Tag Archives: যারা স্বাধীনতা মানেনি তারা চায় না আ.লীগ থাকুক ক্ষমতায় থাকুক : শেখ সেলিম

যারা স্বাধীনতা মানেনি তারা চায় না আ.লীগ থাকুক ক্ষমতায় থাকুক : শেখ সেলিম

অনলাইন ডেস্ক:

আওয়ামী লীগের সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য শেখ ফজলুল করিম সেলিম বলেছেন, একাত্তরে বাংলাদেশের স্বাধীনতা মেনে নিতে না পারা দেশীয় ও আন্তর্জাতিক মহল কখনোই চায় না আওয়ামী লীগ ক্ষমতায় থাকুক।

শনিবার (৫ আগস্ট) বিকেল ৩টার দিকে বাংলা একাডেমির আবদুল করিম সাহিত্যবিশারদ মিলনায়তনে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ও বঙ্গমাতা শেখ ফজিলাতুননেছা মুজিবের জ্যেষ্ঠ পুত্র ক্রীড়া ও সংস্কৃতি সংগঠক, বীর মুক্তিযোদ্ধা শহীদ ক্যাপ্টেন শেখ কামালের ৭৪তম জন্মবার্ষিকীর অনুষ্ঠানে তিনি এসব কথা বলেন।

‘শেখ কামাল : শুদ্ধ তারুণ্যের ঋদ্ধ স্লোগান’ শীর্ষক এ আলোচনা সভা হয়।

এতে প্রধান অতিথি ছিলেন শেখ ফজলুল করিম সেলিম। সম্মানিত অতিথি ছিলেন বীর মুক্তিযোদ্ধা ও চিত্রশিল্পী শাহাবুদ্দিন আহমেদ। সভাপতিত্ব করেন যুবলীগের চেয়ারম্যান শেখ ফজলে শামস পরশ। সঞ্চালনা করেন সাধারণ সম্পাদক মো. মাইনুল হোসেন খান নিখিল।

শেখ ফজলুল করিম সেলিম বলেন, ‘পাকিস্তানিরা বঙ্গবন্ধুকে হত্যা করতে পারে নাই, কিন্তু এ ষড়যন্ত্রকারীরা বঙ্গবন্ধুকে হত্যা করেছে। বঙ্গবন্ধু শুধু বাংলাদেশের নেতা নন, তিনি ছিলেন সারা বিশ্বের নিপীড়িত-বঞ্চিত-শোষিত মানুষের নেতা।’

তিনি বলেন, ‘২৫ মার্চ বঙ্গবন্ধুকে গ্রেপ্তারের পর তাকে ক্যান্টনমেন্টে বন্দি করে রাখা হয়। পরে পশ্চিম পাকিস্তানে নিয়ে যাওয়া হয়। শেখ কামাল বাসায় না থেকে মুক্তিযুদ্ধে চলে যান। তিনি মুক্তিযুদ্ধের সংগঠক হিসেবে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করেন।’

তিনি আরও বলেন, ‘আজকে অনেকে গণতন্ত্রের কথা বলেন। মানবাধিকারের কথা বলেন। ‘৭৫ এর মর্মন্তুদ হত্যাকাণ্ড যখন ঘটানো হয়েছিল, অন্তঃসত্ত্বা নারীকে যখন নৃশংসভাবে হত্যা করা হয়, নিষ্পাপ শিশুকে যখন হত্যা করা হয়, সেইদিন গণতন্ত্র, মানবতা কোথায় ছিল?’

শেখ ফজলুল করিম সেলিম বলেন, ‘বাঙালিদের মধ্য থেকে কিছু লোক বিশ্বাসঘাতকতা করে, ষড়যন্ত্র করে বাংলার মাটি থেকে বঙ্গবন্ধুর নাম মুছে ফেলার জন্যই বঙ্গবন্ধুকে হত্যা করেছিল। কিন্তু বঙ্গবন্ধু ছিলেন এ দেশের মাটি ও মানুষের নেতা। কোনো ঘাতকচক্র বাঙালির হৃদয় থেকে বঙ্গবন্ধুকে মুছে ফেলতে পারবে না।’

সভাপতির বক্তব্যে যুবলীগের চেয়ারম্যান শেখ ফজলে শামস পরশ বলেন, ‘পড়ালেখা, সংগীতচর্চা, থিয়েটার, অভিনয়, বিতর্ক, উপস্থিত বক্তৃতা থেকে শুরু করে বাংলা ও বাঙালির সংস্কৃতিকে বিশ্বদরবারে তুলে ধরার চেষ্টায় সদা-সর্বদা নিয়োজিত ছিলেন শেখ কামাল। এত সংক্ষিপ্ত জীবনে, এত বৈচিত্র্যময় ক্ষেত্রে তিনি নিজেকে যে উচ্চতায় নিয়ে গেছেন এবং জাতির জন্য যে অবদান রেখে গেছেন তা অতুলনীয় এবং ইতিহাসে এক বিরল দৃষ্টান্ত।’

এ সময় আরও উপস্থিত ছিলেন যুবলীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য মঞ্জুর আলম শাহীন, ডা. খালেদ শওকত আলী, মো. হাবিবুর রহমান পবন, যুগ্মসাধারণ সম্পাদক বিশ্বাস মুতিউর রহমান বাদশা, শেখ ফজলে নাঈম, মো. রফিকুল ইসলাম জোয়ার্দার সৈকত, সাংগঠনিক সম্পাদক ডা. হেলাল উদ্দিন প্রমুখ।