Tag Archives: লাকসাম উপজেলা

লাকসামে চেয়ারম্যান বাড়ির কবরস্থান থেকে যুবকের অর্ধগলিত লাশ উদ্ধার

 

ডেস্ক রিপোর্টঃ

কুমিল্লার লাকসাম উপজেলার কোটইশা গ্রাম থেকে শ্রমিকের অর্ধগলিত লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ। বৃহস্পতিবার রাতে বাকই ইউনিয়নের চেয়ারম্যান আবদুল আউয়ালের (আবুল) বাড়ির পূর্ব পাশে পারিবারিক কবরস্থান থেকে লাশটি উদ্ধার করা হয়।

ওই শ্রমিকের নাম মেহেদী হাসান (২৪)। তিনি পেশায় একজন কৃষি শ্রমিক ছিলেন। মেহেদী কোটইশা গ্রামের পুরাতন বাড়ির আবদুল জব্বারের ছেলে।

নিহতের মা ফাতেমা বেগমের অভিযোগের তীর একই গ্রামের বাসিন্দা মালেক মিয়ার ছেলে বাছেদ ও আমিন বাড়ির সিরাজুল ইসলামের ছেলে জিহাদের দিকে।

পুলিশ জানিয়েছে, তিন দিন আগে মেহেদী হাসান মা-বাবার সঙ্গে সকালে নাস্তা খেয়ে তার সহপাঠীদের সঙ্গে বের হন। মেহেদী কৃষিজমি ও বিভিন্ন ধরনের শ্রমিকের কাজ করতেন। এমনকি একই গ্রামের আমিন বাড়ির বাসিন্দা জাহিদ ও বাছেদ মিয়ার সঙ্গে দিনে অথবা রাতে আড্ডা দিতেন এবং মাঝে মধ্যে রাতে তাদের বাড়িতে ঘুমাতেন তিনি। মেহেদীর পাশের বাড়ির আনোয়ারা বেগম বৃহস্পতিবার বিকালে চেয়ারম্যান বাড়ির পাশে কবরস্থানে কচুর লতি ওঠাতে গিয়ে এক যবুকের ডান চোখ উঠানো লাশ দেখতে পেয়ে স্থানীয়দের খবর দেন। এ সময় স্থানীয়রা মেহেদীর অর্ধগলিত লাশ দেখে পুলিশে খবর দেন। পরে পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে রাত সাড়ে ৮টার দিকে লাশ উদ্ধার করে থানায় নিয়ে যায়।

লাকসাম থানার ওসি আবদুল্লাহ আল মাহফুজ বলেন, শুক্রবার সকালে ময়নাতদন্তের জন্য লাশ কুমিল্লা মর্গে পাঠানো হবে। সঠিক তদন্ত করে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

কুমিল্লার লাকসামে বিপুল পরিমাণ ভারতীয় আতশবাজীসহ চোরাকারবারি আটক

 

স্টাফ রিপোর্টারঃ

কুমিল্লার লাকসাম উপজেলায় অভিযান চালিয়ে বিপুল পরিমাণ ভারতীয় আতশবাজীসহ এনায়েত উল্লাহ (২৮) নামের এক চোরাকারবারিকে আটক করেছে র‌্যাব-১১, সিপিসি-২ এর সদস্যরা।

গোপন সংবাদের ভিত্তিতে ২৫ মার্চ বিকালে উপজেলার বাইপাস এলাকা থেকে প্রায় ৬ লক্ষ ২১ হাজার পিস ভারতীয় আতশজবাজীসহ তাকে আটক করা হয়।

আটককৃত যুবক লাকসাম উপজেলার ত্রিয়াং গ্রামের আবুল কাশেম ভূঁইয়ার ছেলে।

রবিবার (২৬ মার্চ) কুমিল্লা র‌্যাব-১১, সিপিসি-২ কোম্পানী অধিনায়ক মেজর মোহাম্মদ সাকিব হোসেন এ তথ্য নিশ্চিত করেন।

র‌্যাব জানায়, আটককৃত যুবক দীর্ঘদিন যাবত পার্শ্ববর্তী দেশ ভারত হতে আতশবাজীসহ বিভিন্ন ধরনের ভারতীয় পণ্য-সামগ্রী বাংলাদেশে আনয়ন করে কুমিল্লাসহ দেশের বিভিন্ন স্থানে ক্রয়-বিক্রয় ও সরবরাহ করে আসছিল। উক্ত বিষয়ে লাকসাম থানায় আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়েছে।

 

 

লাকসামে মোটরসাইকেল নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে ২ যুবকের মৃ’ত্যু

 

ডেস্ক রিপোর্টঃ

কুমিল্লার লাকসামে মোটরসাইকেল নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে সড়কের পাশে নিরাপত্তা খুঁটির সঙ্গে ধাক্কা লেগে ২ যুবকের মৃ’ত্যু হয়েছে।

শনিবার রাত ৯টার দিকে কুমিল্লা-নোয়াখালী আঞ্চলিক মহাসড়কের লাকসাম পৌরসভার ভৈষকোপালিয়া এলাকায় এ দু’র্ঘটনা ঘটে।

নি’হতরা হলেন, কুমিল্লার লালমাই উপজেলার আলিশ্বর গ্রামের প্রয়াত জহরলালের ছেলে মোটরসাইকেল চালক শান্ত সিংহ শাওন (২৫) ও একই গ্রামের শুক্রধন সিংহের ছেলে মোটরসাইকেল আরোহী চয়ন সিংহ (২৪)।

লাকসাম হাইওয়ে পুলিশ ফাঁড়ির উপ-পরিদর্শক (এস আই) ফারুক হোসেন এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

স্থানীয় বাসিন্দাদের বরাত দিয়ে এসআই ফারুক হোসেন জানান, রাত ৯টার দিকে লাকসাম রেলওয়ে জংশন থেকে মোটরসাইকেল যোগে আলিশ্বর বাড়ি ফিরছিলেন শান্ত সিংহ ও চয়ন সিংহ। এক পর্যায় আঞ্চলিক মহাসড়কের লাকসাম পৌরসভার ভৈষকোপালিয়া মোড়ে পৌঁছলে মোটরসাইকেলটি নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে সড়কের পাশে থাকা নিরাপত্তা খুঁটির সঙ্গে ধাক্কা লেগে ঘটনাস্থলেই দুই যুবক নি’হত হন।

খবর পেয়ে দু’র্ঘটনাকবলিত মোটরসাইকেল ও নি’হতদের মরদেহ উদ্ধার করা হয়। আইনি প্রক্রিয়া শেষে নি’হতদের ম’রদেহ পরিবারের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে।

কুমিল্লার লাকসামে অটোরিকশার ধাক্কায় প্রাণ গেল যুবকের

 

ডেস্ক রিপোর্টঃ

কুমিল্লার লাকসাম উপজেলায় সিএনজিচালিত অটোরিকশার ধাক্কায় প্রাণ গেল নাসির উদ্দীন (৩৮) নামে এক মোটরসাইকেল চালকের।

বৃহস্পতিবার রাত ৮টার দিকে উপজেলার মুদাফরগঞ্জ-চিতোষী সড়ক মাওলানা সাহেববাজার এলাকায় এ দুর্ঘটনা ঘটে।

নিহত নাসির রাজাপুর নাসা হাসপাতালে প্যাথলজি বিভাগে চাকরি করতেন। তিনি মনোহরগঞ্জ উপজেলা নাথেরপেটুয়া ইউনিয়নের ভরল্লা গ্রামের আবু সায়েদের ছেলে।

নিহত নাসির উদ্দীনের মামাশ্বশুর আজহার মজুমদার বলেন, বৃহস্পতিবার হাসপাতালের কাজ শেষ করে মাওলানা সাহেববাজারে যাচ্ছিলেন। এ সময় একটি অটোরিকশার সঙ্গে ধাক্কা লেগে মোটরসাইকেল নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে ছিটকে পড়েন তিনি। স্থানীয়রা তাকে উদ্ধার করে নাসা হাসপাতালে নিলে কর্মরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন।

লাকসাম থানার পুলিশ পরিদর্শক (তদন্ত) মাসুদ খান তার মৃত্যুর বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

কুমিল্লায় পৃথক অভিযানে বিপুল পরিমাণ মাদকসহ আটক ৩

 

স্টাফ রিপোর্টারঃ

কুমিল্লার চৌদ্দগ্রাম ও লাকসামে পৃথক অভিযান পরিচালনা করে বিপুল পরিমাণ মাদকসহ ৩ মাদক কারবারিকে আটক করেছে র‌্যাব-১১, সিপিসি-২ এর সদস্যরা। এসময় তাদের কাছ থেকে ২০ কেজি গাঁজা, ১ হাজার ৫২৫ পিস ইয়াবা ট্যাবলেট ও ৩১ বোতল ফেন্সিডিল জব্দ করা হয়।

শুক্রবার (১ জুলাই) দুপুরে কুমিল্লা র‌্যাব-১১, সিপিসি-২ এর কোম্পানী অধিনায়ক মেজর মোহাম্মদ সাকিব হোসেন এ তথ্য নিশ্চিত করেন।

তিনি জানান, গোপন সংবাদের ভিত্তিতে শুক্রবার ভোরে চৌদ্দগ্রাম উপজেলার জগমোহনপুর এলাকা থেকে ১ হাজার ৫২৫ পিস ইয়াবা ট্যাবলেট ও ৩১ বোতল ফেন্সিডিলসহ দুইজনকে আটক করা হয়। তারা হলেন, চৌদ্দগ্রামের জগমোহনপুর গ্রামের মৃত মুকবুল আহাম্মেদের ছেলে লোকমান হোসেন (৩৫) এবং একই গ্রামের মোঃ বাবুল মিয়ার ছেলে মোঃ তারেক হোসেন (২১)।

এছাড়াও পৃথক আরেকটি অভিযানে শুক্রবার সকালে লাকসাম উপজেলার উত্তর গাজীপুর এলাকায় থেকে ২০ কেজি গাঁজাসহ একজনকে আটক করা হয়। সে কিশোরগঞ্জ জেলার ভৈরব উপজেলার গোকুল নগর গ্রামের মৃত শহিদ মিয়ার ছেলে মোঃ শাহিন মিয়া (৩৫)।

আটককৃতদের বিরুদ্ধে কুমিল্লার লাকসাম ও চৌদ্দগ্রাম মডেল থানায় আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়েছে।

 

 

লাকসামে সাড়ে ৪ হাজার পিস ইয়াবাসহ ৩ যুবক আটক

 

সেলিম চৌধুরী হীরাঃ

কুমিল্লার লাকসামে জিআরপি থানার পাশে অভিযান চালিয়ে ৪ হাজার ৬৩০ পিস ইয়াবাসহ ৩ যুবককে আটক করেছে পুলিশ।

সোমবার (২১জুন) রাতে সহকারি পুলিশ সুপার লাকসাম সার্কেলের নেতৃত্বে লাকসাম থানা পুলিশের একটি বিশেষ দল রেলওয়ে জংশন জিআরপি থানার পাশ থেকে ইয়াবার এই চালান উদ্ধার করে।

আটককৃত মাদক পাচারকারিরা হলেন, লাকসাম নৈরপাড় গ্রামের চানঁ মিয়ার ছেলে ডিজে সোহেল, মনোহরগুন্জ লাইলহরী গ্রামের মাফুু আলমের ছেলে ফরহাদ হোসেন ও রাঙ্গামাটির সালাউদ্দিন মুন্না।

সিনিয়র সহকারি পুলিশ সুপার লাকসাম সার্কেল মোঃ মহিতুল ইসলাম বলেন, গোপন সংবাদের ভিত্তিতে লাকসাম থানার পুলিশের একটি বিশেষ দল নিয়ে জংশন এলাকায় মাদকবিরোধী বিশেষ অভিযান পরিচালনা করি। এ-সময় জিআরপি কলোনিতে একটি পরিত্যক্ত ভবনের ভিতরে লুকিয়ে রাখা পলিথিন বেগে থাকা ৪ হাজার ৬৩০ পিস ইয়াবা উদ্ধার করি এবং তিন মাদক বিক্রেতাকে আটক করি।

লাকসামে শ্বশুরবাড়ির পাশের সড়কে মিলল জামাইয়ের লাশ

ডেস্ক রিপোর্ট:
কুমিল্লা লাকসামে শ্বশুরবাড়ির পাশে সড়কে পড়ে থাকা সোহেল (২৭) নামে এক যুবকের লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ।

শুক্রবার উপজেলার লাকসাম-মুদাফরগঞ্জ সড়কের চিকিনিয়া গ্রামের আনছারিয়া কমপ্লেক্সে সামনে এ ঘটনা ঘটে।

সোহেল উপজেলার কান্দিরপাড়া ইউনিয়ন হামিরাবাগ গ্রামের আহাছান উল্লার ছেলে।

স্থানীয় সূত্র জানায়,বেশ কিছুদিন ধরে সোহেলের স্ত্রীর সঙ্গে বনিবনা হচ্ছিল না। এ ঘটনার দিন সোহেলের স্ত্রী তার শ্বশুরবাড়িতে ছিলেন। সোহেল বৃহস্পতিবার তার হামিরাবাগ নিজ বাড়ি থেকে বিকালে মুদাফরগঞ্জ ইউনিয়নের চিকিনিয়া গ্রামের শ্বশুরবাড়িতে যান। শুক্রবার সকালে শ্বশুরবাড়ি এলাকার লোকজন লাকসাম- মুদাফরগঞ্জ সড়কে রক্তাক্ত অবস্থায় এক ব্যক্তির লাশ দেখতে পেয়ে ৯৯৯ ফোন করেন।পরে পুলিশ এসে লাশ উদ্ধার করে।

তবে ওই ব্যক্তির মৃত্যু দুর্ঘটনা না হত্যা তা নিয়ে এলাকায় তোলপাড় সৃষ্টি হয়।

রাতে লাকসাম থানার পরিদর্শক (তদন্ত) মো. তোফাজ্জল হোসেন বলেন, লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্ত করার জন্য কুমিল্লা হাসপাতালের মর্গে পাঠানো হয়েছে।

লাকসামে ভাই-বোনের বিরোধ মেটাতে গিয়ে বৃদ্ধ সমাজপতি খুন

 

সেলিম চৌধুরী হীরাঃ

কুমিল্লার লাকসাম উপজেলায় ভাই-বোনের বিরোধ থামাতে গিয়ে মো. মফিজুর রহমান (৬৫) নামে এক বৃদ্ধ সমাজপতি খুন হয়েছেন। এই ঘটনায় লাকসাম থানা পুলিশ দুই নারীসহ ৫ জনকে আটক এবং ওই বৃদ্ধের মরদেহ উদ্ধার করে থানায় নিয়ে এসেছে।

শুক্রবার সন্ধায় (১১ নভেম্বর) উপজেলার মুদাফরগঞ্জ (দক্ষিণ) ইউনিয়নের নোয়াপাড়া গ্রামের বেপারী বাড়িতে এই ঘটনা ঘটেছে।

পুলিশ ও এলাকাবাসী সূত্রে জানা যায়, ওই গ্রামের মো. রফিকুল ইসলামের সঙ্গে তার বোন ফাতেমা বেগম ও পারভীন বেগমের পৈত্রিক সম্পত্তির ভাগ-বাটোয়ারা নিয়ে দীর্ঘদিন ধরে বিরোধ চলে আসছিল। বিরোধীয় জায়গায় বেড়া দেওয়াকে কেন্দ্র করে ওইদিন বিকেলে তাদের মধ্যে পুনরায় ঝগড়া-বিবাদ হয়। ঝগড়া-বিবাদের বিষয়টি জানাতে এবং বিবাদ মিমাংসার জন্য রফিকুল ইসলাম সালিশদার একই বাড়ির মো. মফিজুর রহমানকে ডেকে আনেন। তিনি বিবাদের ঘটনা সম্পর্কে তাঁকে অবহিত করছিলেন। এ সময় প্রতিপক্ষ আবারও বাক-বিতন্ডায় লিপ্ত হন। একপর্যায়ে উভয়পক্ষের মধ্যে তুমুল ঝগড়া-বিবাদ চরম আকার ধারণ করে। সালিশদার হিসেবে মো. মফিজুর রহমান উভয়পক্ষের বিবাদ থামানোর চেষ্টা করলে ফাতেমা ও পারভিনের ছেলেরা এসে ওই বৃদ্ধের ওপর চড়াও হয়ে তাঁকে মারধর করেন। এ সময় তিনি মাটিতে লুটিয়ে পড়ে অজ্ঞান হয়ে যান। পরে স্থানীয় লোকজন তাঁকে উদ্ধার করে লাকসাম হাসপাতালে নিয়ে আসলে কর্তব্যরত চিকিৎসক ওই বৃদ্ধকে মৃত ঘোষণা করেন।

এদিকে ঘটনার পর পর স্থানীয় লোকজন ঘটনার সঙ্গে জড়িতদের রফিকুল ইসলামের দুই বোন ও তিন ভাগিনাকে আটক করে পুলিশকে খবর দেন। সংবাদ পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে গেলে আটককৃতদের পুলিশে সোপর্দ করেন।

লাকসাম থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মো. নিজাম উদ্দিন ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, মরদেহ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য কুমিল্লা মেডিকেল কলেজ (কুমেক) হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়েছে। এ ঘটনায় থানায় মামলা হয়েছে।

সিলেটে ‘অপহৃত’ কিশোরকে কুমিল্লার লাকসাম থেকে উদ্ধার, গ্রেফতার স্বামী-স্ত্রী

 

ডেস্ক রিপোর্টঃ

সিলেট থেকে ‘অপহৃত’ এক কিশোরকে কুমিল্লার লাকসাম থেকে উদ্ধার করেছে পুলিশ। শুক্রবার ভোর রাতে লাকসাম থানা পুলিশের সহযোগিতায় ইয়াছিন আরাফাত মান্না (১৭) নামের ওই কিশোরকে উদ্ধার করে সিলেটের জালালাবাদ থানা পুলিশ। এ ঘটনায় ২ জনকে গ্রেফতার করা হয়েছে। সম্পর্কে তারা স্বামী-স্ত্রী।

ইয়াছিন আরাফাত মুন্না সিলেটের জৈন্তাপুর উপজেলার গৌরি শংকর গ্রামের তৈমুছ আলীর ছেলে। তার মোটরসাইকেল বেশি দামে বিক্রি করার প্রলোভন দেখিয়ে তাকে কুমিল্লা নিয়ে আটকে রাখা হয়।

গ্রেফতারকৃতরা হলেন- কুমিল্লার চৌদ্দগ্রাম উপজেলার নবগ্রামের পেয়ার আহমদের ছেলে ইমরান হোসেন (২৭) ও তার স্ত্রী লাকি বেগম (২৪)। কাজের জন্য ইমরান সিলেটে থাকতেন।

পুলিশ জানিয়েছে, ইয়াছিন আরাফাত মুন্নার সিলেট-হ-১২-২৯৮০ নম্বরের একটি মোটরসাইকেল ছিল। পরিবারের কাউকে না জানিয়ে মোটরসাইকেল বিক্রি করতে চায় সে। গত ২৬ নভেম্বর বেশি দামে মোটরসাইকেল বিক্রির প্রলোভন দেখিয়ে মুন্নাকে ‘অপহরণ করে’ কুমিল্লায় নিয়ে যান ইমরান হোসেন। সেখানে তার মোটরসাইকেল ১২ হাজার টাকায় বিক্রি করে দেন ইমরান। এতে ক্ষুব্ধ হয় মুন্না। সে নিজের মোটরসাইকেল বিক্রির টাকা চাইলে ইমরান তার স্ত্রী লাকিকে সাথে নিয়ে লাকসাম বাজারের পশ্চিমে একটি দোতলা ভবনের কক্ষে তাকে আটকে রাখেন। পরে আরো টাকা দাবি করেন তারা।

সিলেট নগরীর জালালাবাদ থানার পরিদর্শক (তদন্ত) শাহিন মিয়া জানান, এ ঘটনায় মুন্নার বাবা থানায় অভিযোগ দায়ের করেন। পুলিশ তথ্য-প্রযুক্তিকে কাজে লাগিয়ে মুন্নার অবস্থান শনাক্ত করে। পরে লাকসাম থানা পুলিশের সহযোগিতায় তাকে উদ্ধার ও দুজনকে গ্রেফতার করা হয়। শুক্রবার তাদেরকে আদালতে সোপর্দ করা হয়েছে।

কুমিল্লার লাকসাম পৌর নির্বাচনে মেয়র পদে আ’লীগের ৩ প্রার্থীর নাম প্রস্তাব

 

স্টাফ রিপোর্টারঃ

কুমিল্লার লাকসাম পৌরসভা নির্বাচনে মেয়র পদে আওয়ামী লীগের ৩ জন প্রার্থীর নাম প্রস্তাব করা হয়েছে। বৃহস্পতিবার (৩ ডিসেম্বর) বিকেলে পৌরসভা আওয়ামী লীগের জরুরি বর্ধিত সভায় এ সিদ্ধান্ত হয়।

মেয়র প্রার্থীরা হলেন, বর্তমান মেয়র ও উপজেলা যুবলীগ আহ্বায়ক অধ্যাপক মো. আবুল খায়ের, উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান ও পৌরসভা আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক মহব্বত আলী ও উপজেলা আওয়ামী লীগ সাংগঠনিক সম্পাদক অ্যাডভোকেট মো. রফিকুল ইসলাম হিরা। এ তিনজনের নাম চূড়ান্ত করে প্রথমে জেলা আওয়ামী লীগ ও পরে দলের হাই-কমান্ডের কাছে পাঠানো হবে।

পৌরসভা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি গোলাম রাব্বানীর সভাপতিত্বে বর্ধিত সভায় প্রধান অতিথি ছিলেন উপজেলা চেয়ারম্যান ও উপজেলা আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট ইউনুছ ভূঁইয়া। সভায় আওয়ামী লীগ ও অঙ্গ সংগঠনের শীর্ষ নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

বর্ধিত সভায় অধ্যাপক মো. আবুল খায়ের ও অ্যাডভোকেট মো. রফিকুল ইসলাম হিরা তাদের নিজ নিজ প্রার্থীতা ঘোষণা করেন। অপরদিকে আওয়ামী লীগ ও অঙ্গ সংগঠনের নেতৃবৃন্দ তাদের বক্তব্যে মেয়র প্রার্থী হিসেবে মহব্বত আলীর নামও প্রস্তাব করেন।

উল্লেখিত ৩ প্রার্থীর নাম প্রথমে জেলা কমিটি বরাবরে প্রেরণ করা হবে। পরবর্তীতে দলের হাই কমান্ডের কাছে পাঠানোর পর একজনকে চূড়ান্ত মনোনয়ন দেয়া হবে বলে সূত্রে জানা গেছে।

উল্লেখ্য, প্রথম ও দ্বিতীয় ধাপে লাকসাম পৌরসভার নির্বাচনের তফসিল ঘোষণা করা না হলেও তৃতীয় ধাপে এ পৌরসভা নির্বাচনের তফসিল ঘোষণার সম্ভাবনা রয়েছে।