Tag Archives: তামিম ইকবাল

তামিম ইকবালকে নিচে খেলানো নিয়ে মুখ খুললেন সাকিব

ডেস্ক রিপোর্ট:

বিশ্বকাপ শুরুর আগে কম জল ঘোলা হয়নি তামিম ইকবালকে নিয়ে। তবে শেষ পর্যন্ত টাইগার এই ওপেনারকে ছাড়াই বিশ্বকাপ খেলতে আসে বাংলাদেশ দল। বিশ্বকাপের জন্য বাংলাদেশ ঢাকা ত্যাগের পরেই রীতিমত বোমা ফাটিয়েছিলেন তামিম। নিজের ফেসবুক প্রোফাইলে এক ভিডিও বার্তায় তামিম জানিয়েছিলেন, এক শীর্ষ কর্তা তাকে ব্যাটিং অর্ডারের মিডলে নামতে বলেছিলেন। যা পছন্দ হয়নি দেশসেরা ওপেনারের।

বিশ্বকাপে আসার পর গতকাল প্রথমবারের মতো সংবাদ সম্মেলনে মুখোমুখি হন অধিনায়ক সাকিব আল হাসান। সেখানে তার কাছে আরও একবার প্রশ্ন করা হয় তামিম প্রসঙ্গে। জানতে চাওয়া হয় আফগানিস্তানের বিপক্ষে মিরাজকে ওপরে খেলাতেই কি তামিমকে নিচে খেলার যে প্রস্তাব দেওয়া হয়েছিল, সেটা কি আপনাদের পক্ষ থেকে দেওয়া হয়েছিল?

উত্তরে সাকিব জানান, ‘মিরাজকে ওপরে খেলানোর পরিকল্পনা আমার ও কোচের। এরপর থেকে আফগানিস্তানের সঙ্গে ম্যাচ হলেই মিরাজ ওপরে ব্যাট করবে। সে মুজিব-রশিদকে খুব ভালোভাবে মোকাবিলা করেছে। সেদিক থেকে মিরাজ ওপরে ব্যাট করবে, এটা আমাদের পরিকল্পনা অবশ্যই। তবে তামিমকে নিচে খেলার প্রস্তাব আমরা দিইনি।’

বিশ্বকাপে দল জিতছে না। গত ম্যাচে চোটের কারণে খেলতে পারেননি। এই পরিস্থিতিতে অধিনায়ক হিসেবে দলকে উজ্জীবিত করা কতটা কঠিন?

বিশ্বকাপের মতো মঞ্চে এসে দলকে খুব বেশি উজ্জীবিত করার দরকার হয় না। এখানে সবারই প্রেরণা আছে। সবাই নিজ নিজ জায়গা থেকে চেষ্টা করছে। দলগতভাবে না পারলেও ব্যক্তিগতভাবে অনেকে মোটামুটি ভালো করেছে। সমন্বিতভাবে হলে আমরা হয়তো আরেকটু ভালো ফল করতে পারতাম।
সাকিব আল হাসান, বাংলাদেশ ক্রিকেট দল

সাকিব বলেন, ‘প্রথমবার মনে হয় ওয়ানডে বিশ্বকাপের একটি ম্যাচে খেলা হলো না। আমার জন্য আফসোসের বিষয় ছিল। কোনোভাবেই কোনো ক্রিকেটার চান না ম্যাচ মিস করতে। এখানে মিস করাটা আমার জন্য কষ্টকর ছিল। বিশ্বকাপের মতো মঞ্চে এসে দলকে খুব বেশি উজ্জীবিত করার দরকার হয় না। এখানে সবারই প্রেরণা আছে। সবাই নিজ নিজ জায়গা থেকে চেষ্টা করছে। দলগতভাবে না পারলেও ব্যক্তিগতভাবে অনেকে মোটামুটি ভালো করেছে। সমন্বিতভাবে হলে আমরা হয়তো আরেকটু ভালো ফল করতে পারতাম।’

কখনো বলিনি পাঁচ ম্যাচের বেশি খেলতে পরবনা : তামিম ইকবাল

কখনো বলিনি পাঁচ ম্যাচের বেশি খেলতে পরবনা : তামিম ইকবাল

 

স্পোর্টস ডেস্কঃ

পাঁচ ম্যাচের বেশি খেলব না এমন কথা কাউকে, কখনো আমি বলিনি বলে জানিয়েছেন বাংলাদেশ জাতীয় ক্রিকেট দলের ওপেনার তামিম ইকবাল।

বৃহস্পতিবার (২৭ সেপ্টেম্বর) বিকাল ৫টার দিকে এক ভিডিও বার্তায় তিনি এ কথা বলেন।

তামিম বলেন, আমি কোনো সময়, কোনো মুহূর্তে কাউকেও বলিনি যে আমি পাঁচ ম্যাচের বেশি খেলতে পারবো না। এই কথাটা কোনো সময় হয়নি। এটা একটা মিথ্যা কথা ভুল কথা। আমি জানি না কে বা কাহারা মিডিয়াকে কথাটা বলছে।

তিনি বলেন, আপনারা জানেন আমি অবসরে যাই। অবসরে যাওয়ারও কারণ ছিল। প্রধানমন্ত্রীর কারণেই আমি আবার অবসর থেকে ফিরি। এই দুই মাস আমি প্রচণ্ড পরিমান কষ্ট করে নিজেকে ফিট করার চেষ্টা করি। ফিজিও ট্রেইনারা যারা ছিলেন তারা আমার সঙ্গে একমত হবেন যে, তারা আমাকে যা যা করতে বলছে যে সেশনে আমি তা তা করি নাই নিজেকে ফিট করার জন্য।

এর আগে ফেসবুকে তামিম ইকবাল লিখেন, আজকে বাংলাদেশ জাতীয় দল ভারতের উদ্দেশ্যে রওনা দেওয়ার পর একটি ভিডিও বার্তার মাধ্যমে আমি সবাইকে বিগত কয়েক দিনের ঘটে যাওয়া ব্যাপারে কিছু কথা বলব। গত কয়েক দিন অনেক কথাই গণ মাধ্যমগুলোতে এসেছে। আমি মনে করি বাংলাদেশ দলের এবং আমার ভক্ত-সমর্থক সবারই পরিষ্কার ভাবে সব কিছু জানার অধিকার রাখে।

উল্লেখ্য, বুধবার (২৬ সেপ্টেম্বর) দিনভর নাটকীয়তা শেষে তামিম ইকবালকে ছাড়াই বাংলাদেশের ওয়ানডে বিশ্বকাপ স্কোয়াড ঘোষণা করা হয়। ১৫ সদস্যের এই স্কোয়াডে মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ ছাড়া আরও এক চমক লাল-সবুজের সহ-অধিনায়ক নাজমুল হোসেন শান্ত।

দেশের ইতিহাসে প্রথম ফিফটির মাইলফলকে তামিম

 

স্পোর্টস ডেস্কঃ

ডানেডিনে প্রথম ওয়ানডেতে স্বাগতিক নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে টসে হেরে ব্যাটিংয়ে নেমে ট্রেন্ট বোল্টের করা ইনিংসের প্রথম ওভারের তৃতীয় বল উড়িয়ে মেরেছিলেন তামিম ইকবাল। কিন্তু ট্রেন্ট বোল্টের বিধ্বংসী বোলিং আর ব্যাটসম্যানদের দায়িত্বজ্ঞানহীন শটে দিনের সূর্যটা সেদিন মেঘে ঢাকা পড়েছিল।

ক্রাইস্টচার্চে দ্বিতীয় ওয়ানডেতে সেই ট্রেন্ট বোল্টকে উড়িয়ে না মারতে পারলেও বলকে মাটি কামড়ে সীমানা ছাড়া করেছেন। এরপর ম্যাচের দ্বিতীয় ওভারের চতুর্থ বলে লিটন দাস ফিরে গেলেও তামিম তার চরিত্র পাল্টাননি। খোলসেবন্দি সৌম্য সরকারকে নিয়ে অপর প্রান্তে ধীরে ধীরে সাবলীল ব্যাট করতে থাকেন তামিম।

প্রথম ওয়ানডের দিনে জন্মদিনকে সেভাবে রাঙাতে না পারলেও আজ তার ব্যাট কথা বলেছে। সেই ব্যাটে ভর করেই তামিম তুলে নিলেন ক্যারিয়ারের পঞ্চাশতম ওয়ানডে ফিফটি। দেশের ইতিহাসে তামিমই প্রথম ফিফটির মাইলফলক স্পর্শ করলেন। আর এ ফিফটির মাধ্যমে নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে বাংলাদেশি হিসেবে সর্বোচ্চ ৫০ রানের বেশি ইনিংস খেলা ব্যাটসম্যানও হয়ে গেলেন তিনি। কিউইদের বিপক্ষে এটি তামিমের ষষ্ঠ অর্ধশত রানের ইনিংস। এত দিন ধরে নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে ৫টি পঞ্চাশ রানের ইনিংস ছিল তামিম ও সাকিবের। সাকিবকে ছাড়িয়ে গেলেন তামিম।

২১২ ম্যাচের ওয়ানডে ক্যারিয়ারে তামিমের এটি ৬৩তম পঞ্চাশোর্ধ্ব রানের ইনিংস। এর মধ্যে ১৩টি রয়েছে সেঞ্চুরি। আর বাকি ৫০টি পঞ্চাশ রানের ইনিংস। সেঞ্চুরি কিংবা ফিফটির পরিসংখ্যানে বাংলাদেশের আর কেউই তামিমের ওপরে নেই।

এদিকে, তামিম যখন ৭৮ রানে, তখন স্ট্রাইক প্রান্তে নিশামের বল খেলেই দৌড় দিয়েছিলেন মুশফিকুর রহিম। তাতে সাড়া দিয়ে স্ট্রাইকিং প্রান্তে যেতে চেয়েছিলেন তামিম। তবে, তামিম নিরাপদে পৌঁছানোর আগেই স্টাম্প ভেঙে দেন নিশাম। ৭৮ রানে ফিরে যান তামিম ইকবাল। এ প্রতিবেদন লেখা পর্যন্ত ৩৫ ওভারে ৩ উইকেট হারিয়ে ১৫৬ রান বাংলাদেশের। ২০ রানে অপরাজিত মুশফিক।

এর আগে ক্রাইস্টচার্চে দ্বিতীয় ওয়ানডেতে টস ভাগ্য সহায় হয়নি তামিমের। দ্বিতীয় ওয়ানডেতেও সফরকারীদের ব্যাটিংয়ের আমন্ত্রণ জানিয়েছেন নিউজিল্যান্ড অধিনায়ক। কিন্তু সে আমন্ত্রণের প্রতিদান দিতে পারেনি বাংলাদেশ। ম্যাচের দ্বিতীয় ওভারের চতুর্থ বলেই ফিরে যান লিটন দাস। ম্যাট হেনরিকে পুল করতে গিয়ে স্কয়ার লেগে উইল ইয়াংয়ের হাতে ধরা পড়ে ফেরেন এ ওপেনার।

শুরুর এ ধাক্কা সামলে উঠেন অধিনায়ক তামিম ইকবাল। ওয়ান ডাউনে নামা সৌম্য সরকারকে নিয়ে গড়ে তুলেন ৮০ রানের জুটি। খোলসেবন্দি সৌম্য সরকারকে নিয়ে অপর প্রান্তে তামিম সাবলীল ব্যাট করতে থাকেন তামিম। কিন্তু ৪৬ বলে ৩২ রান করে মিচেল স্যান্টনারের বলে ল্যাথামের হাতে ক্যাচ দিয়ে ফেরেন সৌম্য সরকার। তিনি যখন সাজঘরে ফেরেন দলের রান তখন ২০ ওভার শেষে ৮৪।

সিরিজ বাঁচানোর মিশনে বাংলাদেশ একাদশে এসেছে একটি পরিবর্তন। পেসার হাসান মাহমুদের জায়গায় খেলছেন অলরাউন্ডার সাইফউদ্দিন। অন্যদিকে, অপরিবর্তিত একাদশ নিয়ে মাঠে নেমেছে নিউজিল্যান্ড। সিরিজের প্রথম ওয়ানডে জিতে ১-০’তে লিড নিয়েছে কিউইরা।