Tag Archives: লাকসামে সালিশ বৈঠকে সন্ত্রাসী হামলার প্রতিবাদে এলাকাবাসীর মানবন্ধন

লাকসামে সালিশ বৈঠকে সন্ত্রাসী হামলার প্রতিবাদে এলাকাবাসীর মানবন্ধন

সেলিম চৌধুরী হীরাঃ

কুমিল্লার লাকসামে সালিশ বৈঠকে হামলাকারীদের শাস্তিরদাবীতে এলাকাবাসীর উদ্যোগে এক প্রতিবাদ সভা, মানবন্ধন ও বিক্ষোভ মিছিল অনুষ্ঠিত হয়েছে। বুধবার বিকেলে পৌরসভার কুন্দ্রা মধ্যপাড়া আল-আমিন হাফেজিয়া মাদ্রাসা মাঠে মানবন্ধন ও বিক্ষোভ সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়।

এসময় বক্তব্য রাখেন, মুক্তিযোদ্ধা বজলুর রহমান, মুক্তিযোদ্ধা সফিকুর রহমান, উপজেলা দুর্নীতি প্রতিরোধ কমিটির সদস্য আবুল মতিন, সাবেক সেনা সদস্য সামছুল হক, সাবেক সেনা সদস্য জহিরুল হক, সমাজ সেবক মোবারক হোসেন, হারুনুর রশিদ, আবদুস সোবহান, কবিরাজ দেলোয়ার হোসেন, ইসহাক মিয়া, শহীদুল্লাহ, আবু হানিফ, আনা মিয়া, আবদুল আউয়াল, শহীদুল্লাহ, সাহাবুদ্দিনসহ প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

বক্তারা বলেন, রবিবার বিকেলে পারিবারিক সালিশ বৈঠকে হামলার পরিকল্পনাকারী সৌদিআরব প্রবাসী কথিত রাজাকার রুস্তম আলীর ছেলে মমিনুল হকের নেতৃত্বে একই এলাকার এ টি এম শফিকুর রহমান, মাহবুবুল হক, মনির হোসেনের উপর অর্তকিত হামলা চালিয়ে গুরুতর আহত করে। তাদের হামলায় এ টি এম শফিকুর রহমান, মাহবুবুল হক, মনির হোসেন গুরুতর আহত হয়। আহতদেরকে প্রথমে লাকসাম সরকারি হাসপাতালে ভর্তি করে। আশংকাজনক অবস্থায় তাদেরকে কুমিল্লায় স্থানান্তর করা হয়।

এছাড়াও রাজাকার রুস্তম আলীর ছেলে এনামুল হক, নুরুল হক, আমিনুল হক, মমিনুল হক, সামছুল হক ও হাফেজ মজিবুল হক এলাকায় বিভিন্ন সময়ে একাধিক সন্ত্রাসী কর্মকান্ড চালিয়ে বিভিন্ন লোকজন কে আহত করেছে। সন্ত্রাসী কার্যকলাপের কারণে তাদেরকে সমাজিকভাবে বিতাড়িত করা হয়েছে। আমরা তাদের বিচার চাই।

সালিশ বৈঠকে হামলার ঘটনার সংবাদ পেয়ে লাকসাম থানা পুলিশ অভিযুক্ত এনামুল হক ও আমিনুল হক কে আটক করে। আহত মনির হোসেন বাদী হয়ে ৬ জন কে আসামী করে লাকসাম থানায় একটি মামলা দায়ের করেন। থানা পুলিশ পর দিন আটককৃতদেরকে আদালতের মাধ্যমে জেল হাজতে প্রেরণ করে।

স্থানীয় লাকসাম পৌরসভার ২নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর খলিলুর রহমান জানায়, রুস্তম আলীর ছেলেরা সালিশ বৈঠকে হামলা চালিয়ে কয়েক জনকে আহত করার সংবাদ পেয়ে থানা পুলিশকে জানিয়েছি। ঘটনার সাথে জড়িত ২ জনকে গ্রেফতার করে জেলহাজতে প্রেরণ করেছে।