Tag Archives: মৃত্যু ৮ জনের

কুমিল্লায় অতীতের রেকর্ড ভেঙে একদিনে সর্বোচ্চ শনাক্ত ১১৯০ জন, মৃত্যু ৮ জনের

স্টাফ রিপোর্টার:
কুমিল্লায় অতীতের সব রেকর্ড ভেঙে গত ২৪ ঘণ্টায় ১ হাজার ১৯০ জনের করোনাভাইরাস শনাক্ত হয়েছে।  একই সময়ে করোনায় প্রাণ গেছে আরও ৮ জনের। এনিয়ে জেলায় করোনায় মৃতের সংখ্যা দাঁড়াল ৭৫০ জনে।

মঙ্গলবার (৩ আগস্ট ) বিকেলে জেলা সিভিল সার্জন ডা. মীর মোবারক হোসাইন এসব বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

তিনি বলেন, গত ২৪ ঘণ্টায় করোনায় আক্রান্ত হয়ে কুমিল্লা সিটি কর্পোরেশন তিনজনএবং মনোহরগঞ্জে দুইজন মারা গেছেন। এছাড়া দেবিদ্বার, ব্রাহ্মণপাড়া ও দাউদকান্দি উপজেলায় একজন করে মারা গেছেন। এদের মধ্যে তিনজন নারী ও পাঁচজন পুরুষ রয়েছেন।

জেলা সিভিল সার্জন কার্যালয় সূত্র জানায়,সোমবার (২ আগস্ট ) বিকেল থেকে মঙ্গলবার বিকেল পর্যন্ত গত ২৪ ঘণ্টায় কুমিল্লা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের ল্যাবে ৩ হাজার ৭৩২টি নমুনা পরীক্ষায় ১১৯০ জনের করোনা শনাক্ত হয়। এনিয়ে জেলায় করোনা আক্রান্তের সংখ্যা দাঁড়াল ৩১ হাজার ২৭৮ জনে। আক্রান্তের হার ৩১ দশমিক ৯ শতাংশ।

নতুন আক্রান্তদের মধ্যে কুমিল্লা সিটি করপোরেশনে ৩৫২ জন, আদর্শ সদরে ৩৭ জন, সদর দক্ষিণের ১৬ জন, বুড়িচংয়ে ৫৫ জন, ব্রাহ্মণপাড়ায় ৪২ জন, চান্দিনায় ৪৫জন, চৌদ্দগ্রামে ২৩ জন, দেবিদ্বারে ৫৩ জন, দাউদকান্দিতে ৬৯ জন, লাকসামে ৭৮ জন, লালমাইতে ৪৫ জন, নাঙ্গলকোটে ৬৯ জন, বরুড়ায় ৯৬ জন, মনোহরগঞ্জে ৩৪ জন, মুরাদনগরে ৬৮ জন, মেঘনায় ২৫ জন, তিতাসে ২৯ জন এবং হোমনা উপজেলার ৫৪ জন রয়েছেন।

এদিকে, জেলায় নতুন করে সুস্থ হয়েছেন আরও ৩৫৫ জন। এনিয়ে মোট সুস্থ হয়েছেন ১৭ হাজার ১৭১ জন।

কুমিল্লায় একদিনে করোনায় রেকর্ডসংখ্যক আক্রান্ত ৬০৬ জন, মৃত্যু ৮ জনের

 

স্টাফ রিপোর্টার:

কুমিল্লায় গত ২৪ ঘণ্টায় জেলায় ৬০৬ জনের করোনা শনাক্ত হয়েছে। এটাই এক দিনে শনাক্তের রেকর্ড। আক্রান্তের হার ৪২ দশমিক ২ শতাংশ। এ সময় করোনা আক্রান্ত হয়ে মারা গেছেন ৮  জন।

জেলার সিভিল সার্জন মীর মোবারক হোসাইন সোমবার বিকেল সাড়ে ৫টার দিকে এসব তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

জেলা স্বাস্থ্য বিভাগের তথ্য অনুযায়ী, রোববার বিকেল থেকে সোমবার বিকেল পর্যন্ত ২৪ ঘণ্টায় ১ হাজার ৪৩৫টি নমুনা পরীক্ষা করা হয়েছে। এর মধ্যে৬০৬ জনের করোনা শনাক্ত হয়েছে।

আক্রান্তদের মধ্যে ২১৯ জনই কুমিল্লা সিটি করপোরেশনের বাসিন্দা। বাকিদের মধ্যে আদর্শ সদরের ২৭, সদর দক্ষিণের ১৩, বুড়িচংয়ের ১০, ব্রাহ্মণপাড়ার ২৮, চান্দিনার ২৯, চৌদ্দগ্রামের ৫৭, দেবিদ্বারের ১১, দাউদকান্দির ১, লাকসামের ৪৪, লালমাইয়ের ৪, নাঙ্গলকোটের ৩১, বরুড়ার ৫৭, মনোহরগঞ্জের ২৪, মুরাদনগরের ৪, তিতাসের ৯ ও হোমনার ৩৮জন।

যারা মারা গেছেন তাদের মধ্যে সিটি করপোরেশন এলাকার ৩, বরুড়ায় ২ জন, ব্রাহ্মণপাড়া, মুরাদনগর ও  লাকসামের ১ জন করে।

জেলায় এখন পর্যন্ত ২১হাজার ৪১৬ জনের করোনা শনাক্ত হয়েছে। করোনা আক্রান্ত হয়ে মারা গেছেন ৬০৮ জন।

গত ২৪ ঘণ্টায় সুস্থ হয়েছেন ২৩৩ জন। এ নিয়ে জেলায় সুস্থ ব্যক্তির সংখ্যা দাঁড়াল ১৩ হাজার ২৯১জন।

সিভিল সার্জন মীর মোবারক হোসাইন বলেন,কুমিল্লায় আশঙ্কাজনক হারে বেড়ে চলেছে করোনায় আক্রান্তের সংখ্যা। পাশাপাশি বেড়েছে মৃত্যুর সংখ্যাও। যদি এ মুহুর্তেও মানুষের মাঝে সচেতনতা না বাড়ে, তাহলে পরিস্থিতি আরও ভয়াবহ হবে।

আমরা চেষ্টা করছি জনসচেতনতা বাড়িয়ে কীভাবে সংক্রমণ কমানো যায়। সে লক্ষ্যে প্রতিদিনই কাজ চলছে। পাশাপাশি শতভাগ টিকা নিশ্চিত করার চেষ্টা করা হচ্ছে। করোনা সংক্রমণ প্রতিরোধে এখন প্রয়োজন সমন্বিত প্রয়াস।’

কুমিল্লা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের ভারপ্রাপ্ত পরিচালক রেজাউল করিম জানান, হাসপাতালে রোগীদের ভিড় বেড়ে চলছে। করোনার বরাদ্দকৃত আসনের চেয়ে অন্তত ৩০ জন বেশি ভর্তি রয়েছেন। যদি এ রকম চলতে থাকে তাহলে রোগীর চাপ সামলানো কষ্টকর হয়ে যাবে।