Tag Archives: ব্রাহ্মণবাড়িয়া সদর মডেল থানা

হাসপাতালের অপারেশন থিয়েটার থেকে নবজাতক গায়েব, মালিক-চিকিৎসকের বিরুদ্ধে মামলা

 

ডেস্ক রিপোর্টঃ

ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় খ্রিস্টিয়ান মেমোরিয়াল হাসপাতালে অপারেশন থিয়েটার থেকে এক প্রসূতির নবজাতক গায়েব করে দেওয়ার অভিযোগের ঘটনায় মামলা দায়ের করা হয়েছে। মঙ্গলবার (২৫ এপ্রিল) ব্রাহ্মণবাড়িয়া সদর মডেল থানায় মামলাটি নথিভুক্ত করা হয়েছে।

প্রসূতির স্বামী নবীনগর উপজেলার আলেয়াবাদ গ্রামের ফয়হাদ আহমেদ বাদী হয়ে হাসপাতালের মালিক, চিকিৎসক, নার্সসহ ৬ জনকে আসামি করে মামলাটি দায়ের করেন।

মামলার আসামিরা হলেন, খ্রিস্টিয়ান মেমোরিয়াল হাসপাতালের মালিক ডা. ডিউক চৌধুরী, গাইনি ও সার্জন ডা. নওরিন পারভেজ, ডা. ইসরাত আহমেদ, হাসপাতালের কো. অর্ডিনেটর মার্শাল চৌধুরী, নার্স স্নেহলতা ও অপারেশন টিম সদস্য অথৈ মন্ডল।

মামলার বাদী ও এজাহার সূত্রে জানা যায়, নবীনগরের আলেয়াবাদের ফরহাদ আহমেদের স্ত্রী মোছা. লিজা প্রথমবারের মতো গর্ভবতী হলে উপজেলার স্থানীয় একটি বেসরকারি হাসপাতালের চিকিৎসক মেহেরুন্নেছার তত্ত্বাবধানে চিকিৎসাধীন ছিলেন। সে সময় আল্ট্রাসনোগ্রাফিতে তার স্ত্রীর গর্ভে ২টি সন্তান দেখা যায় বলে জানান চিকিৎসকরা। সর্বশেষ ১৮ এপ্রিল করা আল্ট্রাসনোগ্রাফি রিপোর্টেও গর্ভে দুটি সন্তান আসে। গত শুক্রবার লিজার প্রসব ব্যথা ওঠে। যমজ শিশু গর্ভে থাকায় স্থানীয় চিকিৎসকরা ঝুঁকি না নিয়ে ব্রাহ্মণবাড়িয়া শহরে এনে সিজারিয়ান করতে পরামর্শ দেন।

সেদিন দুপুর সাড়ে ১২টার দিকে তাকে শহরের খ্রিস্টিয়ান মেমোরিয়াল হাসপাতালে ভর্তি করা হলে ডা. নওরিন পারভেজ আল্ট্রাসনোগ্রাফি করেন। তার রিপোর্টেও দুটি সন্তান দেখা যায়। পরে একই দিন তিনি নিজেই লিজাকে অপারেশন থিয়েটারে সিজারিয়ান করেন। এর কিছুক্ষণ পর হাসপাতালের লোকজন এসে জানান লিজা একটি কন্যা সন্তান জন্ম দিয়েছে। আর কোনো সন্তানের কথা তারা জানাতে পারেনি। বিষয়টি নিয়ে আলোচনার ঝড় ওঠে।

এ বিষয়ে ব্রাহ্মণবাড়িয়া সদর মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) এমরানুল ইসলাম জানান, খ্রিস্টিয়ান মেমোরিয়াল হাসপাতালে গর্ভে থাকা শিশু নিখোঁজের অভিযোগে মামলা দায়ের করা হয়েছে। বিষয়টি তদন্ত চলছে। পাশাপাশি আইনানুগ প্রক্রিয়া চলমান আছে।

ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় জুয়া খেলার আসর থেকে সাবেক চেয়ারম্যান ও সাবেক ছাত্রলীগ নেতাসহ আটক ১০

 

ডেস্ক রিপোর্টঃ

ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় জুয়া খেলার সময় সাবেক ইউনিয়ন পরিষদের (ইউপি) চেয়ারম্যানসহ ১০ জুয়াড়িকে আটক করেছে র‌্যাব। এ সময় তাদের কাছ থেকে ১৬ বোতল স্কাফ সিরাপ, ৩৮ পিস ইয়াবা ট্যাবলেট, জুয়া খেলার তাস ও নগদ ৮৫ হাজার ২৪০ টাকা উদ্ধার করা হয়।

রোববার (৩ জানুয়ারি) রাতে ব্রাহ্মণবাড়িয়া শহরের কুমারশীল মোড়ের আনোয়ারা টাওয়ারের ১০ তলার একটি বাসা থেকে তাদেরকে আটক করা হয়।

মঙ্গলবার (৫ জানুয়ারি) সকালে র‌্যাব ভৈরব ক্যাম্প থেকে গণমাধ্যমে পাঠানো এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে বিষয়টি নিশ্চিত করা হয়।

আটককৃতরা হলেন- সাবেক ছাত্রলীগ নেতা মো. ইউসুফ শাহ (৪২), মো. হাফিজুল ইসলাম (৩৮), মো. আল-আমিন (৪৪), শাহ আলম (৪০), কাজী সুমন (৪০), মো. সোহেল (৩৮), মো. আব্দুর রউফ (৩৯), মো. জামাল উদ্দিন-(৪০), মাসুদুল হাসান (৩৯) ও মো. কাউসার মিয়া (৩৮)। এদের মধ্যে মো. সোহেল মিয়া সদর উপজেলার নাটাই উত্তর ইউনিয়ন পরিষদের সাবেক চেয়ারম্যান। তারা সদর উপজেলার বিভিন্ন গ্রামের বাসিন্দা।

বিজ্ঞপ্তিতে র‍্যাব জানায়, ব্রাহ্মণবাড়িয়া শহরের কুমারশীল মোড়ের আনোয়ারা টাওয়ারের ১০ তলার একটি বাসায় দীর্ঘদিন ধরে জুয়ার আসর বসতো। একটি জুয়াড়ি চক্র দীর্ঘদিন ধরে এখানে জুয়া খেলতেন। রোববার রাতে অভিযান চালিয়ে তাদেরকে গ্রেফতার করা হয়। এ ঘটনায় ব্রাহ্মণবাড়িয়া সদর থানায় একটি মামলা দায়ের করা হয়েছে।

এ ব্যাপারে ব্রাহ্মণবাড়িয়া সদর মডেল থানার পরিদর্শক (তদন্ত) মো. শাহজাহান বলেন, সোমবার রাতে ১০ জুয়াড়িকে র‌্যাবের পক্ষ থেকে সদর থানায় হস্তান্তর করা হয়। মঙ্গলবার (৫ জানুয়ারি) সকালে তাদেরকে আদালতে সোপর্দ করা হয়েছে।