Tag Archives: ডেপুটি স্পিকার ফজলে রাব্বী

স্পিকার শিরীন, ডেপুটি স্পিকার ফজলে রাব্বী

 

টানা তৃতীয়বারের মত জাতীয় সংসদের স্পিকার হিসেবে নির্বাচিত হয়েছেন শিরীন শারমিন চৌধুরী। আর ডেপুটি স্পিকার হিসেবে ফজলে রাব্বী মিয়াই থাকছেন।

বুধবার একাদশ সংসদের প্রথম অধিবেশনের শুরুতেই নিয়ম অনুযায়ী এই দুজনকে নির্বাচিত করা হয়।

স্পিকার পদে শিরীন শারমিনের নাম প্রস্তাব করেন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের, তা সমর্থন করেন নূর-ই-আলম চৌধুরী ।

বিকাল তিনটায় ফজলে রাব্বী মিয়ার সভাপতিত্বে প্রথমে স্পিকার নির্বাচন হয়।

প্রস্তাবটি ভোটে দিলে ‘হ্যাঁ’ বলে তাতে সমর্থন জানান সংসদ সদস্যরা।

পরে অধিবেশন কিছু সময়ের জন্য বিরতি দেওয়া হয়। এসময় নির্বাচিত স্পিকার শিরীন শারমিন সংসদ ভবনে অবস্থানরত রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদের কাছে শপথ নেন।

পরে শিরীন শারমিন অধিবেশনে এসে ডেপুটি স্পিকার নির্বাচনের প্রক্রিয়া শুরু করেন।

ডেপুটি স্পিকার পদে ফজলে রাব্বী মিয়ার নাম প্রস্তাব করেন হুইপ আতিউর রহমান আতিক এবং তা সমর্থন করেন হুইপ ইকবালুর রহিম।

প্রস্তাবটি ভোটে দিলে সকল সংসদ সদস্য ‘হ্যাঁ’ বলে সমর্থন জানান।

পরে ডেপুটি স্পিকারকে শপথ পড়ান রাষ্ট্রপতি আবদুল হামিদ।

এর আগে বিকাল ৩টায় ফজলে রাব্বীর সভাপতিত্বে অধিবেশন শুরু হয়। বিদায়ী স্পিকার শিরীন শারমিন এবারো ওই পদে প্রার্থী হওয়ায় নিয়ম অনুযায়ী তিনি অধিবেশনে সভাপতিত্ব করেননি।

স্পিকার, ডেপুটি স্পিকার নির্বাচনের সময় সংসদ নেতা শেখ হাসিনা, বিরোধী দলীয় উপনেতা গোলাম মোহাম্মদ কাদের, রওশন এরশাদসহ আওয়ামী লীগ ও তার শরিক এবং বিরোধী দলের বেশিরভাগ সদস্যরা উপস্থিত ছিলেন।

নবম সংসদের শেষ দিকে জিল্লুর রহমানের মৃত্যুর পর আবদুল হামিদ রাষ্ট্রপতি নির্বাচিত হলে শূন্য হয় স্পিকারের আসন, সেই স্থানে আসেন সংসদ সদস্য শিরীন শারমিন।

সেবার প্রথমবারের মতো আইনসভায় এসে চার বছরের অভিজ্ঞতাকে পুঁজি করেই সংসদ প্রধানের পদে বসেন শিরীন শারমিন। আর এই পদে তিনি প্রথম নারী।

নবম সংসদে সংরক্ষিত আসনে নির্বাচিত হয়ে মহিলা ও শিশু বিষয়ক প্রতিমন্ত্রীর দায়িত্ব সামলান শিরীন।

২০১৪ সালের ৫ জানুয়ারি দশম সংসদ নির্বাচনে পৈত্রিক এলাকা নোয়াখালীর চাটখিল আসনে সরাসরি অংশ নিতে চাইলেও আওয়ামী লীগের মনোনয়ন পাননি তিনি। এরপর সংরক্ষিত মহিলা আসন থেকে সংসদে যেতে আওয়ামী লীগের মনোনয়ন চান তিনি।

ওই সময় শেখ হাসিনা রংপুর-৬ (পীরগঞ্জ) আসনটি ছেড়ে দিয়ে সেখানে উপনির্বাচনে নৌকা প্রতীকের প্রার্থী করেন শিরীন শারমিনকে। ওই সময় উপনির্বাচনে আর কেউ প্রার্থী না হওয়ায় বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিত হন শিরীন শারমিন।

দশম সংসদেও স্পিকারের চেয়ারে থেকে যান শিরীন শারমিন, আর ডেপুটি স্পিকারের দায়িত্বে আসেন জাতীয় পার্টির একসময়ের সংসদ সদস্য ফজলে রাব্বী মিয়া।

একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে রংপুর-৬ আসন থেকেই নির্বাচিত হন শিরীন শারমিন।

স্পিকার শিরীন শারমিন চৌধুরীকে আবারও এই পদে রাখার বিষয়ে রংপুরে নির্বাচনী জনসভায় ইঙ্গিত দিয়েছিলেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

পেশায় আইনজীবী শিরীন শারমিনের জন্ম ১৯৬৬ সালে ৬ অক্টোবর ঢাকায়। তার বাবা রফিকউল্লাহ চৌধুরী ছিলেন বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের একান্ত সচিব; মা অধ্যাপক নাইয়ার সুলতানা বাংলাদেশ কর্ম কমিশনের সদস্য ছিলেন।