পরিধানের বিষয়ে সচেতনতা মূলক ডিজিটাল ব্যানার/পেস্টুন লাগানো মসজিদ কমিটিকে ধর্মমন্ত্রণালয়ের বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছে। ইসলামিক ফাউন্ডেশনও সকল মসজিদে বিষয়টি সম্পর্কে জানানো ও চিঠি দেওয়ার কথা। কিন্তু কারা এমন কাজ করেছে তারা এমন কাজ না করলেও পারতেন।

চাঁদপুরে হাঁটতে বের হলেন ডায়াবেটিক রোগী মা, ঘরে ঢুকে ঘুমন্ত শিশুকে ধর্ষণ

 

ডেস্ক রিপোর্টঃ

চাঁদপুরে ভোরে হাটতে বের হয়েছিলেন ডায়াবেটিক রোগী মা। এ সময় ঘরে ঢুকে তৃতীয় শ্রেণির মেয়ে (১০) শিশুকে ধর্ষণ করেছে হাসিম গাজী (৩৫) নামের এক যুবক। বুধবার সন্ধ্যায় ভুক্তভোগী শিশুটির মা থানায় অভিযোগ দায়ের করেছেন।

বুধবার ভোরে চাঁদপুর সদর উপজেলার বিষ্ণুপুর ইউনিয়নের ৯নং ওয়ার্ডের নুরুল্লাপুর গ্রামের গাজী বাড়িতে এ ঘটনা ঘটে।

ঘটনার সূত্রে জানা যায়, ধর্ষিতার মা একজন ডায়াবেটিক রোগী। প্রতিদিনের মতো বুধবার (১৮ নবেম্বর) সকালে ফজরের নামাজ শেষে হাঁটতে বের হন তিনি। সেই সুযোগে একই বাড়ির বারেক গাজীর ছেলে হাসিম গাজী (৩৫) দরজা খোলা পেয়ে ভেতরে ঢুকে শিশুটিকে ধর্ষণ করে। এক পর্যায়ে শিশুটি চিৎকার শুরু করলে তার মা ছুটে আসেন। এ সময় ধর্ষক নিজেই ভেতর থেকে দরজা খুলে শিশুটির মায়ের পা জড়িয়ে ধরে কান্নাকাটি শুরু করে এবং ক্ষমা চাইতে থাকে।

পরে শিশুটির মা বুধবার সন্ধ্যায় চাঁদপুর মডেল থানায় লিখিত অভিযোগ দায়ের করেন। অভিযোগ পেয়ে ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন চাঁদপুর মডেল থানার উপ-পরিদর্শক নাসির উদ্দিন।

এ বিষয়ে তদন্ত কর্মকর্তা এসআই পলাশ বড়ুয়া জানান, মেয়েটিকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। তবে আসামি এখনও পলাতক। তাকে আটক করতে আমরা মোবাইল ট্র্যাকিংসহ সব ধরনের চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছি।